বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
বুধবার, ১১ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
মালয়েশিয়ায় ৮০০ বিদেশী আটক
প্রকাশ: ০৬:৪০ pm ২৪-০৭-২০১৬ হালনাগাদ: ০৬:৪১ pm ২৪-০৭-২০১৬
 
 
 


এইবেলা ডেস্ক: মালয়েশিয়ায় স্মরণকালের সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন দেশের প্রায় আট শতাধিক ব্যক্তিকে আটকের খবর পাওয়া গেছে। তবে এখন পর্যন্ত কতজন বাংলাদেশী আটক হয়েছে তা জানা যায়নি।  

শনিবার সকাল ১১টা থেকে শুরু হওয়া এ অভিযান আজ রবিবার পর্যন্ত চলবে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে।  

রাজধানী কুয়ালালামপুরের পাসার সেলায়াং, পাসার পুডু, পাসার চৌকিট, পাসার সেনি, বুকিট বিনতাং, মসজিদ ইন্ডিয়া, মসজিদ জামেক এল আরটি, জেনারেল হসপিটাল, কুয়ালালামপুর সেন্ট্রাল রেল ওয়ে স্টেশন ও সেন্ট্রাল এরিয়া, হাং তোয়াহ, পুডু সেন্ট্রাল ও টিবিএস বাস টার্মিনাল এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়।

কুয়ালালামপুরের নগর পুলিশের উপ-প্রধান দাতুক আবদুল হামিদ মোহাম্মদ আলী দেশটির গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, স্থানীয় সময় দুপুর ২টা থেকে ‘অপ নিয়াহ’ নামের চার ঘণ্টাব্যাপী অভিযানে নামেন দেশটির ২৭১ পুলিশ। এ অভিযানে যুক্ত হয়েছে ইমিগ্রেশন, রেলা, ইউনাইটেড নেশনস হাইকমিশনার ফর রিফিউজিস, সিভিল ডিফেন্স ডিপার্টমেন্টসহ বিভিন্ন আইন প্রয়োগকারী সংস্থা।  


সংশ্লিষ্ট বিভাগ সূত্রে জানা যায়, দেশটিতে অবৈধভাবে বিদেশীরা অবস্থান করছে বলে অভিযোগ পাওয়ার পর বিভিন্ন স্থানে এ অভিযান চালানো হচ্ছে। অবৈধভাবে যারা অবস্থান করছে তাদের ফেরত পাঠানো হবে।


দেশটির অনলাইন পত্রিকা নিউ স্ট্রেইটস টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কুয়ালালামপুরের সেন্ট্রাল মার্কেট ও মসজিদ জামিক এলাকা থেকে ১২০ জন অবৈধ অভিবাসীকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ। তাদের মধ্যে বাংলাদেশ, মিয়ানমার ও নেপালের নাগরিকরা আছেন।  

তবে প্রত্যক্ষদর্শীদের অনেকে জানিয়েছেন, এ অভিযানে কুয়ালালামপুরের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রায় ৮ শতাধিক বিদেশী নাগরিককে আটক করা হয়েছে।  

স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, যেকোনো আবাসিক এলাকার পাংসাপুরি ফ্ল্যাট, অ্যাপার্টমেন্টে পুলিশ হানা দিতে পারে। বিশেষ করে আবদুল্লাহ হুকুম, বুকিট আংকাসা, বাংসার সাউথ, পান্তাই ডালাম, ওয়ার্তা উত্তর ও দক্ষিণ, বাতু মুডাহ, বাতু পেরমাই, সেগামবোত ও সেরি সিনার এলাকায় অভিযান চলতে পারে।
 
দেশটিতে বসবাসরত প্রবাসীরা বলেন, এ অভিযান স্মরণকালের বড় অভিযান। আগামী দুইদিন কুয়ালালামপুরের কোথাও অবৈধ অভিবাসীদের জন্য নিরাপদ নয়।

বাসাবাড়ি, বাস, ট্যাক্সি, কর্মস্থল, দোকানপাট থেকে শুরু করে সর্বত্র অভিযান চলবে। যাদের কাগজপত্রে ত্রুটি আছে তাদেরও আটক করা হতে পারে। সেজন্য সবাইকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে নিয়ে চলাফেরার আহ্বান জানিয়েছেন প্রবাসী কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ।

অভিযান চলাকালীন করণীয়
আপনি যদি অভিযানের মাঝে পড়ে যান তবে কী করবেন? মনে রাখবেন সাঁড়াশি অভিযানের সময় আপনার ভিসা চেক করবে না।

আপনার যদি ভিসা না থাকে, আপনি যদি MYGE ফিঙ্গারের আওতায় থাকেন কিংবা আপনি যদি শিক্ষার্থী হয়ে থাকেন এবং পাসপোর্ট সাথে না থাকে বা আপনার হোল্ডিংলেটার সাথে থাকলেও আপনাকে পুলিশ ধরে নিয়ে যাবে। পুলিশের হাত পা ধরলেও কাজ হবে না। এটাই এ অভিযানের নিয়ম।

তবে ভয়ের কারণ নেই, পুলিশ আপনাকে ধরে থানাতে নিয়ে ভিসা চেক করে ছেড়ে দিবে। অনেক সময় এক্ষেত্রে একটু সময় লাগে ছাড়া পেতে। মনকে শক্ত করুন এবং পরিস্থিতি বোঝার চেষ্টা করুন। জানতে চেষ্টা করুন দুটো বিষয়-

১.  আপনাকে কোন থানার আন্ডারে আটক করা হয়েছে, মানে কোন থানার আন্ডারে আপনার নাম এন্ট্রি করা হয়েছে। সেই থানার নাম জেনে নিন। কেননা আপনজন আপনার খোঁজ করলে থানার নাম ছাড়া আপনি কোথায় আছেন তা জানা যাবে না।

২. আপনাকে নিয়ে ভিসা চেক না করে যদি থানায় বা অন্য কোথায় পরিবর্তন করে দেয় তাহলে বুঝে নিবেন আপনি তিন চার দিনের জন্য জেলে যাচ্ছেন। এর জন্য আপনাকে জানতে হবে মামলাটা কোন কর্মকর্তার হাতে। যার হাতে মামলা থাকে তাকে আইও (IO) বলে। এই আইও আর থানার নাম না জেনে জেলে গেলে বের হতে ঝামেলা পোহাতে হবে।
 

এইবেলা ডটকম/আরকেএম

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71