শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
শনিবার, ৭ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
পঞ্চগড়ে হারিয়ে যাচ্ছে কাউন
প্রকাশ: ০২:০৬ pm ২১-০৬-২০১৫ হালনাগাদ: ০২:০৬ pm ২১-০৬-২০১৫
 
 
 


পঞ্চগড় প্রতিনিধি :
পঞ্চগড় জেলা থেকে হারিয়ে যাচ্ছে কাউন চাষ। সরজমিনে জেলার বিভিন্ন অঞ্চল ঘুরে কোথাও তেমন কাউন চাষাবাদ খুজে পাওয়া যায়নি। কেউ কেউ সখের বসে ৫ থেকে ১০ শতক জমিতে কাউন চাষ করেছেন। এ সময় কথা হয় বেংহারী ইউনিয়নের শিকারপুর গ্রামের চাষি তারা মিয়ার সাথে। তিনি ৮ শতক জমিতে কাউন চাষ করেছেন। বর্তমানে কাউন এর শীষ বের হয়েছে। অল্প কয়েকদিনের মধ্যে কাউন ক্ষেত থেকে ঘরে তুলবেন।
আরো কয়েকজন কৃষক কাউন আবাদ করেছেন অল্প জমিতে শখের বসে। অনেক কৃষক জানান, কাউন চাষ আমাদের আর করতে হয় না। এখন ভুট্রা আর বাদাম চাষাবাদ বেশী হচ্ছে। উপজেলায় এখন ভুট্রা আর বাদামের ক্ষেতে ভরে গেছে। তারা জানান, এখন কাউন আবাদ করতে কৃষকরা আর আগ্রহী নয়। এমন এক সময় ছিল অনেক মানুষ কাউনের ভাত খেয়ে জীবিকা নিবার্হ করতো। এই তো ১০ থেকে ১৫ বছর আগে আষাঢ় ও শ্রাবন মাসে অনেকে কাউন এর ভাত খেয়ে দিনাতিপাত করেছে। কাউন এর আবাদ না করার কারণ হিসেবে তারা জানান, বাজারে কাউন এর দাম কম। দাম কম হওয়ার কারণে কৃষকরা লাভবান হতে পারছেন না কাউন চাষাবাদ করে। এজন্য অনেক কৃষক কাউন চাষ ছেড়ে দিয়েছেন।
এখন উপজেলার প্রায় প্রত্যেক কৃষক বোরো ধান ব্যাপক হারে চাষাবাদ করছে। তাই কৃষকদের আর ভাতের অভাব দেখা যায় না। তাই অভাব দুর করার জন্য তাদের আর কাউন এর ভাত ক্ষেতে হয় না। কাউন চাষ যে ভাবে হারিয়ে যাচ্ছে, তাতে আমাদের নতুন প্রজন্ম পরবর্তীতে আর কাউন চাষাবাদ সম্পর্কে কিছু জানবে না।
এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি অফিসার মো. এনামুল হক জানান, আমরা কৃষি বিভাগ কৃষকদের সব রকমের রবিশষ্যের চাষাবাদ করতে কৃষকদের পরামর্শ প্রদান করি। বর্তমানে কাউনের চাল ৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। কাউনের চালের পায়েস খেতে ভাল লাগে। কাউন চাষে জমির উর্বরতা শক্তি বাড়ে এবং কাউন গাছ থেকে জমির ভাল সার তৈরী হয়। তিনি বলেন কাউন চাষ এ অঞ্চলের কৃষক দিন দিন আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। আমরা ৫০ হেক্টর জমিতে কাউন চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছি। লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে মর্মে কৃষি কর্মকর্তা জানান।
সুত্র : বাসস
এইবেলা ডট কম/এইচ আর
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71