শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২
শুক্রবার, ১৮ই অগ্রহায়ণ ১৪২৯
সর্বশেষ
 
 
প্রথম পত্র পরীক্ষায় যখন দ্বিতীয় পত্রের প্রশ্ন বিতরণ
প্রকাশ: ০৮:২৩ pm ১৫-০৯-২০২২ হালনাগাদ: ০৮:২৩ pm ১৫-০৯-২০২২
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে নড়াইলের কালিয়ার দু’টি ও লোহাগড়ার একটি কেন্দ্রে বাংলা প্রথম পত্রের সময় বাংলা দ্বিতীয় পত্রের বহুনির্বাচনী প্রশ্নপত্র (এমসিকিউ) বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) থেকে শুরু হয় এসএসসি পরীক্ষা।
 
প্যাকেটের ওপরে বাংলা প্রথমপত্র লেখা থাকায় ঘটনাটি ঘটেছে বলে কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে। তাৎক্ষণিকভাবে ভুল প্রশ্নপত্র উঠিয়ে নিয়ে অতিরিক্ত প্রশ্নপত্র দিয়ে সফলভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে। জেলায় মোট ২১টি কেন্দ্রে এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পরীক্ষার প্রথম দিন বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) পরীক্ষা শুরু হলে কালিয়া উপজেলার প্যারী শংকর পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় ও বাঐসোনা কামশিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের পরীক্ষার্থীদের মধ্যে বাংলা প্রথমপত্রের প্রশ্নের সময় বাংলা দ্বিতীয় পত্রের এমসিকিউ প্রশ্ন বিতরণ করা হলে পরীক্ষার্থীদের কাছে ভুলটি ধরা পড়ে। এছাড়া লোহাগড়া উপজেলার দিঘলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রেও একই ঘটনা ঘটেছে।

কালিয়া প্যারী শংকর পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব দীপ্তিরানী বৈরাগী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘প্রশ্নপত্রের প্যাকেটের ওপরে বাংলা প্রথমপত্রের কোড লেখা থাকার কারণে তারা বিষয়টি খেয়াল না করেই প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হয়। পরবর্তীতে জানতে পেরে দ্রুত সেগুলোকে গুছিয়ে নেওয়া হয় এবং বাংলা প্রথমপত্রের অতিরিক্ত প্রশ্নপত্র দিয়ে সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে।’ কেন্দ্রটিতে প্রথম দিনে ৩৩০ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

বা ঐ সোনা কামশিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অমলেন্দু হিরা বলেন, ‘১৫টি প্রশ্ন সরবরাহের পর বিষয়টি নজরে আসলে কেন্দ্র সংশ্লিষ্টরা প্রশ্ন দেওয়া বন্ধ করে দেন। পরে তা গুছিয়ে নেওয়া হয়েছে।’ 

লোহাগড়ার দিঘলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্র সচিব সুভাষ চন্দ্র কুন্ডু বলেন, ‘আমাদের এখানে সরবরাহকৃত একটি প্যাকেটে প্রথম পত্রের পরিবর্তে দ্বিতীয় পত্রের এমসিকিউ প্রশ্ন ছিল। এ প্যাকেটে ১০০ প্রশ্ন ছিল। পরীক্ষার্থীদের হাতে দেওয়ার আগেই বিষয়টি আমাদের নজরে আসে।’ সঙ্গে সঙ্গে এটা সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

কালিয়ার ইউএনও মো. আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘প্যাকেট করার সময় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের ভুলের কারণে এমনটা হয়েছে। পরীক্ষার্থীদের মধ্যে বিতরণ করা বাংলা দ্বিতীয় পত্রের প্রশ্নপত্রগুলো জব্দ করা হয়েছে। ঘটনাটি শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে। তবে পরীক্ষা পরিচালনা কর্তৃপক্ষের কাছে থাকা অতিরিক্ত প্রশ্নপত্র দিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে প্রথম দিনের পরীক্ষা শেষ করা হয়েছে।’

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম সায়েদুর রহমান বলেন, ‘প্যাকেটের গায়ে বাংলা প্রথম পত্রের কোড লেখা থাকার কারণে এরকম ভুল হয়েছে। কক্ষ পরিদর্শকরা এ প্রশ্ন বিতরণ করলেও তাৎক্ষণিকভাবে সবার কাছ থেকে তা গুছিয়ে নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি বোর্ডের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে।’

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2022 Eibela.Com
Developed by: coder71