মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
মঙ্গলবার, ৭ই ফাল্গুন ১৪২৫
 
 
মাগুরায় প্রতিবন্ধী কিশোরি গণধর্ষণ :বিএনপি নেতা আটক
প্রকাশ: ০১:২৬ pm ৩০-০৮-২০১৫ হালনাগাদ: ০১:২৬ pm ৩০-০৮-২০১৫
 
 
 


মাগুরা প্রতিনিধি: মাগুরার মহম্মদপুরের বিনোদপুর ইউপির চাপাতলা গ্রামে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে এক মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরি । ঘটনার ছয়দিন পর শনিবার রাতে (২৯ আগস্ট) এ ঘটনায় মামলা হলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

পুলিশ ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য মাগুরা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। ধর্ষণের আলামত নষ্ট ও শালিশের নামে মধ্যেস্ততা করে সময় ক্ষেপনের অভিযোগে নূরুল ইসলাম নামের স্থানীয় বিএনপি নেতাকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও ধর্র্ষিতার পরিবার জানায়, ২৩ আগস্ট রাত পৌনে আটটারদিকে চাপাতলা গ্রাম থেকে পাশের কানুটিয়া গ্রামের বাড়িতে ফিরছিল মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরি।

এসময় নাজিম (১৮) নামের এক যুবক ওই কিশোরিকে জোর করে সড়কের পাশে কাঠাল বাগানে নিয়ে যায়। সেখানে অপেক্ষা করছিল আরও তিন জন। চারজন মিলে  কিশোরিকে ধর্ষণ করে ফেলে যায় তারা।  অভিযুক্ত বাকি তিন ধর্ষক হচ্ছে  আকতার মিয়া (৪০), জসীম উদ্দিন (৩৫) ও মফিজ মিয়া (৪০)। 

এদের চারজনেরই বাড়ি চাপাতলা গ্রামে। ঘটনার  রাতে গুরুতর আহত অবস্থায়  এলাকার লোকজন কিশোরিকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌছে দেয়।  গ্রাম্য ডাক্তারের কাছে গোপনে চলে চিকিৎসা।

বিষয়টি জানাজানি হলে কানুটিয়া গ্রামের বিএনপি নেতা ধনাঢ্য ইটভাটা ব্যবসায়ি নূরুল ইসলাম মিটিয়ে দেওয়ার জন্য  শালিশ ডাকেন। শালিশের নামে তিনি ধর্ষণের আলামত নষ্ট করতে সময়ক্ষেপণ করেন বলে ধর্ষিতার পরিবারের অভিযোগ। এক পর্যায়ে ধর্ষিতার পরিবারকে দুই হাজার টাকা দিয়ে মামলা না করার জন্য ভয়ভীতি দেখান বলে তারা জানান। 

পুলিশ বিষয়টি জানলে শনিবার (২৯ আগস্ট) সন্ধ্যায় পুলিশ ধর্ষিতা কিশোরিকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য মাগুরা সদর হাসপাতালে পাঠায়। রাতে সদর হাসপাতালের গাইনী বিভাগের কনসালটেন্ট ডা. শামছুন্নাহার লাইজুর তত্ত্বাবধানে চার সদস্যের একটি মেডিকেল টিম তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করে।

শনিবার (২৯ আগস্ট) রাতে প্রতিবন্ধী কিশোরির এক স্বজন বাদী হয়ে চারজনকে অভিযুক্ত করে মহম্মদপুর থানায় নারি নির্যাতন আইনে মামলা করেছেন। ধর্র্ষণের মামলা ধামাচাপা দেওয়া ও আলামত নষ্টের অভিযোগে স্থানীয় বিএনপি নেতা নূরুল ইসলামকে আটক করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

তবে অভিযুক্ত চার ধষকের কাউকেই আটক করতে পারেনি পুলিশ। মাগুরা সদর হাসপাতালের গাইনী কনসালটেন্ট শামছুন্নাহার লাইজু ধর্ষিতার স্বাস্থ্য পরীক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। চুড়ান্ত প্রতিবেদন কাল (৩০ আগস্ট) জমা দিবেন বলে জানান। মহম্মদপুর থানার অফিনার ইনচার্জ (ওসি) শেখ আতিয়ার রহমান বলেন, এ ঘটনায় মালা হয়েছে। একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে । বাকি অভিযুক্তদের আটকের জন্য অভিযান চলছে।

এই বেলা ডট কম/অরুন//এইচ আর
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71