বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮
বুধবার, ৪ঠা আশ্বিন ১৪২৫
 
 
ফারাও রাজাদের অদ্ভুত খেয়াল!
প্রকাশ: ০৯:৩৮ pm ২৮-০৩-২০১৭ হালনাগাদ: ০৯:৩৮ pm ২৮-০৩-২০১৭
 
 
 


মিশর নামটার শুনলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে ধুধু সোনালী বালির মরুভূমির মধ্যে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে থাকা পিরমিড, ফারাও রাজাদের মুর্তি, সেই সাথে অদ্ভুত অদ্ভুত সব চিত্র কর্ম, বর্ণমালা।

মিশরের ফারাও রাজাদের নিয়ে অনেক অনেক কথা প্রচলিত আছে। তাদের অত্যাচারের কথা, বীরত্বের কথা এমনকি প্রচলিত আছে তাদের অদ্ভুত অদ্ভুত খেয়ালের কথা। সেই সব নিয়েই বাংলা ইনসাইডারের এই আয়োজন। 

মৃত্যুকে কে না ভয় পায়। কিন্তু সেই মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচতে দিন আর রাতের সময়কে থামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা! হ্যাঁ, এমনটাই চেষ্টা করেছিলেন প্রাচীন মিশরের রাজা মেনকৌর। ২৫৩০ খ্রিস্টপূর্বে প্রাচীন মিশরের রাজা ছিলেন তিনি।

কি করে ছিলেন এই রাজা মৃত্যুকে ঠেকাতে তা শুনলে যতটা না অবাক হবেন তার থেকে হাসিই পাবে বেশি।

এক পুরোহিত এসে তাকে জানিয়েছিলো রাজা সর্বসাকুল্যে আর ছয় বছরের মতো বাঁচবেন। এ কথা শুনে মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছিল মেন্‌কৌরের। আর তাই মৃত্যুকে যেভাবে হোক এড়াতে নানা রকম পথ ভাবতে লাগলেন তিনি। আর তখনই রাজার মাথায় চিন্তা এল, যদি রাত শেষ না হয়, তাহলে নতুন দিন কখনো শুরু হবে না। যদি নতুন দিন শুরু না হয়, তাহলে সময়ও থমকে যাবে। আর একবার যদি সময় কে থমকে দেওয়া যায় তাহলে তার মৃত্যুও আটকে যাবে, আর তিনি বেঁচেই থাকবেন।

যেমন ভাবা তেমন কাজ। রাত মানে অন্ধকার আর দিন মানে আলো। আর তাই, রাত আর দিন কে থমকে দিতে রাতের বেলায় তিনি যত পারতেন আলো জ্বালিয়ে রাখতেন।এতে করে রাতকে দিন মনে হবে। এমনকি, রাতে সচরাচর ঘুমাতেনও না এই অদ্ভুত খেয়ালি রাজা। পান করে আর হৈ-হুল্লোড়ের মধ্য দিয়েই কাটিয়ে দিতেন প্রতিটি রাত। এভাবেই দিন আর রাত কে থামিয়ে দিতে চেয়েছিলেন মেনকৌর।

এইবেলাডটকম/এএস

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71