শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮
শুক্রবার, ৬ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
পেরুতে ধর্মীয় রীতি মানতে শিশুদের বলি, ৫০টি দেহাংশ উদ্ধার
প্রকাশ: ০৫:০৬ pm ০৯-০৬-২০১৮ হালনাগাদ: ০৫:০৬ pm ০৯-০৬-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


৫০টিরও বেশি শিশুর কঙ্কাল উদ্ধার করল প্রত্নতত্ত্ববিদরা। তাঁদের ধারণা, ধর্মীয় আচার–আচরণ পালনের জন্যই ওই শিশুদের বলি দেওয়া হয়েছিল। শিশুদের এই কঙ্কালগুলি উদ্ধার হয়েছে বর্তমান পেরুর উত্তর দিকের সমুদ্র তীরবর্তী অঞ্চল থেকে। 

কলোম্বিয়ান যুগের আগে চিমু সংস্কৃতির মানুষ এই বলি দিত বলে প্রত্নতত্ত্ববিদরা জানিয়েছেন। এর আগেও ১৪০টি শিশুর দেহাংশ উদ্ধার করা হয়, যাদের খুন করে পুঁতে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সম্প্রতি পাওয়া শিশুদের দেহাংশ দেখে বোঝা গিয়েছে যে ধর্মীয় রীতির কারণেই তাদের প্রাণ উৎসর্গ করা হয়েছিল। 

প্রত্নতত্ত্ববিদ গাবরিয়েল প্রিয়েটো বলেন, ‘‌চিমু সংস্কৃতিতে বিশ্বাসী মানুষরাই শিশুদেরকে বলি দিয়েছে। এখনও পর্যন্ত ৫৬টি দেহাংশ উদ্ধার হয়েছে। অন্যদিকে হুয়ানচাকিতো থেকেও ১৪০টি দেহাংশ পাওয়া গিয়েছে।
সংখ্যাটা ক্রমেই বাড়ছে এবং মনে করা হচ্ছে একই কারণে শিশুদেরকে বলি দেওয়া হয়েছিল।’‌ পেরুর তৃতীয় সবচেয়ে বড় শহর ট্রুজিল্লোর হুয়ানচাকোর পামাপা লা ক্রুজ অঞ্চল থেকে ১৪০টি দেহাংশ উদ্ধার হয়। 

গাবরিয়েল প্রিয়েটো জানান, শিশুদের দেহাংশ দেখে বোঝা যাচ্ছে শিশুদের বয়স ৬ থেকে ১৪ বছরের মধ্যে হবে। শিশুদের দেহাংশগুলি তুলোয় মুড়ে সমুদ্রের দিকে করে পুঁতে রাখা ছিল। 

প্রত্নতত্ত্ববিদদের কাছ থেকে জানা গিয়েছে, হুয়ানচাকোর চিমু সম্প্রদায়ের মানুষ এরকমভাবেই শিশুদেরকে বলি দেয় শুধুমাত্র কিছু ধর্মীয় বিশ্বাসের জন্য। শিশুদের বুকের পাঁজরের হাড় কেটে তাদের বুক উন্মুক্ত করে পুঁতে দেওয়া হয়েছিল। ৫৫০ বছর আগের এই দেহাংশ পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এর আগেও ২০১১ সালেও ৩,৫০০ বছর পুরনো এক মন্দির থেকে ৪২ জন শিশু এবং ৭৬ জন লামার দেহাংশ উদ্ধার হয়। 

নি এম/ 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71