মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ৬ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদুল হক মামা মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
প্রকাশ: ০৩:১৬ pm ০২-০৭-২০১৭ হালনাগাদ: ০৩:১৬ pm ০২-০৭-২০১৭
 
 
 


ডেস্ক নিউজ : দেশে ও প্রবাসে জনপ্রিয় সুইডেন প্রবাসী অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধা ২ নম্বর সেক্টরের মেলাঘর ইউনিটের প্রধান সৈয়দ শহীদুল হক মামা দীর্ঘ তিন মাস জীবনের সঙ্গে লড়াই করার পর শুক্রবার দুপুরে কাতারের রাজধানী দোহার আল ওয়াকার হাসপাতালে শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন (ইন্নালিল্লাহি...রাজিউন)।

তার বয়স হয়েছিল ৬৫। তিনি স্ত্রী,এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন। দোহার হাসপাতালে অসুস্থ বাবার পাশে শুরু থেকে অবস্থানরত ছেলে খালিদ শুভর কাছ থেকে মামার মৃত্যুর খবর পাওয়ামাত্রই শনিবার সকালে স্ত্রী সৈয়দা আখতারুন্নেসা সুরভী ও মেয়ে শায়লা হক বিমানযোগে স্টকহোম থেকে কাতার রওনা হন। মামার লাশ দাফনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি বলে পরিবার সূত্রে জানানো হয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্ট, উচ্চমাত্রার ডায়াবেটিস ও কিডনির জটিল সমস্যায় ভুগতে থাকা শহীদুল হক মামা ২৮ এপ্রিল কাতার এয়ারওয়েজে ঢাকা থেকে স্টকহোম আসার পথে বিমানে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে দ্রুত কাতারের আল ওয়াকার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দুদিন পর তার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। তার শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে দুই সপ্তাহ আগে তাকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে রেখে চিকিৎসা দেয়া হয়।

দোহার হাসপাতালে ব্যয়বহুল চিকিৎসার ভার বহনে পর্যুদস্ত শহীদুল হক মামার অস্বচ্ছল পরিবার তাকে কাতার থেকে এয়ার এম্বুলেন্সে সুইডেনে আনার চেষ্টা করে। কিন্তু বিপুল অঙ্কের ভাড়ার অর্থ পরিশোধে সমর্থ না হওয়ায় সেই আশা পরিত্যাগ করে।

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে তার দফতরে আর্থিক সহায়তার আবেদন পাঠানো হলেও কোন সাড়া পাওয়া যায়নি বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

’৭১-এর কুখ্যাত কসাই যুদ্ধাপরাধী কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে দেয়া দ্বিতীয় রাজসাক্ষী, মিরপুর-মোহাম্মদপুর এলাকায় বীরত্বপূর্ণ সফল অপারেশন পরিচালনাকারী দুর্ধর্ষ গেরিলা কমান্ডার ও মামা বাহিনীর প্রধান জীবদ্দশায় রাষ্ট্রীয় সম্মাননা থেকে বঞ্চিত শহীদুল হক মামা সুস্থ হয়ে সুইডেন ফিরে এলে প্রবাসী বাঙালীদের পক্ষ থেকে তাকে একটি গ্র্যান্ড সংবর্ধনা প্রদানের পরিকল্পনা নেয়া হলেও তার আগেই তিনি অভিমান নিয়ে সকলকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন অন্তিম শয়ানে।

তিনি ছিলেন ত্রাণমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার সহযোদ্ধা। তার জন্ম পুরনো ঢাকার নাজিরাবাজারে। বাবা ছিলেন একজন খ্যাতিমান আইনজীবী। তিনি ছিলেন প্রত্যক্ষ ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে জড়িত এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ছাত্র এবং বঙ্গবন্ধুর ছেলে শেখ কামালের ঘনিষ্ঠ সহচর।

’৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত মামার পরিবারকে দিতে হয়েছে চরম মূল্য। বঙ্গবন্ধুর অত্যন্ত স্নেহভাজন মামা স্বাধীনতার পর বাংলাদেশ বিমানে সিকিউরিটি অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সৎ এবং দুঃসাহসী অফিসার হিসেবে তিনি বঙ্গবন্ধু হত্যায় জিয়ার কুকীর্তির বিচার দাবি এবং তার শাসনামলে বিমানের দুর্নীতি এবং তার রাজনৈতিক অনাচার ও দুঃশাসনের বিরুদ্ধে সোচ্চার মামা বহু হুমকি মোকাবেলা করে লড়াই চালিয়ে গেছেন। জিয়াউর রহমানের অবৈধ ক্ষমতা দখলের বিরুদ্ধে তিনি এককভাবে আদালতে রিট দাখিল করেছেন। শেষমেশ তিনি স্বৈরাচারী জিয়ার রোষানলের শিকার হয়ে বিমানের চাকরি হারান। তার আগে তাকে মন্ত্রীত্বের পদ অফার করা হলে তা তিনি ঘৃণার সঙ্গে প্রত্যাখ্যান করে জিয়াউর রহমানের সামনে থু থু নিক্ষেপ করেন। এরপর তিনি জীবনের পরম ঝুঁকির সম্মুখীন হয়ে পরিবারসহ বাংলাদেশ ত্যাগ করেন। সুইডেনে আশ্রয় লাভের পর বছরকয়েক চাকরি করার পর তিনি অসুস্থ হয়ে প্রাক পেনশনে চলে যান। স্বল্প আয়ের ওপর নির্ভরশীল বন্ধুবৎসল ও অতিথিপরায়ণ মামার দেশেও মাথা গোজার কোন ঠাঁই নেই।

পুরনো ঢাকায় যে পৈত্রিক সম্পত্তি পেয়েছিলেন, তাও দখল হয়ে গেছে। তবুও তিনি প্রভাব বিস্তার করে তা উদ্ধারের কোন ব্যবস্থা নেননি। মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সরকারের কাছ থেকে কোন সুবিধা গ্রহণের জন্যও কোথাও দ্বারস্থ হননি। আজন্ম সৎ ও ত্যাগী এই মানুষটি ছিলেন সততার এক অনন্য উজ্জ্বল প্রতীক।

তার মৃত্যুতে সুইডেনের বাঙালী মহলে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। গভীর শোক প্রকাশ করেছে সুইডেন ও ইউরোপীয় আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন।

প্রধানমন্ত্রীর শোক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদুল হকের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। শনিবার এক শোক বার্তায় শেখ হাসিনা মহান মুক্তিযুদ্ধে ‘মামা গেরিলা বাহিনী’র কমান্ডার এই বীর মুক্তিযোদ্ধার অবদানের কথা গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন।

তিনি বলেন, স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে জনমত গঠনে শহীদুল হক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।

শেখ হাসিনা মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানান।

এইবেলাডটকম/নি এম

 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71