বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
বৃহঃস্পতিবার, ৯ই ফাল্গুন ১৪২৫
 
 
বিপ্লব দেবের চাঁদপুরের বাড়িতে আনন্দের বন্যা
প্রকাশ: ১০:৫৮ am ০৬-০৩-২০১৮ হালনাগাদ: ১০:৫৮ am ০৬-০৩-২০১৮
 
চাঁদপুর প্রতিনিধি
 
 
 
 


ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেন চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার কৃতী সন্তান বিপ্লব কুমার দেব। ত্রিপুরা রাজ্যে বিজেপির বিশাল জয়ের পর বিপ্লব দেবকে ত্রিপুরা রাজ্যের সম্ভাব্য মুখ্যমন্ত্রী। 

এরপর থেকেই তার পিতৃভূমি চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার সহদেবপুর পূর্ব ইউনিয়নের মেঘদাইর গ্রামের দেব বাড়িতে (মাস্টার বাড়ি) ভিড় করতে থাকেন উৎসুক জনতা। আত্মীয়-স্বজন ও অনুরাগীরা করেছেন মিষ্টি বিতরণ। 

গতকাল রোববার ও সোমবার বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরাও ওই বাড়িতে গেছেন সংবাদ সংগ্রহ করতে। আর এ নিয়েই এখন ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন তার চাচা প্রাণধন দেবসহ আত্মীয়-স্বজনরা।

বিপ্লব কুমার দেবের চাচা চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি ও উপজেলা কৃষকলীগের সেক্রেটারি প্রাণধন দেব জানান, তিনি (বিপ্লব) এখন ব্যস্ত রয়েছেন। বাংলাদেশ থেকে কারো ফোন কল রিসিভ করতে পারছেন না। তার পিএস আমাকে বলেছেন, ৮ তারিখের পর আমাদের সাথে বিপ্লবের কথা হতে পারে।

প্রাণধন দেব বলেন, বিপ্লব ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন-এমন খবর প্রকাশ হওয়ার পর থেকে বাড়িতে বিভিন্ন স্থান থেকে লোকজন আসছেন। আমাদের সাথে কথা-বার্তা বলছেন। যারা আসছেন, তাদের আপ্যায়নের যথাসাধ্য চেষ্টাও আমরা করছি। সবমিলে আমরা এখন খুবই আনন্দিত। বিপ্লব মুখ্যমন্ত্রী হলে আমাদের পরিবার ছাড়াও সারাদেশেরই এটি গর্ব।

প্রাণধনের প্রতিবেশি অনিল বলেন, বিপ্লব কুমারকে দেখিনি। তবে তিনি আমাদের প্রতিবেশি বাড়ির সন্তান হওয়ায় আমরা খুবই আনন্দিত। আমাদের এই ছেলে মুখ্যমন্ত্রী হয়ে আসবেন-এটা আমাদের কাছে ভালো লাগবে।

প্রাণধন দেব জানান, বিপ্লব দেব তিন বোনের একমাত্র ভাই। তার বাবা কচুয়া উপজেলার সহদেবপুর পূর্ব ইউনিয়নের মেঘদাইর গ্রামের স্বর্গীয় হিরুধন দেব। মায়ের নাম মিনা রানী দেব। তবে ত্রিপুরার মাটিতেই জন্মগ্রহণ করেন বিপ্লব দেব। 

তিনি জানান, মুক্তিযুদ্ধের সময় তার পিতা-মাতা ত্রিপুরা চলে যায়। এরপর সেখানকার স্থায়ী বাসিন্দা হয়ে যান তারা। তবে তার আত্মীয়স্বজন অনেকেই এখনো কচুয়া বসবাস করেন।

প্রাণধন বলেন, আমার ভাতিজা আজকে ভারতের একটা অঙ্গরাজ্যের সর্বোচ্চ পদে যাচ্ছে। আমরা সবার কাছে আর্শির্বাদ প্রার্থী। সে অল্প বয়সেই যে স্থানে পৌঁছেছে, সে যেন তার এই সম্মান ধরে রাখতে পারে। 

এর আড়ে ২৮ ফেব্রুয়ারি ত্রিপুরা রাজ্যের বিধান সভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বিপ্লব কুমার দেবের নেতৃত্বে বেজিপি ৬০টি আসনের মধ্যে ৪৩টি আসন পায়। বিপ্লব কুমার দেব নিজেও একটি আসনে বিশাল ব্যবধানে জয়লাভ করেন। একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে বিজেপি। 

বিপ্লব দেব ত্রিপুরা রাজ্য বিজেপির দায়িত্ব পান ২০১৬ সালে ৭ জানুয়ারি। বিপ্লব দেব আরএসএসের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। এই সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ততার কারণে বিপ্লব দেব ১৫ বছর দিল্লিতে ছিলেন। সেখানে তিনি একটি ব্যায়ামাগারের প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করতেন। এবার ত্রিপুরার বনমালিপুর আসন থেকে লড়েছেন বিপ্লব। 

ত্রিপুরা রাজ্য বিজেপির সভাপতি বিপ্লব দেব ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারে থাকা দলটির সবচেয়ে কম বয়সী রাজ্য সভাপতি। এই যুবনেতা মাত্র দুই বছরের মাথায় ২৫ বছরের বাম শাসনের পতন ঘটিয়ে লাল থেকে গেরুয়া রঙে রাঙিয়ে দিলেন ত্রিপুরাকে। 

বিপ্লবের স্ত্রী নীতি দেব পাঞ্জাবের মেয়ে। বিপ্লব সম্পর্কে তিনি বলেন, আমি সব সময় বিপ্লবকে নির্বাচনে সাহায্য করেছি। ছেলে দশম শ্রেণিতে পড়ায় ত্রিপুরায় আসতে পারিনি। তবে দল জেতায় এবার পাকাপাকি ত্রিপুরায় এসে থাকতে চান বলে জানান নীতি।

বিপ্লব দেব গতবছর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কাউন্সিলে বিজেপির প্রতিনিধি দলের প্রধান হয়ে যোগদান করেন। সম্মেলন শেষে তিনি তার গ্রামের বাড়ি কচুয়ায় গিয়েছিলেন।

প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71