শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮
শনিবার, ৩রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত মাধবকুন্ড জলপ্রপাত
প্রকাশ: ০৭:৩২ pm ২১-০৮-২০১৭ হালনাগাদ: ০৭:৩২ pm ২১-০৮-২০১৭
 
মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :
 
 
 
 


মৌলভীবাজারের বড়লেখায় দেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র মাধবকুন্ড-জলপ্রপাত পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে। পর্যটকরা এখন থেকে মাধবকুন্ডের কলধ্বনি সহ নৈসর্গিক সৌন্দর্য অবলোকন করতে পারবেন।

২০ আগষ্ট সকাল ১০টার দিকে জলপ্রপাতে প্রবেশের প্রধান ফটক পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়। বন বিভাগ জরুরি ভিত্তিতে মাধবকুন্ড- ইকোপার্ক এলাকা সংস্কার করেছে। সংস্কারের পর এলাকাটি ঝুঁকিমুক্ত হওয়ায় সিলেট বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আর এস এম মুনিরুল ইসলাম তাঁর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে মাধবকুন্ড-ইকোপার্কের রাস্তা ডেবে গিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় পর্যটকদের নিরাপত্তার স্বার্থে সর্বসাধারণের প্রবেশাধিকার সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছিল। ইতিমধ্যে ইকোপার্কের জরুরি মেরামত কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। ২০ আগষ্ট রবিবার থেকে সীমিত পরিসরে পর্যটকদের জন্য ইকোপার্ক খুলে দেওয়া হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে পর্যটকদের ভ্রমণ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

সরজমিনে মাধবকুন্ড ইকোপার্কে  গিয়ে দেখা গেছে, মাধবকুন্ড পর্যটন রেস্তোরা এলাকা ডেবে যাওয়া অংশ সংস্কার করে সেখানে সিঁড়ি দেওয়া হয়েছে। টিলা ও জলপ্রপাতে নামার রাস্তার যে অংশ ডেবে গিয়েছিল সেখানে বালির বস্তা ফেলা হয়েছে। এছাড়া জলপ্রপাত এলাকায় পর্যটকদের বসার ব্রেঞ্চ মেরামত, ইকোপার্কের ভেতরের রাস্তাসমূহ ও অন্যান্য স্থান স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সহযোগিতায় পরিস্কার করা হয়েছে। 

বন বিভাগের বড়লেখা রেঞ্জের সহযোগী রেঞ্জ কর্মকর্তা শেখর রঞ্জন দাস জানান, ‘রবিবার (২০ আগস্ট) পর্যটকদের জন্য গেট খুলে দেওয়া হয়েছে। আপাতত ইকোপার্ক পর্যটকদের জন্য ঝুঁকিমুক্ত। তবে বিশেষজ্ঞ দল এসে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর তাদের পরামর্শক্রমে বৃহৎ প্রকল্প নেওয়া হবে। এরপর কাজ শুরু করা হবে।

উল্লেখ্য যে, অতিবর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে মাধবকুন্ড- ইকোপার্ক এলাকার টিলা ও রাস্তা ডেবে গিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যায়, এতে মাধবকুন্ড-ইকোপার্ক পর্যটন এলাকাটি পর্যটকদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে ওঠে। ফলে দুর্ঘটনা এড়াতে বন বিভাগ গত ২২ জুন থেকে মাধবকুন্ড- ইকোপার্ক ও জলপ্রপাত এলাকা পর্যটকদের জন্য অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে। ঘোষণার ফলে এতদিন মাধবকুন্ড এলাকায় পর্যটকদের প্রবেশাধিকার ছিল না।

কে/এসএম

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71