শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯
শুক্রবার, ১৩ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
পঞ্চগড়ে চিকিৎসার অভাবে এক হিন্দু প্রসূতি মায়ের মৃত্যু
প্রকাশ: ০৪:১৮ pm ২৮-০৮-২০১৭ হালনাগাদ: ০৪:১৮ pm ২৮-০৮-২০১৭
 
পঞ্চগড় প্রতিনিধি
 
 
 
 


পঞ্চগড় সদর উপজেলার গলেহা পাড়ার শ্রী জয়দেব কুমার (২৮) এর স্ত্রী শ্রীমতি ফুলফুলি রানী (২২) চিকিৎসার অভাবে ধাত্রী ও পল্লী চিকিৎসকের দায়িত্বে অবহেলার কারণে গত শনিবার প্রসবকালীণ সময়ে বাড়িতেই মৃত্যুবরণ করেন।

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনের ইউ,পি সদস্যা নুরজাহান বলেন, মৃত ফুলফুলি রানী (২২) উন্নত চিকিৎসার জন্য পঞ্চগড় সদর হাসপাতালে যেতে চাইলে তার শ্বশুর রমেশ চন্দ্র (৫৫) তাকে হাসপাতালে নিতে অস্বীকৃতি জানায় এবং বলেন, সব বৌমার বাচ্চা বাড়িতে হইল এইডা বৌমাক আবার হাসপাতাল নিগাবা নাগিবে? বাড়িতে ভালো হবে।

পরবর্তীতে পার্শ্ববর্তী বোয়ালমারী গ্রামের ধাত্রী পুতুলকে নিয়ে আসেন, যার কোন সরকারী প্রশিক্ষন না থাকায় ভুল চিকিৎসার কারণে প্রসবে দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হয় এবং প্রসবকালীণ সময়ে এবং পরে প্রচুর রক্তপাত হওয়ার কারণে প্রসূতি ফুলফুলি রানী (২২) বাড়িতেই মৃত্যুবরন করে। প্রসবকালীণ সময়ে স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক ডাঃ সামিউল সার্বক্ষনিক প্রসূতির দেখ-ভালের দায়িত্বে ছিলেন। কিন্তু প্রসবকালীণ সময়ে ও পরে প্রচুর রক্তপাত হওয়া সত্ত্বেও প্রসূতিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কোন সু-পরামর্শ দেননি এবং রোগী সুস্থ আছে চিন্তার কোন কারণ নেই এই আশ্বাস দেন।

মৃত ফুলফুলি রানী (২২) এর মা অন্নবালা (৪৫) বলেন, বাপুগে মোর বেটিক মুই হাসপাতাল নিগাবা চাহিনু কিন্তু ধাত্রীডা মোক ঘরতে ঢুকিবা দিলনাই, আরো কহিল হাসপাতালতে কি খালি আল্লাহ আছে বাড়িত কি নাই? মুই জীবনে কত প্রসূতি রোগী ভালো কন্নু হাসপাতাল নিগাবার কোন দরকার নাই এইঠে ভালো হবে। উপায়ান্তর না পেয়ে মৃতের মা-বাবা মৃতের শ্বশুর-শ্বাশুড়ী ও ধাত্রীর সিদ্ধান্ত মেনে নিতে বাধ্য হন।

মৃত ফুলফুলি রানী (২২) এর বাবা মহেশ চন্দ্র(৫০) বলেন ফুলফুলি তার উন্নত চিকিৎসার কথা মাথায় রেখে (এন,জি,ও) আশা সংস্থা থেকে সপ্তাহ খানেক আগে ১২০০০ টাকা ঋন গ্রহন করেন। তার বাবা আরো বলেন, বর্তমান সরকারের চিকিৎসা খ্যাতে এত সুযোগ-সুবিধা থাকা সত্ত্বেও শুধু মাত্র ফুলফুলির শ্বশুর, পল্লী চিকিৎসক ও ধাত্রীর অবহেলার কারণে বিনা চিকিৎসায় আমার মেয়েকে অকালে প্রাণ দিতে হল।

নি এম

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71