বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
বুধবার, ১১ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
প্রচলিত হিন্দু মতে অমাবস্যায় যে ৭টি নিয়ম মেনে চলতে হয়
প্রকাশ: ০৩:৫৩ pm ০১-০৯-২০১৬ হালনাগাদ: ০৩:৫৩ pm ০১-০৯-২০১৬
 
 
 


এইবেলা ডেস্ক : অমাবস্যা ও পূর্ণিমা তিথি দু’টি হিন্দু পাঁজি অনুযায়ী অত্যন্ত বিশিষ্ট। এই দিনগুলিতে বিশেষ কিছু রীতি-নীতি মেনে চলার প্রচলন রয়েছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে। অঞ্চল, ভাষা অথবা প্রদেশ-বিশেষে এই নিয়মগুলির একটু পরিবর্তন হতে পারে।

নীচে যে নিয়মগুলির কথা বলা হয়েছে তা সচরাচর সব ভাষা বা গোষ্ঠীর হিন্দুরাই মেনে চলেন— 

১. অমাবস্যার দিন কখনও নখ কাটতে নেই। তন্ত্রমতে, চুল এবং নখ হল শরীরের ‘নদী’-র অংশ। বলা হয় পূর্ণিমার দিন যেহেতু জীবনপ্রবাহ ‘উচ্চ’ পর্যায়ে থাকে, তাই মানুষের শরীরের মাথা এবং চুল সেদিন সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত হয়। তাই পূর্ণিমার দিন চুল কাটতে নেই। আবার অমাবস্যার দিন যেহেতু জীবনপ্রবাহ ‘নিম্ন’ থাকে তাই ওই দিনগুলিতে সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত হয় হাত ও পায়ের নখ। তাই অমাবস্যায় নখ কাটতে বারণ করা হয়। তাছাড়া, সংস্কার অনুযায়ী অমাবস্যায় তান্ত্রিক অভিচার ক্রিয়া সম্পন্ন হয়। কাটা নখ ও চুল মারণ-উচাটনে ব্যবহৃত হয় বলে অনেকের বিশ্বাস।   

২. অমাবস্যা তিথিতে বাড়ির মূল দরজার সামনে সন্ধের পরে দু’টি তিলের তেলে প্রদীপ জ্বালতে হয়। যেহেতু মনে করা হয়, এই দিনে অশুভ শক্তির প্রভাব বাড়ে, তারই প্রতিকার হিসেবে এই নিয়মটি পালন করতে বলা হয়।

৩. পূর্ণিমার দিনের মতোই, অমাবস্যার দিন অবশ্যই বাড়ি ঘরদোর পরিষ্কার করতে হয়। বাড়িতে যেন কোনও এঁটো বাসন-কোসন না থাকে। বাড়ির নোংরা আবর্জনা দূর করে, ঘর মুছতে হয়, বিশেষ করে চৌকাঠ ভাল করে ধুতে হয়।  

৪. অমাবস্যার দিনে দূরে যাত্রা করলে তা অশুভ বলে মনে করা হয়। মধ্যযুগে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে অমাবস্যার দিনগুলিতে প্রশাসনিক এবং বৈষয়িক কাজকর্ম সচরাচর বন্ধ রাখা হত। আধুনিক জীবনে তা হয়তো সম্ভব নয়, কিন্তু জরুরি প্রয়োজন ছাড়া এইদিন দূরে কোথাও যাত্রা না করাই ভাল। কোনও শুভকাজের সূচনার জন্য এইদিন ভাল নয় বলেই মনে করা হয়।  

৫. পূর্ণিমার মতোই অমাবস্যার দিনেও অনেকে উপোস করেন এবং দিনে একবারই খান। পুরোপুরি উপোস না করলেও এইদিন আমিষ খাবার বর্জন করা উচিত বলেই মনে করা হয়।  

৬. অমাবস্যার দিন মন্দিরে পুজো দেওয়া শুভ বলে মনে করেন হিন্দুরা। মন্দিরে না যেতে পারলেও এইদিন বাড়িতে স্নান করে ঈশ্বরকে স্মরণ করলে ভাল।  

৭. হিন্দু সংস্কার অনুযায়ী অমাবস্যায় গর্ভধারণ অশুভ। অমাবস্যা ছাড়াও পূর্ণিমা, চতুর্থী, ষষ্ঠী, অষ্টমী এবং চতুর্দশী তিথিতে গর্ভধারণ অশুভ বলে মনে করা হয়। 

এইবেলাডটকম/এএস

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71