মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ১০ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
নড়াইলে নবজাতককে কমোডে ফেলে হত্যা
প্রকাশ: ০৯:৩৪ pm ০৩-০৪-২০১৭ হালনাগাদ: ০৯:৩৪ pm ০৩-০৪-২০১৭
 
 
 


নড়াইল : নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় এক কিশোরী হাসপাতালের টয়লেটে সন্তান প্রসবের পর লোকলজ্জার ভয়ে নবজাতককে কমোডে ফেলে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রোববার ওই নবজাতকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। লোহাগড়া থানার ওসি মো. জাহাঙ্গীর আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

পুলিশ জানায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কমোড থেকে নবজাতকের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। গুরুতর অসুস্থ্ হওয়ায় দশম শ্রেণির ওই কিশোরীকে এখনও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রাখা হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ড. লুৎফুন নাহার বলেন, ‘শনিবার রাত ২টার দিকে পেট ব্যথার কথা বলে ওই কিশোরীকে হাসপাতালে ভর্তি করে তার স্বজনরা।এরপর রবিবার ভোররাতের দিকে হাসপাতালের কাউকে না জানিয়ে কিশোরীটিকে টয়লেটে নিয়ে যান তার নানি কাজলী বেগম।

সেখানে সে সন্তান প্রসব করলে নবজাতককে কমোডে ফেলে দিয়ে আসেন কাজলী বেগম। বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশকে খবর দেই আমরা।’ এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে বলে জানান তিনি।

ওসি মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘প্রাথমিক তদন্তে জেনেছি, লক্ষীপাশা ইউনিয়নের নোয়াপাড়া গ্রামের ১৫ বছরের ওই কিশোরীর সঙ্গে একই ইউনিয়নের ঝিকড়া গ্রামের জিল্লুর রহমান শেখের ছেলে নয়ন শেখের (২২) প্রেমের সম্পর্ক ছিল।

বিয়ের প্রলোভনে মেয়েটির সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে নয়ন। এতে গর্ভবতী হয়ে পড়ে ওই মেয়ে।’কিশোরীর বাবা জহুর শেখ বলেন, ‘এ জঘন্য ঘটনার জন্য দায়ী নয়ন। তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

ওই কিশোরীও এ ঘটনার জন্য নয়নকে দায়ী করেছেন।ঘটনার পর পরই নয়ন গা ঢাকা দেওয়ায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এইবেলাডটকম/এফএআর

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71