বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
বুধবার, ৮ই ফাল্গুন ১৪২৫
 
 
ফাতেমার শেকল খুলবে কি
প্রকাশ: ০৮:৫৮ am ০২-০৭-২০১৭ হালনাগাদ: ০৮:৫৮ am ০২-০৭-২০১৭
 
 
 


কিশোরগঞ্জ::  নিজগৃহে শেকলবন্দি অবস্থায়ই কৈশোর পার করে যৌবনে পা পড়েছে ফাতেমার। মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছেন বলে ২০১২ সালের দিকে অভিভাবকরা এসএসসি পরীক্ষার্থী ফাতেমার পায়ে লোহার শেকল পরায়। তারপর থেকেই ঘরের একটি অন্ধকার কোঠায় শেকলবন্দি অবস্থায় কাটে তার দিনরাত।

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার জিনারি ইউনিয়নের চর কাঠিহারী গ্রামের মহিবুর রহমান সর্দারের মেয়ে ফাতেমা খাতুনের এ নিষ্ঠুর পরিণতির ঘটনা এক সহপাঠী ছবিসহ পোস্ট করলে ফেসবুকে ভাইরাল হয়। খোঁজ নেয় পুলিশ প্রশাসন। কিন্তু, কোনো ফল হয়নি। মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ায় শেকলবন্দি করার খোঁড়া যুক্তি মেনে নেয় পুলিশ।

তবে কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. হাবিবুর রহমান বলছেন, এ ধরনের অজুহাতে ঘরে শেকলবন্দি করে রাখা শুধু অমানবিক ও নিষ্ঠুর বললে কম বলা হবে, এটা অন্যায় ও অপরাধও বটে। তাকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শে সরকারি মানসিক হাসপাতালে ভর্তি করা যেতে পারে।

ফাতেমাকে পায়ে লোহার শেকল লাগানো অবস্থায় বসে থাকতে দেখা যায়। এ সময় জিজ্ঞেস করা হলে খুবই স্বভাবিকভাবে তার নাম ফাতেমা আক্তার বলে জানায়। তোমাকে শেকলবন্দি করে রাখা হয়েছে কেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে বলে, জানি না।

ফাতেমার আচার-আচরণে কোনো অসঙ্গতি না পাওয়া গেলেও বাবা মহিবুর রহমান সর্দার বলেন ভিন্ন কথা। তিনি জানান, ২০১১ সালে স্থানীয় হুগলাকান্দি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বাণিজ্য বিভাগে ফাতেমার এসএসসি পরীক্ষা দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু, টেস্ট পরীক্ষায় দু’বিষয়ে ক্রস থাকায় সে পরীক্ষার সুযোগ বঞ্চিত হয়ে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে।

এ ব্যাপারে হোসেনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (চলতি দায়িত্ব) মো. মাহফুজুল হক জানান, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যের মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন মানসিক সমস্যার কারণে তাকে শেকলবন্দি করে রাখা হয়েছে। এজন্য কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।

 

এইবেলাডটকম/প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71