শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯
শুক্রবার, ১৩ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
বিক্রি হয়ে গেল কিশোর কুমারের বাংলো ‘গৌরি কুঞ্জ’
প্রকাশ: ১১:৪৪ am ২২-০৫-২০১৮ হালনাগাদ: ১১:৪৪ am ২২-০৫-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


মধ্যপ্রদেশের খান্ডোয়া৷ আর সেই শহরের বুকে মাথা তুলে দাঁড়িয়ে ‘গৌরি কুঞ্জ’৷ এই বাংলোর গায়ে এখন বাসা বেঁধেছে নানা ধরনের পাখি৷ খসে পড়ছে পলেস্তারা৷ এখানে সেখানে বাংলোর দেওয়ালে গায়ে গজিয়ে উঠেছে নাম না জানা গাছ-গাছালি৷ গোটা বাংলো জুড়ে ভগ্নদশার ছাপ স্পষ্ট৷ বাংলোর প্রতিটা ইট-চুন-সুরকির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জডিয়ে সঙ্গীত আর অভিনয়ের তালিম 

এই ‘গৌরি কুঞ্জ’-এই ১৯২৯ সালে জন্ম নেন কিংবদন্তি সঙ্গীত শিল্পী কিশোর কুমার৷ তাঁর বাবা কুঞ্জলাল গঙ্গোপাধ্যায় ছিলেন একজন আইনজীবী। মায়ের নাম গৌরি দেবী। চার ভাই বোনের মধ্যে কিশোর ছিলেন সর্বকনিষ্ঠ।

শুধু কিশোর কুমার নন, তাঁর বড় দাদা তথা প্রয়াত অপর কিংবদন্তি নায়ক অশোক কুমারের শৈশব কেটেছে খাণ্ডোয়ার-এই বাংলোয়। বলিউডের সফল অভিনেতা ছিলেন তিনি। পরিচিত ছিলেন দাদামনি নামেই। এছাড়া এ বাড়িতেই শৈশব কেটেছে কিশোর কুমারের আরেক দাদা অভিনেতা অনুপ কুমারেরও। বিক্রি হয়ে গেল কিংবদন্তি শিল্পীদের স্মৃতি বিজড়িত সেই বাংলো৷

এর আগে স্থানীয় পৌরসভা ভেঙে ফেলার নোটিশ দিয়েছিল। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক ওঠায় পরে বাড়িটি সংরক্ষণ করা হবে বলে জানানো হয়। অবশেষে বিক্রি হয়ে গেল কিশোর কুমারের সেই পৈতৃক ভিটে ৷ জানা গিছে, ৭,২০০ বর্গ ফুট এলাকা জুড়ে রয়েছে এই বাংলো৷ যা ২০ হাজার টাকা প্রতি বর্গ ফুটের হিসাবে বিক্রি হয়েছে৷ আর এই খবর সামনে আসতেই বিক্ষোভ শুরু করেছেন এই বিখ্যাত সঙ্গীতশিল্পীর ভক্তরা৷ তাঁরা সোমবার সকাল থেকেই ‘গৌরী কুঞ্জ’-এর সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছেন৷ তাঁরা মধ্যপ্রদেশ সরকারের কাছে দাবি করেছেন, যাতে এই বাংলোটিকে সংরক্ষণ করে মিউজিয়ামে রূপান্তর করা হয় ৷ 

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71