শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯
শনিবার, ৭ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
মেয়েদের চুল পড়ার কারন
প্রকাশ: ১১:১৪ am ২৬-১১-২০১৬ হালনাগাদ: ১১:১৪ am ২৬-১১-২০১৬
 
 
 


স্বাস্থ্য ডেস্ক: মেয়েদের চুল পড়ে যাওয়ার নাম অ্যানড্রোজেনেটিক অ্যালোপিসিয়া। এতে মাথার উপরিভাগের ও দুপাশের চুল পাতলা হয়ে যায়।

এক-তৃতীয়াংশ নারীর এ সমস্যা হয়। প্রতিদিন ১০০ থেকে ১২৫টি চুল পড়ে স্বাভাবিকভাবেই। চুল পড়ে যাওয়া তখনই সমস্যা, যখন দিনে ১২৫টির বেশি চুল পড়ে এবং আর গজায় না। পরিবারের কারো চুল পড়ারোগ থাকলে অন্যদেরও পড়তে পারে। এ সমস্যা দুভাগে ভাগ করা যায় অ্যানাজেন ইফফুডিয়াম ও টেলোজেন ইফফুভিয়াম। বিভিন্ন ধরনের ওষুধ ও কেমোথেরাপির জন্য চুল পড়লে তার নাম অ্যানাজেন ইফফুডিয়াম। আর চুলের ফলিকল যখন রেস্টিং স্টেজে যায়, তার নাম টেলোজেন ইফফুভিয়াম। চুলের ফলিকল রেস্টিং স্টেজে যাওয়া মানে চুল আর বড় না হওয়া এবং এক সময় চুল ঝরে যাওয়া।

ডায়েটিং এবং চুল পড়া :

ওজন কমানোর জন্য অতিরিক্ত ডায়েটিং অনেক সময় চুল পড়ার কারণ। অবশ্যই ডায়েটিসিয়ান, নিউট্রিশনিস্ট কিংবা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী খাদ্যতালিকা নির্ধারণ করুন। নির্দিষ্ট ডায়েটের সঙ্গে ভিটামিন ও মিনারেল সাপ্লিমেন্ট খাওয়া প্রয়োজন। আবার অতিরিক্ত ভিটামিন ‘এ’ গ্রহণে চুল পড়ে। তাই ডায়েট করলে বা ওজন কমাতে চাইলে নিজের মনমতো তা না করে ডায়েটিসিয়ান, নিউট্রিশনিস্ট, চিকিৎসক ও ত্বক বিশেষজ্ঞের মতামত নেবেন।

অসুস্থতা, চাপ ও চুল পড়া :

শারীরিক অসুস্থতা, অপারেশন হওয়া ও মানসিক চাপ চুল পড়ার অন্যতম কারণ। এ সময় নতুন চুল গজায় না এবং চুল বাড়ে না। শরীর সারাতে ব্যস্ত থাকে সব শক্তি এবং অনাদরে পড়ে যায় চুল। এসব ক্ষেত্রে চুল পড়তে থাকে তিন মাস এবং আবার চুল গজাতে সময় লাগে তিন মাস। তবে শারীরিক ও মানসিক চাপ খুব বেশি এবং দীঘস্থায়ী হলে ছয় মাসের বেশি সময় ধরে চুল পড়তে পারে। রক্তস্বল্পতা এবং থাইরয়েডের সমস্যায়ও চুল পড়ে। তাই বেশি চুল পড়লে রক্ত পরীক্ষা করা এবং রোগ নির্ণয় করা প্রয়োজন।

হরমোনের পরিবর্তন ও চুল পড়া :

হরমোনের পরিবর্তনের সঙ্গে নারীদের চুল পড়ার সম্পর্ক আছে। গর্ভাবস্থায় কিংবা জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল খাওয়া বন্ধ করলে চুল পড়তে পারে। হরমোনের পরিবর্তনের তিন মাসের মধ্যে এ পরিবর্তন লক্ষ করা সম্ভব। আবার সঠিক তিন মাসে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে। রজঃনিবৃত্তি বা মাসিক বন্ধ হওয়ার পরও মহিলাদের চুল পড়ে।

এইবেলাডটকম/এবি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71