বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮
বুধবার, ৪ঠা আশ্বিন ১৪২৫
 
 
নড়াইলে এম্বুলেন্স ড্রাইভারের অবহেলায় রোগীর মৃত্যু
প্রকাশ: ০১:১৮ pm ২৮-১০-২০১৭ হালনাগাদ: ০১:১৮ pm ২৮-১০-২০১৭
 
নড়াইল প্রতিনিধি:
 
 
 
 


নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এম্বুলেন্স ড্রাইভারের অবহেলায় অক্সিজেন সরবরাহে সমস্যার কারনে বিপ্লব শেখ নামে এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে স্থানীয় জনতা এম্বুলেন্সটি ঘেরাও করে রাখলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে এম্বুলেন্সটি উদ্ধার করেছে। এঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে এম্বুলেন্সের ড্রাইভারকে শোকজ করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।  

জানা গেছে, লোহাগড়ার সিংগা গ্রামের ফয়জুল্লা শেখের ছেলে বিপ্লব শেখ(৩৫) বুধবার রাত ১০টায় লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়।রোগীর অবস্থার অবনতি হলে তাকে  অন্যত্র চিকিৎসার পরামর্শ দেয়া হয়। পরের দিন বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে রোগীকে একটি প্রাইভেট এম্বুলেন্সে নেওয়ার পথে চৌগাছা নামক স্থানে পৌঁছালে এম্বুলেন্সটির যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। ওই সময় রোগীর আত্মীয় স্বজন লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এম্বুলেন্সের ড্রাইভার মোঃ খাইরুল ইসলাম কে ফোন করলে সে সরকারি এম্বুলেন্স নিয়ে সহযোগী রফিকুলকে চালাতে দিয়ে অন্যত্র চলে যায় । রফিকুল প্রাইভেট এম্বুলেন্স থেকে অক্সিজেন ছাড়াই রোগীকে সরকারি এম্বুলেন্সে প্রবেশের চেষ্টা করে। সরকারি এম্বুলেন্সের পেছনের দরজা(ডালা) খুলতে না পারায় পাশের জানালা  দিয়ে রোগীকে টেনে-হিচড়ে এম্বুলেন্সে ঢোকানোর পর রোগীকে অক্সিজেন সরবরাহের চেষ্টা করা হয়।  কিন্তু সরকারি ড্রাইভারের সহযোগী রফিকুল ঠিকমত সিলিন্ডার থেকে রোগীকে অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারেনি। ওই সময় এম্বুলেন্সেই বিপ্লব শেখের মৃত্যু হয়। 

উত্তেজিত লোকজন হেলপার সহ এম্বুলেন্সটি অবরুদ্ধ করে রাখে।খবর পেয়ে লোহাগড়া থানা পুলিশ প্রায় দেড় ঘন্টা পর ড্রাইভার খায়রুলকে সাথে করে ঘটনাস্থলে পৌঁছে এম্বুলেন্সটি উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। বিপ্লব শেখ এর ভাই পান্নু শেখ, আত্মীয় মশিয়ার সিকদার, সোনামিয়া সিকদার সহ অনেকে অভিযোগ করেন, লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এম্বুলেন্সের ড্রাইভার মোঃ খাইরুল ইসলাম নিজে গাড়ি না চালিয়ে তার সহযোগী রফিকুলকে দিয়ে এম্বুলেন্স চালিয়ে এনেছিল। রফিকুল রোগীকে অক্সিজেন সরবরাহে ব্যর্থের কারনে রোগীর মৃত্য হয়েছে। 

লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা(টি,এইচ,এ) ডাঃ লুৎফুন নাহার বলেন, আবাসিক মেডিকেল অফিসারের অনুমতি ব্যতীরেকে সরকারি এম্বুলেন্স নিয়ে বাহিরে গমন এবং কারন বশতঃ স্থানীয় জনতা কর্তৃক এম্বুলেন্সটি হাসপাতালে আনতে বাধা প্রদান ও ঘটনাস্থল চৌগাছা থেকে এম্বুলেন্স ফেলে রেখে নিজে চলে আসার অভিযোগে ড্রাইভার মোঃ খাইরুল ইসলামকে কৈফিয়ত তলব(শোকজ) করা হয়েছে। তিন দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে। ড্রাইভার মোঃ খাইরুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের বিষয়ে সন্তোষজনক উত্তর দিতে পারেনি। 

আর/আরডি/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71