রবিবার, ২৪ মার্চ ২০১৯
রবিবার, ১০ই চৈত্র ১৪২৫
 
 
মারা গেছেন পা হারানো রোজিনাও 
প্রকাশ: ০৪:৪০ pm ২৯-০৪-২০১৮ হালনাগাদ: ০৪:৪০ pm ২৯-০৪-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


বনানীতে বিআরটিসি গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে পা হারানো রোজিনা (২১) মারা গেছেন। রবিবার সকাল ৭টা ২০ মিনিটে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত উপপরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, রোজিনা আক্তার ঢামেক হাসপাতালের ১ নং আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। আজ সকাল ৭টা ২০ মিনিটে তিনি মারা যান। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে।

ঢাকায় দুই বাসের রেষারেষিতে হাত হারিয়ে কলেজছাত্র রাজীবের মৃত্যুর পর সপ্তাহ না যেতেই বাসের চাপায় পা হারান রোজিনা আক্তার। পরে তাকে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বৃহস্পতিবার ঢামেক বার্ন ইউনিটের প্লাস্টিক সার্জারির প্রধান অধ্যাপক ডা. আবুল কালামকে প্রধান করে ৯ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়।

মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ডা. আবুল কালাম আজাদ ইতিপূর্বে জানান, রোজিনা বুধবার পঙ্গু হাসপাতাল থেকে ঢামেকে রেফার করা হয়। তার ডান পা হারানো ছাড়াও অন্যান্য সমস্যা আছে কি-না সেগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। এছাড়া তাকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে পায়ের ক্ষতস্থান ড্রেসিং করা হয়েছে।

সাংবাদিক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজার বাসায় কাজ করতেন রোজিনা। ২০ এপ্রিল আত্মীয়ের বাসায় বেড়ানো শেষে ফেরার পথে রাত ৮টার দিকে বনানীর চেয়ারম্যান বাড়ির সামনে বিআরটিসির বাস (ঢাকা মেট্রো ব ১১-৫৭৩৩) তাকে ধাক্কা দেয়। রোজিনা পড়ে গেলে বাসটি তার ডান পায়ের উপর দিয়ে চলে যায়। এতে তার পা দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ ঘটনায় ঘটনায় গাজী টেলিভিশনের নিজস্ব প্রতিবেদক মহিউদ্দিন আহমেদ রাজধানীর বনানী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

এর আগে গত ৩ এপ্রিল কারওয়ান বাজার মোড়ে বিআরটিসি ও স্বজন পরিবহনের দুই বাসের প্রতিযোগিতার মধ্যে এক হাত হারান সরকারি তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীব হোসেন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেও মারা যান।

বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71