শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯
শুক্রবার, ৪ঠা শ্রাবণ ১৪২৬
 
 
বকেয়া শোধের শর্তে আরো ২মাস পেলো সিটিসেল
প্রকাশ: ০২:১৩ pm ২৯-০৮-২০১৬ হালনাগাদ: ০২:২৮ pm ২৯-০৮-২০১৬
 
 
 


ঢাকা : সরকারের পৌনে পাঁচশ কোটি টাকার বকেয়া শোধ করার জন‌্য হাইকোর্টের কাছ থেকে আরো দুই মাস সময় পেয়েছে বাংলাদেশের সবচেয়ে পুরনো মোবাইল ফোন অপারেটর সিটিসেল।

এর মধ্যে প্রথম মাসে তিন ভাগের দুই ভাগ ও দ্বিতীয় মাসে বাকি টাকা দিতে হবে।আদালতের এই নির্দেশনার মাধ্যমে টাকা পরিশোধ সাপেক্ষে কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারবে বাংলাদেশের একমাত্র এই সিডিএমএ অপারেটর।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির করা এক আবেদনের নিষ্পত্তি করে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের সদস্যের বেঞ্চ সোমবার (২৯আগস্ট) এই আদেশ দেয়।

বার বার তাগাদা দেওয়ার পরও বকেয়া শোধ করতে না পারায় সিটিসেলের তরঙ্গ কেন বাতিল করা হবে না- তা জানতে চেয়ে গত ১৭ অগাস্ট সিটিসেলকে নোটিস দিয়েছিল বিটিআরসি।

জবাব দেওয়ার জন্য এক মাস সময় দেওয়া হয়েছিল নোটিসে। সিটিসেলের এক আবেদনে ওই সময় পর্যন্ত সিটিসেলকে কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার সুযোগ দিতে বলেছিল হাইকোর্ট।

বিটিআরসি হাই কোর্টের ওই নির্দেশনার বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে যাওয়ায় তার নিষ্পত্তি করে দিয়ে সর্বোচ্চ আদালতের এই নতুন নির্দেশনা এল।

আদালতে সিটিসেলের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ, বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ও খন্দকার রেজা-ই-রাকিব।

“১৭ অগাস্টের আগ পর্যন্ত সিটিসেলের কাছে বিটিআরসির পাওনা রয়েছে ৪৭৭ কোটি টাকা।এর দুই তৃতীয়াংশ এখন থেকে এক মাসের মধ্যে,আর এক তৃতীয়াংশ পরবর্তী এক মাসে পরিশোধ করতে হবে।”

তাছাড়া ১৭ অগাস্টের পর থেকে প্রতিদিন বিটিআরসি আরও ১৮ লাখ টাকা করে পাওনা হচ্ছে। প্রতিদিনের এই টাকা অবিলম্বে পরিশোধের নির্দেশ দিয়ে আদালত বলেছে, টাকা না পেলে বিটিআরসি যে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারবে।

জানা যায়,১৯৮৯ সালে বিটিআরসি থেকে টেলিযোগাযোগ সেবার লাইসেন্স পায় সিটিসেল বা প্যাসিফিক বাংলাদেশ টেলিকম লিমিটেড।

বর্তমানে এই কোম্পানির ৩৭ দশমিক ৯৫ শতাংশ শেয়ারের মালিক বিএনপি নেতা ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম মোরশেদ খানের মালিকানাধীন প্যাসিফিক মোটরস।

৪৫ শতাংশ শেয়ারের মালিকানা রয়েছে সিঙ্গাপুরভিত্তিক সিংটেল এশিয়া প্যাসেফিক ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের হাতে।এছাড়া ফার ইস্ট টেলিকম লিমিটেড ১৭ দশমিক ৫১ শতাংশ শেয়ারের মালিক।

গত ৫ বছরে সিটিসেল ১০ লাখের বেশী গ্রাহক হারিয়েছে।২০১০ সালের শেষের দিকে সিটিসেলের গ্রাহক সংখ্যা ছিল প্রায় ২৩ লাখ। কমতে কমতে তা গত জুন মাসে ৭ লাখে দাঁড়ায়।

বিটিআরসির হিসাবে জুন শেষ নাগাদ গ্রাহকের হাতে থাকা মোট মোবাইল সিমের সংখ্যা ১৩ কোটি ১৩ হাজারের বেশি। সে হিসেবে বাংলাদেশের মোট মোবাইল ফোন গ্রাহকের এক শতাংশেরও কম সিটিসেলের।

এইবেলাডটকম/এফএআর

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71