বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারি ২০১৯
বৃহঃস্পতিবার, ৪ঠা মাঘ ১৪২৫
 
 
বরেন্দ্রের ঘরে  সোনার ফসল
প্রকাশ: ১০:৪৬ am ২১-০৪-২০১৬ হালনাগাদ: ১০:৪৬ am ২১-০৪-২০১৬
 
 
 


রাজশাহী প্রতিনিধি : সোনালী রঙে ভরে উঠেছে বরেন্দ্র অঞ্চলের মাঠ। গ্রামে গ্রামে বোরো কাটা ও ধান মাড়াই শুরু হয়েছে। সোনার ফসল ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছে প্রান্তিক কৃষকরা।

দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা শ্রমিকরা বরেন্দ্রের মাঠগুলোতে ব্যস্ত সময় পার করছে। চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় মাঠে ধানের ফলন ভালো হয়েছে। তবে ধান কাটা-মাড়াইয়ে দেখা দিয়েছে শ্রমিক সংকট। শ্রমিক নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় রয়েছে কৃষকরা।

নিয়ামতপুরের কৃষক বছির উদ্দিন বলেন, ক্ষেতে ধান পেকে যাচ্ছে। কিন্তু শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। বেশি মজুরি দিয়েছে শ্রমিকের সন্ধ্যান মেলাতে না পেয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছে তিনি।রাজশাহী কৃষি সম্প্রাসরন অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ি, জেলায় এবার ৬৬ হাজার ৫০০ হেক্টর বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিলো। তবে, মাঠে তা ছাড়িয়ে ৭২ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে বোরো চাষ হচ্ছে। আর রাজশাহী অঞ্চলে রাজশাহী, নাটোর, নওগাঁ, ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ বোরো চাষাবাদ হয়েছে ২ লাখ ৫০ হাজার হেক্টরের বেশি জমি থেকে।

রাজশাহী গোদাগাড়ী উপাজেলার কাঁকনহাট পৌর এলাকায় পাঁচগাছা গ্রামে কৃষক নওয়াজ আলী জানান, তিনি এবার ৫ বিঘা পানিতে বোরো চাষ করেছিলেন। এর মধ্যে গত দুই দিন আগে তার বোরো ধান কাটা-মাড়াই শেষ হয়েছে। এতে তার প্রতি বিঘায় ২৬ মন করে ধান হয়েছে। অন্য বছরের চেয়ে এবার ফলন ভাল হয়েছে বলে খুশি তিনি।তানোর উপজেলার মুণ্ডুমালা গ্রামের কৃষক তুহিন সরদার জানান, তিনি ১২ বিঘা জমিতে বোরো চাষাবাদ করেছেন। ৫ বিঘা মাড়াই শেষে তিনি গোলায় ১৩০ মন ধান তুলেছেন। অবশিষ্টগুলো কয়েকদিনের মধ্যে ঘরে উঠে আসবে।তিনি আরো জানান, গত কয়েক বছরের মধ্যে এবার ফলন ভাল হয়েছে। বাজার কাঁচা অবস্থায় প্রতি মণ বিক্রি হচ্ছে ৭০০ থেকে ৭২০ টাকায়। ওই দামে তিনি উঠান থেকেই ১০ মণ ধান তিনি বিক্রি করেছেন। চলতি মৌসুমে বোরো চাষ করে রাজশাহী, নওগাঁ, চাঁপাইনবাবাগঞ্জ ও নাটোরের বিভিন্ন অঞ্চলের কৃষকের বোরো চাষকরে এবার ফলন ও দাম ভাল পাওয়ায় কথা জানিয়েছে।

প্রান্তিক কৃষকদের কয়েকজন জানান, বরেন্দ্রের কৃষকেরা বি-২৮ ও জিরাশাইল জাতের ধান উৎপাদন করেছে। এই দুই জাতের ধান চিকন তাই বাজারে এর কদরটা একটু বেশী। উঠতি মৌসুমে ধানের দাম ভালো থাকলেও কৃষকের মনে বিগত আমন মৌসুমে শঙ্কা এখনো আছে। আমনে ধানের দাম না পেয়ে কৃষকদের লোকসান গুনতে হয়েছে। সেই লোকসান মাথায় নিয়ে কৃষকেরা বোরো আবাদে নেমেছিল। ধানের দাম কমে গেলে আমন মৌসুমের মতো আবার লোকশানে পড়তে হবে কৃষকদের।

বৃহস্পতিবার রাজশাহীর কাঁকনহাট-তানোরের কালিগঞ্জ গোদাগাড়ির ও মুণ্ডুমালা হাটে গিয়ে নতুন বোরো ধান কৃষকদের বিক্রি করতে দেখা গেছে। বি-২৮ ও জিরাসাইল জাতের ধান প্রতি মণ ৪০ কেজি বিক্রিহচ্ছে ৭০০ থেকে ৭২০ টাকা পর্যন্ত।

রাজশাহী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ উপ-পরিচালক দেব দুলাল ঢালী এইবেলা ডটকমকে জানান জানান, এবার বোরোতে সময়মত সেচ সুবিধাসহ আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় প্রতিটি কৃষকের ক্ষেতের ফলন ভালো হয়েছে। শেষ পর্যন্ত দাম ঠিক থাকলে ধান বিক্রি করে লোকসান গুণতে হবেনা কৃষকদের।

এইবেলা ডটকম/অরুন/এএস

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71