মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ১০ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
মুসলিম বালকের মুখে ‘রাম’ নাম, হৃদয়ে সঞ্চার হয় শক্তির অগ্নিগিরি
প্রকাশ: ১০:২৯ pm ১৪-০১-২০১৬ হালনাগাদ: ১০:০৭ pm ০৫-০২-২০১৬
 
 
 


ওয়েব ডেস্ক: হিন্দু ধর্মের পৌরাণিক গাঁথায় রাম একজন অবতার। ভগবান শ্রীবিষ্ণুর দশ অবতারের একটা রূপ হলেন রাম। হিন্দু ধর্মে বিশ্বাসী মানুষের এটাই বিশ্বাস। মৎস, কুর্ম, বরাহ, নরসিংহ, বামন, পরশুরাম, রাম, কৃষ্ণ, গৌতম বুদ্ধ এবং কল্কি- এই দশজনের মধ্যে সপ্তম জন রাম।

এই দশ অবতারের প্রতিটি ক্ষেত্রেই বৈজ্ঞানিক বিবর্তন রয়েছে। এই রাম অবতারের নাম জপ করলে মানুষের মধ্যে তৈরি হয় এক অদ্ভুৎ শক্তি, এমনটা আজকের কথা নয়, শতকের পর শতক পেরিয়ে আসছে এই মতবাদ। একবিংশ শতকেও এর প্রভাব একই ভাবে বিরাজমান। সমাজের শ্রেণীবিন্যাস, জাতে মানুষ যাই হোক, যে ধর্মই মেনে চলুন না কেন, এমন কিছু 'শক্তি' মন্ত্র আছে যা জাত-পাত নির্বিশেষে মানুষের মধ্যে এনে দেয় শক্তি।

এমনই এক জ্বলন্ত ঘটনার উদাহরণ, উত্তরপ্রদেশে ঘটেছে। ধর্মে মুসলিম, মুখে ‘রাম নাম’, জপ যতই বেড়েছে হৃদয়ে তৈরি হয়েছে শক্তির আগ্নেয়গিরি। প্রেমভাব, শান্তি, ক্ষমা, শক্তির এক জপমালা 'রাম নাম', এমনটাই বলছেন এবং মানছেন উত্তর প্রদেশের ওই মুসলিম বালকরা। বছর বছর ধরে রাম নাম লিখে তাঁরা নিজেদেরকে প্রভাবিত করেছেন, এমন দাবি ক্ষোদ ওই মুসলিম বালকদের। শুধু 'রাম নাম' নয়, গীতাপাঠেও যে জ্ঞান সঞ্চয় হয়, সেকথাও জানিয়েছেন তাঁরা। (সূত্র-জি নিউজ)

প্রসঙ্গ অনুযায়ী, কেবল রাম নয়, শ্রীবিষ্ণুর আট অবতারের বৈজ্ঞানিক বিবর্তনের ব্যাখ্যাও জেনে নিন-
মৎস - পৃথিবীর তিনভাগ জল আর একভাগ স্থলে প্রথমে জলচর প্রাণীর আবির্ভাব ঘটে।
কুর্ম - উভচর প্রাণী। জল ও স্থল, দুই জায়গাতেই প্রাণীর বসবাস শুরু হয়।
বরাহ - কেবল স্থলে বসবাস করতে শেখে অনেক জীব।
নৃসিংহ - মানব জাতির পূর্বতন পশুসুলভ অবস্থা, যখন মানুষ পূর্ণতা পায়নি।
বামন - মানুষে ক্ষুদ্র বিকাশ।
পরশুরাম - মানুষের আদিম পর্যায়। প্রকৃতির কোলে জীবের বাস। মানুষের জীবনযাপন জঙ্গলে। সেখান থেকেই বিবর্তনের শুরু।
রাম - সমাজ বিকাশে প্রথম উন্নত পর্যায়। সমাজ, গোষ্ঠী, মানুষ-এই কৃষ্টিতে উৎকর্ষতা লাভ করে।
কৃষ্ণ - নিয়ে এলেন রাজনীতি। মানুষের বিবর্তন, সমাজের ধারাবাহিক পরিবর্তন এবং টিকে থাকার লড়াইয়ে মানুষের কূটনীতিক আচরণের এই প্রথম বৈজ্ঞানিক আবির্ভাব।
বুদ্ধ - জ্ঞান ছাড়া পৃথিবী বর্ণহীন, অন্ধকার। কুসংস্কার দূর করে জ্ঞানদীপ্তকরণের অবতার গৌতম বুদ্ধ। বিষ্ণুর নবম অবতার তিনি।
কল্কি - আসন্ন। এখনও সমাজ শ্রীবিষ্ণুর এই অবতারের অপেক্ষায়। মানুষের মধ্যে থাকবে এমন শক্তি যা হবে ধ্বংস ও সৃষ্টির ধারক ও বাহক।


এইবেলাডটকম/এমআর
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71