বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
বুধবার, ১১ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
বিজয়কে পিটিয়ে হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন
প্রকাশ: ০৭:৩৩ pm ০৬-০৫-২০১৮ হালনাগাদ: ০৭:৩৩ pm ০৬-০৫-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


গোয়ালন্দে আদিবাসী বিন্দু সম্প্রদায়ের আরাধন বিজয় (১৩) নামের এক কিশোরকে ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে দুই দফা পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সে গোয়ালন্দ পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের ক্ষুদিরাম সরকার পাড়া (বিন্দু পাড়া) মহল্লার লক্ষণ বিশ্বাসের একমাত্র ছেলে।

শুক্রবার সকালে পুলিশ বিজয়ের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ীর মর্গে পাঠায়। এদিকে কিশোর বিজয় খুনের বিচার দাবিতে স্থানীয়রা ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোয়ালন্দ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এক ঘন্টা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে। এসময় তারা এ হত্যাকান্ডের কঠিন বিচার দাবি করেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানায়, আদিবাসী অত্যন্ত দরিদ্র পরিবারের ছেলে বিজয়। তার মৎস্যজীবি বাবা অসুস্থ্য থাকায় কাজ করতে পারে না। একটি সেলুনে কাজ করে যা রোজগার হয় তা দিয়ে কোন মতে খেয়ে-না-খেয়ে চলে তাদের পরিবার। বুধবার বিকেলে কাজের ফাঁকে বিজয় স্থানীয় ক্রিকেট মাঠে ক্রিকেট খেলতে যায়। ব্যাট করার সময় বিজয়ের ব্যাটের আঘাতে বল ফেঁটে যায়। এতে স্থানীয় নারায়ন রাহার ছেলে কাব্য রাহা বিজয়কে ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে মারতে যায়। এসময় বিজয় তাকে বলে সে একটি বল কিনে দেবে। তারপরও কাব্য বিজয়কে ব্যাট দিয়ে মারধর করে। এরপর সন্ধ্যার দিকে বিজয় পদ্মার মোড় এলাকায় গেলে কাব্য ও তার চাচাতো ভাই তীর্থ বিজয়কে বল কিনে দিতে বলে। এসময় বিজয় বল ফাঁটানোর জন্য তাকে মারপিট করায় বল কিনে দিতে আপত্তি জানায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কাব্য তার হাতে থাকা ব্যাট দিয়ে ফের এলোপাথারী পিটিয়ে আহত করে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা বিজয়কে উদ্ধার করে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে দ্রুত ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে। সেখানে একদিন চিকিৎসার পর বিজয়ের অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাকে ঢাকা মেডিকেলে স্থানান্তর করেন চিকিৎসক। সেখানে নেয়ার পথে রাত ৯টার দিকে বিজয়ের মৃত্যু হয়।

বিচার দাবীতে মানববন্ধনে বিজয়ের মা রায়দাসী বিশ্বাস আহাজারি করে বলেন, ছয় মেয়ের পর ঈশ্বর আমার ঘরে বিজয়রে দেয়। অভাবের কারণে লেখা-পড়া করাইতে পারি নাই। ওর বাবা অসুস্থ্য তাই কাজ করতে পারে না। ও বাধ্য হয়ে সেলুনে কাজ নেয়। যা রোজগার করে তা দিয়ে খেয়ে না খেয়ে চলতাম। আমার সেই সোনা মানিকরে ওরা খুন করল। আমি আর কিছু চাই না, শুধু এই খুনের বিচার চাই।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি (তদন্ত) মো. সহিদুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে নিহত বিজয়ের মা রায়দাসী বিশ্বাস বাদি হয়ে কাব্য রাহা ও তীর্থ রাহার নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত ৩/৪ জনকে আসামী করে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা করেছেন। আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করতে পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71