শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
শনিবার, ৭ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
বান্ধবীর দেয়া আগুনে পুড়ে মরলেন রেখা
প্রকাশ: ১০:৪২ pm ১১-০৯-২০১৭ হালনাগাদ: ১০:৪২ pm ১১-০৯-২০১৭
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


স্বামীর পরকীয়া প্রেমের বলি হতে হলো স্ত্রী রেখা বেগমকে। স্বামীর প্রেমিকা ও নিজের বান্ধবীর দেয়া আগুনে পুড়ে রাজশাহীর গৃহবধূ রেখা বেগম অবশেষে মারা গেলেন। সোমবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এর আগে রবিবার দুপুর থেকেই তার অবস্থার অবনতি হয়। শ্বাস-প্রশ্বাসের কষ্ট বেড়ে যাওয়ায় ওই দিন বিকাল থেকে তাকে অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়েছিল।

তবে সোমবার দুপুরে বার্ন ইউনিটে গিয়ে দেখা যায়, রেখা নিজেই তার নাকে লাগানো অক্সিজেনের পাইপ খুলে ফেলছিলেন। তার শ্বাস ছিল তখন ঊর্ধ্বমুখী। অস্পষ্ট স্বরে রেখা ওই সময় একটি ব্যথার ইনজেকশন প্রয়োগের জন্য তার স্বজনদের বলছিলেন।

রামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের ইনচার্জ ডা. আফরোজা নাজনীন জানান, পেট্রোল ঢেলে আগুন দেয়ায় রেখা বেগমের ৮০ শতাংশ শরীর দগ্ধ হয়ে গিয়েছিল। এছাড়া তার ডায়াবেটিক ও উচ্চ রক্তচাপ ছিল। এ কারণে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। অনেক চেষ্টা করেও তাকে বাঁচানো গেল না। পাঁচ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে পরাজিত হলেন তিনি।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে রাজশাহী মহানগরীর দরগাপাড়া এলাকায় রেখার শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পালিয়ে যান এক নারী। এরপর রেখাকে হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয়রা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রেখা এই ঘটনার জন্য বাল্যকালের বান্ধবী ফেরদৌসি খাতুনকে দায়ী করে তার নাম বলেন।

রেখার অভিযোগের ভিত্তিতে ওই রাতেই অভিযান চালিয়ে বোয়ালিয়া থানা পুলিশ ফেরদৌসি খাতুনকে আটক করে। তিনি নগরীর কশাইপাড়া এলাকার আলম হোসেনের মেয়ে। ফেরদৌসি তার বাল্যকালের বান্ধবী। এরই সুবাদে তার স্বামী কামরুল হুদার সঙ্গে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েন ফেরদৌসি। মৃত্যুর আগে দুই সন্তানের মা রেখা বেগম পুলিশকে এমন কথায় বলেছেন।

এদিকে আগুন দেয়ার ঘটনায় রেখা বেগমের বড় ভাই নওশাদ আলী ওই রাতেই স্বামী কামরুল হুদা ও বান্ধবী ফেরদৌসীকে আসামি করে মামলা করেন।

পরদিন রেখাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। ওই দিন আদালতে তার পাঁচ দিনের রিমান্ডেরও আবেদন করা হয়। পরে গত শনিবার রেখার স্বামী কামরুল হুদা গ্রেপ্তার হন। তিনি এখন কারাগারে। কামরুলের রিমান্ডের আবেদন করেনি পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নগরীর বোয়ালিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সেলিম বাদশা জানান, সোমবার আদালত ফেরদৌসীর একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। তাকে থানায় এনে এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

এদিকে রেখার শরীরে আগুন দেয়ার ঘটনায় দায়ের করা হত্যাচেষ্টার মামলাটি এখন হত্যা মামলায় রূপান্তর হবে বলেও জানান তিনি।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71