মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯
মঙ্গলবার, ১০ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
প্রথম শিকার ওয়ারিঙ্কা
প্রকাশ: ১০:৫২ am ০৫-০৭-২০১৭ হালনাগাদ: ১০:৫২ am ০৫-০৭-২০১৭
 
 
 


স্পোর্টস ডেস্ক::  তিনটি মেজর জিতে বিগ ফোরের জন্য হুমকি হয়ে উঠেছিলেন স্তানিসলাস ওয়ারিঙ্কা। তবে উইম্বলডনে বরাবরই তিনি দুর্ভাগা। যে আসরে ২০০২-এর পর বিগ ফোরের বাইরে কেউ শিরোপা জিততে পারেননি, সে আসরে ওয়ারিঙ্কা ব্যর্থ এবারও। শুধু ব্যর্থ বললে ভুল হবে, রীতিমতো অঘটনের শিকার হয়েছেন রজার ফেদেরারের পর সুইজারল্যান্ডের সবচেয়ে বড় টেনিস তারকা। রাশিয়ার ২১ বছর বয়সী দানিল মেদভেদেভের কাছে হেরে প্রথম রাউন্ডেই বিদায় নিয়েছেন।

হাঁটুর ইনজুরিতে ভুগছিলেন, কিছুটা খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়েই খেলেছেন, বিরতিতে আইসপ্যাক নিতেও দেখা গেছে ওয়ারিঙ্কাকে। তাতেও অবশ্য ৬ ফুট ৬ ইঞ্চি উচ্চতার রুশ তরুণের কৃতিত্ব একটুও ম্লান হয়নি। তাঁর পাওয়ার সার্ভ, গ্রাউন্ড স্ট্রোকে নতুন প্রজন্মের অন্যতম সেরা একজনকেই আবিষ্কার করেছেন সেন্টার কোর্টের দর্শকরা। ৬-৪, ৩-৬, ৬-৪ ও ৬-১ গেমে ম্যাচ জিতেছেন মেদভেদেভ। এটি মাত্র তাঁর তৃতীয় গ্র্যান্ড স্লাম, উইম্বলডনে প্রথম, প্রথম জয়ও পেলেন, তাও র্যাংকিংয়ের ৩ নম্বর খেলোয়াড়ের বিপক্ষে। মেদভেদেভের কাছে এই জয় স্মরণীয় না হয়ে থেকে পারে না, সেটি উচ্ছ্বাসের সঙ্গে জানিয়েছেনও তিনি, ‘এই মুহূর্তটা ব্যাখ্যা করার মতো ভাষা আমার কাছে নেই। শুধু এটুকু বলতে পারি, এই স্মৃতিটা সারা জীবন সঙ্গী হয়ে থাকবে। ’ ওয়ারিঙ্কা নিশ্চিত ভুলেই যেতে চাইবেন এমন কিছু। অল ইংল্যান্ড ক্লাবে ষষ্ঠবারের মতো প্রথম রাউন্ডে বিদায় নিয়েছেন যে তিনি। এই আসরে এখনো কোয়ার্টার ফাইনালের গণ্ডি পেরোনো হয়নি তাঁর। এবার ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনাল খেলেই নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়ে নেমেছিলেন ঘাসের কোর্টে। তবে জুজুটা পেছন ছাড়েনি। গা গরমের টুর্নামেন্ট কুইন্স ক্লাব চ্যাম্পিয়নশিপেও বিদায় নিয়েছিলেন প্রথম রাউন্ডে। ফ্রেঞ্চ ওপেনের পর ঘাসের কোর্টে এ নিয়ে দুটি ম্যাচ খেললেন, দুটিতেই হার। মেদভেদেভের কাছে হারের পর অবশ্য প্রতিপক্ষের প্রশংসাও ঝরেছে তাঁর মুখে, ‘যে ছন্দে খেলতে চেয়েছিলাম তার কিছুই হয়নি আজকে। তবে সত্যিই অসাধারণ একজন খেলোয়াড়ের বিপক্ষে খেলেছি। তার গতি, নিয়ন্ত্রণ—সব কিছুই ছিল দারুণ। আমার জন্য খুব বাজে একটা হার হয়ে থাকল এটি। ’

টুর্নামেন্টের শুরুতে যেমনটা বলা হচ্ছিল বিগ ফোরের প্রভাব থাকবে, ওয়ারিঙ্কার হারের বিপরীতে অ্যান্ডি মারে ও রাফায়েল নাদালের অনায়াস জয় সেটিই স্পষ্ট করেছে। নাদাল ক্যারিয়ারের ৮৫০তম জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়ার জন মিলম্যানের বিপক্ষে। দ্বিতীয় রাউন্ডে তাঁর প্রতিপক্ষ আমেরিকান ডোনাল্ড ইয়াং। মেয়েদের কোর্টে দুইবারের চ্যাম্পিয়ন পেত্রা কেভিতোভা ৬-৩ ও ৬-৪ গেমে প্রথম রাউন্ড জিতেছেন সুইডিশ ইয়োহানা লারসনের বিপক্ষে। সাবেক নাম্বার ওয়ান ভিক্তোরিয়া আজারেঙ্কা ৩-৬, ৬-২ ও ৬-১ গেমে সিসি বেলিসকে ও ফ্রেঞ্চ ওপেন চ্যাম্পিয়ন ইয়েলেনা ওস্তাপেঙ্কো ৬-০, ১-৬ ও ৬-৩ গেমে হারিয়েছেন বেলারুশের আলিয়াক্সান্দ্রা সাসনোভিচকে। দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠেছেন ভেনাস উইলিয়াসও। ৭-৬ (৯/৭) ও ৬-৪ গেমে বেলজিয়ামের এলিস মের্তেনসকে হারিয়েছেন ৩৭ বছর বয়সী তারকা। এরপর সংবাদ সম্মেলনে উচ্ছ্বাসের বদলে তাঁকে কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখেছেন সবাই। এই আসরে খেলাই তো অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল তাঁর। গত মাসেই তাঁর গাড়ি দুর্ঘটনায় ৭৮ বছর বয়সী এক বৃদ্ধা মারা যান ফ্লোরিডায়। এখনো পর্যন্ত এটি অবশ্য অভিযোগই। জানা গেছে, নিহতের পরিবার থেকে ভেনাসের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। পরশু ম্যাচ শেষে সংবাদমাধ্যম কর্মীরা সেই প্রসঙ্গটা তুলে আনতেই অনেকটা বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন, ‘সত্যি বলার মতো নয় তা, কী ভয়াবহ... আমি কী বলতে পারি!’ কোনো রকমে এটুকু বলেই কান্নায় ভেঙে পড়েন অল ইংল্যান্ড ক্লাবের পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন।

 

এইবেলাডটকম/প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71