শুক্রবার, ২১ জুন ২০১৯
শুক্রবার, ৭ই আষাঢ় ১৪২৬
 
 
নড়াইলে ধর্ষণের শিকার হিন্দু বিধবা ৮ মাসের অন্তসত্বা
প্রকাশ: ০৫:৩২ pm ১৩-০২-২০১৯ হালনাগাদ: ০৫:৩২ pm ১৩-০২-২০১৯
 
নড়াইল প্রতিনিধি:
 
 
 
 


নড়াইলের লোহাগড়ায় ধর্ষণের শিকার এক বিধবা মহিলা ৮ মাসের অন্তসত্বা হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই বিধবা প্রভাবশালী ধর্ষণকারী ও তার পরিবারের ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। 

উপজেলার নোয়াগ্রাম ইউনিয়নের রায় গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় গ্রামবাসীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, উপজেলার রায় গ্রামের অনিল বিশ্বাসের প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর তিনি পুস্প রানীকে বিয়ে করেন। তাদের সংসারে দুটি সন্তান রয়েছে। গত ২ বছর আগে অনিল বার্ধক্যজনিত কারনে মারা যায়। স্বামীর রেখে যাওয়া ভিটের ওপরে টিনের ঝুপড়ি ঘরে পুস্প রানী (৪০) তার দু’টি শিশু সন্তান নিয়ে দিন মজুর ও ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবনযাপন করে আসছিলেন। 

বুধবার সরেজমিনে পুস্প রাণীর সাথে কথা হলে তিনি জানান, বিগত ২০১৮ সালের জুলাই মাসে প্রতিবেশী জাফর মোল্যার নির্মাণাধীন বাড়িতে দিন মজুর হিসেবে কাজে যান। বাড়ির কাজে তদারকির দায়িত্বে থাকা জাফর মোল্যার শ্যালক একই গ্রামের মৃত আব্দুর রাজ্জাক মীনার ছেলে ইমদাদুল মীনা একাকী পেয়ে পুষ্পকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। ধর্ষণের বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য হুমকি দেয়। পুস্প লোকলজ্জা ও ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পায়নি। কিন্তু এরই মধ্যে গর্ভের অনাগত সন্তান দিন দিন বড় হতে থাকে।  পুষ্পের শারীরিক অবস্থার পরিবর্তন দেখতে পেলে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে বিষয়টি প্রতিবেশী মহিলাদের কাছে বলেন। এ নিয়ে গ্রামে শুরু হয়েছে ব্যাপক তোলপাড়। চলছে আলাপ-আলোচনা। 

অভিযুক্ত ইমদাদুল মীনার বাড়িতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার ভাই তরিকুল মীনা জানান, ইমদাদুল মীনা গত ৭/৮ দিন আগে সৌদি আরব গেছে। এ কারনে অভিযুক্ত ইমদাদুল মীনার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। 

গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, ইমদাদুল বর্তমানে নড়াইলে অবস্থান করছে। তার ভাই সাকায়াত মীনা, তরিকুল মীনা ও চাচাতো ভাই বাশার মাষ্টারসহ কয়েকজন নিকট-আত্মীয়কে নিয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে বিষয়টি ধামাচাপা বা মীমাংশার চেষ্টা করছে বলে গ্রামবাসীরা আলাপকালে জানিয়েছেন। 
 
এ বিষয়ে লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ প্রবীর বিশ্বাস বলেন, ওই মহিলাকে থানায় আনার জন্য স্থানীয় গ্রাম পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

নি এম/রূপক

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71