বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮
বুধবার, ৩০শে কার্তিক ১৪২৫
 
 
নড়াইলে টিউবওয়েল মিস্ত্রিকে কুপিয়ে খুন 
প্রকাশ: ০৪:১৪ pm ২১-০৪-২০১৮ হালনাগাদ: ০৪:১৪ pm ২১-০৪-২০১৮
 
নড়াইল প্রতিনিধি
 
 
 
 


আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার পার মল্লিকপুর গ্রামে উপর্যুপরী কুপিয়ে এক টিউবওয়েল মিস্ত্রিকে খুন করেছে প্রতিপক্ষ।

নিহত খায়ের মৃধা পার মল্লিকপুর গ্রামের মৃত মোহাজ্জেল মৃধার ছেলে। হত্যার পর উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করার জন্য পুলিশ ৩০ রাউন্ড শর্ট গানের গুলি বর্ষণ করে। এ সময় পুলিশের গুলিতে ৫ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। 

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পার মল্লিকপুর গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ইউপি সদস্য উজ্বল ঠাকুর সমর্থিত লোকজনদের সাথে একই  গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য হিমায়েত হোসেন হিমু সমর্থিত লোকজনদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে শনিবার সকালে পার মল্লিকপুর চৌরাস্তার ভ্যান ষ্ট্যান্ডে উজ্বল ঠাকুর সমর্থিত লোকজন প্রতিপক্ষের গোলাম কিবরিয়া লিটু ও আকরাম সরদারকে মারপিট করে।

এ খবর গ্রামে ছড়িয়ে পড়লে হেমায়েত হোসেন হিমু সমর্থিত লোকজন টিউবয়েল মিস্ত্রি আবুল খায়ের মৃধাকে (৪০) পিটিয়ে  ও কুপিয়ে আহত করে। এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নেওয়ার পথে হবি মৃধার দোকানের কাছে পৌছালে ফের প্রতিপক্ষের লোক জন তাকে উপর্যুপরী কুপিয়ে দু’পায়ের রগ কেটে মারাত্বক আহত করে। এ সময় উভয় পক্ষের সংঘর্ষে আকরাম সরদার, গোলাম কিবরিয়া লিটু, রফিকুল শেখ, আঃ রইচ কাজী, মনিরুল গাজী আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার জন্য পুলিশ ৩০ রাউন্ড শট গানের গুলি বর্ষণ করে।

এ দিকে, গুরুতর আহত খায়ের মৃধাকে ঢাকা নেবার পথে তার অবস্থার  অবনতি  হলে পথিমধ্যে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে তার মৃত্য হয়।

দুপুর ১২ টার দিকে গ্রামে খায়ের মৃধার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে উজ্বল ঠাকুর সমর্থিত লোকজন প্রতিপক্ষ হাফিজ শেখ, এরশাদ শেখের বাড়ীতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট  শুরু করে। খবর পেয়ে পুলিশ ভাংচুর ও লুটপাট ঠেকাতে  উচ্ছৃঙ্খল জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে আরও ৫ রাউন্ড শর্টগানের গুলি বর্ষণ করে। এ সময় পুলিশের গুলিতে আনিচ ঠাকুর , সবুজ মিনা, নেওয়ান সরদার, রিয়াজুল ঠাকুর ও পার্শ্ববর্তী ঝিকড়া গ্রামের কলেজ ছাত্র সজিব শেখ গুলিবিদ্ধ হয়। 

আহতদেরকে নড়াইল, যশোর, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গুলিবিদ্ধ আনিচ ঠাকুর জানান, পুলিশ অন্যায় ভাবে আমাদের ওপর গুলি চালিয়ে আহত করেছে।

তবে এ ব্যাপারে লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম গ্রামবাসীদের ওপর গুলি বর্ষণের কথা অস্বীকার করে বলেন, উত্তেজিত জনতাকে নিয়ন্ত্রনে আনার জন্য পুলিশ ৩০ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি বর্ষন করেছে। 
নড়াইলের সহকারী পুলিশ সুপার মেহেদী হাসান সাংবাদিকদের জানান, গ্রামবাসীদের ওপর পুলিশ গুলি করেছে কি না তা তদন্ত করে দেখা হবে। বর্তমানে ওই গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি।

নি এম/রূপক 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71