মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ৬ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
বিবাহিতরা আধ্যাত্মিক জীবনধারনে অক্ষম: মহন্ত নরেন্দ্র গিরি
প্রকাশ: ০৫:০৫ pm ১৮-০৬-২০১৮ হালনাগাদ: ০৫:০৫ pm ১৮-০৬-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


অখিল ভারতীয় আখাড়া পরিষদ বা এবিএপি এবার থেকে আর কোনও বিবাহিত পুরুষকে সাধু অ্যাখা দেবে না। ‘‌গৃহস্থ সাধু’‌ বা সংসারে থেকেও সন্ন্যাসী জীবন মেনে চলার তীব্র বিরোধিতা করে এবিএপি। এবিএপি তাদের ১৩টি ‘‌আখারা’‌কে এই নির্দেশ পালন করার জন্য কড়া আদেশ দিয়েছে। 

১২ জুন স্ব–ঘোষিত ধর্মগুরু ভাইয়ু মহারাজের আত্মহত্যার ঘটনা সামনে আসার পরই এই সিদ্ধান্ত নেয় এবিএপি। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, পারিবারিক সমস্যার জন্যই ভাইয়ু মহারাজ আত্মহত্যার পথ বেছে নেন। গোটা দেশ ভাইয়ু মহারাজকে ‘‌রাষ্ট্র গুরু’‌ হিসাবে মানতেন বলে জানা গেছে। 

আখারা পরিষদের সভাপতি মহন্ত নরেন্দ্র গিরি জানান, ‘‌গৃহস্থ সন্ন্যাস’‌ বলে আসলে কিছু নেই। ৫০ বছর আগেও এই ধারণাকে কখনই প্রশ্রয় দেওযা হয়নি। তিনি বলেন, ‘‌ভাইয়ু মহারাজের মৃত্যুতে আমাদের মন ভেঙে গিয়েছে। তিনি একজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি ছিলেন। কিন্তু আমরা এটা বিশ্বাস করি যে ধর্মীয় এবং আধ্যাত্মিক কাজের জন্য বিবাহিত ব্যক্তিরা কখনই যোগ্য হতে পারেন না। সংসারে থেকে কখনও আধ্যাত্মিক জীবন ভোগ করা সম্ভব নয়। গৃহস্থ সন্ন্যাসকে আমরা কখনই অনুমোদেন দিচ্ছি না। ব্যক্তিকে নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে তিনি সন্ন্যাসের পথে যাবেন নাকি পরিবারের সঙ্গে থাকবেন। কারণ দু’‌টো একসঙ্গে তা কখনই সম্ভব নয়। দু’‌নৌকায় পা দিয়ে কেউ কখনও চলতে পারেন না। কোনও না কোনও দিকে তার প্রভাব পরবেই।’‌ 

নরেন্দ্র গিরি আরো জানান, যাঁরা এই দু’‌টো জীবন উপভোগ করতে চান, তাঁদের ক্ষেত্রে একটা জীবন অবশ্যই ব্যর্থ হবে। তাই এবিএপি সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এবার থেকে আর কোনও বিবাহিত পুরুষকে সন্ন্যাস ধর্ম গ্রহণ করতে দেওয়া হবে না। ১২ জুন গুলি চালিয়ে আত্মহত্যা করেছেন স্বঘোষিত ধর্মগুরু ভাইয়ুজি মহারাজ ওরফে উদয় সিং দেশমুখ। বিষাদের কারণ পারিবারিক। যে ঘরে ভাইয়ুজি আত্মঘাতী হন সে ঘর থেকেই খুঁজে পাওয়া যায় একটি পকেট ডায়েরি। সেখানে থাকা সুইসাইড নোট সিলমোহর দিল পুলিশের সন্দেহেই। লেখা আছে, ‘‌পরিবারের দায়িত্ব নেওয়ার জন্য অন্য কেউ আছে। আমি চললাম। অতিরিক্ত চাপ নিতে পারছি না।’‌ আর এই ‘‌চাপ’‌ যে একান্তই ভাইয়ুজির ব্যক্তিগত এবং পারিবারিক, এ সম্পর্কে পুলিশের এখন প্রায় কোনও সন্দেহই নেই।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71