সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোমবার, ৯ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করে হিন্দু পরিবারের সম্পত্তি দখলের পায়তারা!
প্রকাশ: ০৫:৪২ pm ২৯-০৬-২০১৮ হালনাগাদ: ০৫:৪৬ pm ২৯-০৬-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


ময়মনসিংহ শহরের মহারাজা সড়কের পাশে অবস্থিত সংখ্যালঘু একটি পরিবারের জমি বেদখল হয়ে গেছে। ধর্মীয় অনুভূতির ব্যবহার করে দখলের ‘বৈধতা’ পেতে দখলদার দাবি করছেন, ওই জমিতে নাকি ‘মাদ্রাসা’ প্রতিষ্ঠা করা হবে।

ময়মনসিংহ শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত ওই জমির পরিমাণ সাড়ে ১২ শতাংশের বেশি। সেখানে দখলদার বহুতল ভবন নির্মা‌ণ করছেন। ওই জমিতে নির্মাণ কাজ স্থগিত রাখতে আদালতের দেয়া নির্দেশও মানছেন না প্রভাবশালী দখলদার‌। এ বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসনও নীরব বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জমির প্রকৃত মালিকদের হুমকি দিচ্ছেন দখলদার। ওই সংখ্যালঘু পরিবারকে তিনি দেশছাড়া করারও হুমকি দিচ্ছেন। এ অবস্থায় চরম নিরাপত্তাহীনতায় দিন কাটাচ্ছে পরিবারটি। ময়মন‌সিংহ ‌কো‌তোয়ালী ম‌ডেল থানায় ২৬ মে এ বিষয়ে পরিবারটি সাধারণ ডায়েরিও করেছে (নম্বর-২৩৬৪)। বসতভিটা রক্ষায় পরিবারটি প্রধানমন্ত্রীর সাহায্য চায়।

ভুক্তভোগী পরিবারের বিপ্লব কুমার গুহ মানিক এ প্রসঙ্গে জানান, মহারাজা সড়কের ৯, ১১ নম্বরে পৈতৃক সূত্রে তারা ১২.৩২ শতাংশ জমি পান। তার প্রয়াত বাবা শিশির কুমার গুহ ১৯৬২ সালে স্ত্রীকে দুই আনা, মেয়েকে দুই আনা ও তিন ছেলেকে চার আনা করে উইল করে দেন। ১৯৬৫ সালে তার বাবা মারা যান।

Image result for মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠার নামে সংখ্যালঘু

জানা যায়, শিশির কুমারের তিন ছেলের মধ্যে সুখময় গুহ ১৯৭৫ সালে ভারতে চলে যান। পরে ১৯৯৮ সালে দেশে ফিরে ছোট ভাই বিপ্লব কুমার গুহ মানিককে ‘পাওয়ার অব অ্যাটর্নি’ করে তার অংশের জমি দেখভালের দায়িত্ব দেন। কিন্তু পরবর্তীতে সুখময় গুহ ২০১৭ সালে গোপনে দেশে ফিরে ওই জমিসহ (প্রায় ৩ শতাংশ, যা চার আনা হিসাবে পাওয়া) ভাই, বোন ও মায়ের সব জমি ‘পাওয়ার অব অ্যাটর্নি’ করে দেন স্থানীয় আব্দুল্লাহ আল মামুনকে।

এরপর থেকে জমির মালিক বিপ্লব কুমার গুহ মানিক, সুবিনয় গুহ ও মীরা রানী গুহকে উচ্ছেদের হুমকি দিচ্ছেন অবৈধ ওই ‘পাওয়ার অব অ্যাটর্নি’ আব্দুল্লাহ আল মামুন। তিনি কয়েক দফায় হামলা, ভাঙচুর চালিয়ে ১১ নম্বর মহারাজা সড়কের পুরো জায়গা দখল করে নেন আর এখন ৯ নম্বর মহারাজা সড়কের জায়গাসহ বাসাবাড়ি দখলের হুমকি দিচ্ছেন বলে অভিযোগ বিপ্লব কুমার গুহ মানিকের।

স্থানীয়রা জানান, ওই জমিতে আব্দুল্লাহ আল মামুন ‘মাদ্রাসা’ নির্মাণের গুজব ছড়িয়ে এলাকার মুসলমান বাসিন্দাদের সমর্থন পেতে চাচ্ছেন। কী নামে ‘মাদ্রাসা’ প্রতিষ্ঠা হবে, মাদ্রাসার অনুমোদন পেয়েছেন কী না জানতে চাইলে মামুন কোনো উত্তর দিতে পারেননি। তার ঘনিষ্ঠরা জানান, দখল হওয়া জমিতে কোনো ‘মাদ্রাসা’ নির্মাণের পরিকল্পনা মামুনের নেই।

স্থানীয়দের সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, শত বছরের পুরনো এ বাড়িতে স্বাধীনতার পরে আসেন জাতীয় চার নেতা। এ বাড়িতেই আড্ডায় বসেন দেশবরেণ্য অনেকে। পাঠচক্র, খেলাঘর, রবীন্দ্র-নজরুল চর্চা, সাংস্কৃতিক আন্দোলন-সংগঠন, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি গঠন, লোকসাহিত্য-ছড়া সংসদ, আবৃত্তি সংগঠন ইত্যাদি চলতো এ বাড়িতে। এ বাড়িতেই প্রতিষ্ঠিত হয় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও শেখ ফজলুল হক মনির প্রিয় লোক সংস্কৃতি সংগঠন ‘মন পবনের নাও’। ১৯৭৪ সালে ঢাকার পল্টন ময়দানে আয়োজিত আওয়ামী যুব কংগ্রেসে সংগঠনটি পরিবেশন করে ‘মহুয়ালোক’ নৃত্যনাট্য।

বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71