রবিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
রবিবার, ১২ই ফাল্গুন ১৪২৫
সর্বশেষ
 
 
বিপ্লবী শহীদ সত্যেন্দ্রনাথ বসুর ১০৮তম মৃতূবার্ষিকী আজ
প্রকাশ: ০২:২৮ pm ২২-১১-২০১৬ হালনাগাদ: ০২:২৮ pm ২২-১১-২০১৬
 
 
 


প্রতাপ চন্দ্র সাহা ||

স্বাধীনতা সংগ্রামী এবং বীর বিপ্লবী শহীদ সত্যেন্দ্রনাথ বসু (জন্মঃ- ৩০ জুলাই, ১৮৮২ - মৃত্যুঃ- ২২ নভেম্বর, ১৯০৮) ১৯০৮ সালের ২২ নভেম্বর বিপ্লবী সত্যেন্দ্রনাথ বসু দেশের স্বাধীনতার জন্য ফাঁসির মঞ্চে শহীদ হয়েছিলেন।

তিনি রাজনারায়ণ বসু, জ্ঞানেন্দ্রনাথ বসু, হেমচন্দ্র কানুনগো প্রমুখের সংস্পর্শে এসে বিপ্লবী কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পরেন। 
বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর মেদিনীপুর কলেজিয়েট স্কুলে পড়ার সময় এক বন্ধুর মাধ্যমে পরিচয় হয় বিপ্লবী সত্যেন্দ্রনাথ বসুর সঙ্গে। সত্যেন্দ্রনাথ তাকে সে যুগের ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী সশস্ত্র সংগঠন ‘যুগান্তর’ দলের সদস্য করে নেন। এই দল সুসংগঠিত করার লক্ষ্যে সত্যেন্দ্রনাথ এক তাঁতশালা স্থাপন করেছিলেন। তাঁতশালার আড়ালে তিনি তাঁর শিষ্যদের লাঠিখেলা, অসি চালনা, বোমা ফাটানো, পিস্তল, বন্দুক ছোড়া ইত্যাদি শিক্ষা দিতেন।
অচিরেই এই তাঁতশালার দক্ষ সদস্য হয়ে উঠেছিলেন ক্ষুদিরাম। তখনই বোনের বাড়ির সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক ছিন্ন হয়ে যায় চিরদিনের জন্য। ১৯০৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে মেদিনীপুরের মারাঠা কেল্লায় এক শিল্প প্রদর্শনী হয়। সেখানে সেই যুগের বিখ্যাত রাজদ্রোহমূলক পত্রিকা সোনার বাংলা বিলি করার দায়ে পুলিশ ক্ষুদিরামকে ধরতে গেলে তিনি পুলিশকে আঘাত করে পালিয়ে যান।

বিপ্লবী সত্যেন্দ্রনাথ বসু জন্মগ্রহণ করেছিলেন মেদিনীপুরে। তাঁর পিতা ছিলেন অভয়চরণ বসু। তাদের পৈত্রিক নিবাস ছিল বোড়াল। তাঁর জ্যেষ্ঠতাত ছিলেন রাজনারায়ণ বসু এবং অগ্রজ ছিলেন জ্ঞানেন্দ্রনাথ বসু। তিনি এন্ট্রান্স পাশ করেন মেদিনীপুর কলেজিয়েট স্কুল থেকে (১৮৯৭) এবং এফ এ পাশ করেন মেদিনীপুর কলেজ থেকে(১৮৯৯)। 
বি এ পড়ার জন্য কলকাতা সিটি কলেজে ভর্তি হয়েছিলেন কিন্তু ভগ্ন স্বাস্থ্যের কারণে পরীক্ষা দিতে পারেননি।

আলিপুর বোমা মামলায় গ্রেফতার হন। বিচার চলাকালে নরেন গোঁসাই রাজসাক্ষী হয়। বিশ্বাসঘাতক নরেনকে হত্যার অপরাধে ১৯০৮ সালের ২২ নভেম্বর তাঁকে ফাঁসি দেয় ব্রিটিশ সরকার। একই অপরাধে বিপ্লবী কানাইলালকেও ফাঁসি দেয় ব্রিটিশ সরকার।
বিশ্বাসযোগ্য চিত্র পেলাম না। দুঃখিত।

 

এইবেলাডটকম/প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71