সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯
সোমবার, ৭ই শ্রাবণ ১৪২৬
 
 
যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশিসহ যৌন নিপীড়কদের সাজা
প্রকাশ: ০৭:১০ am ১০-০৮-২০১৭ হালনাগাদ: ০৯:১৪ am ১০-০৮-২০১৭
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


যুক্তরাজ্যের একটি আদালত বাংলাদেশিসহ শিশু যৌন নিপীড়ক চক্রের ১৮ ব্যক্তিকে দোষী সাব্যস্ত করে রায় দিয়েছেন। স্থানীয় সময় বুধবার (৯ আগস্ট) নিউ ক্যাসলের একটি আদালত এই রায় দেন।

যৌন নিপীড়ক চক্রের সদস্যরা মূলত বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, ইরাক, ইরান ও তুরস্ক বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিক। উত্তর-পূর্ব ইংল্যান্ডের নিউ ক্যাসলে ১৪ বছরের এক কিশোরীদের মাদক সেবন করিয়ে নিপীড়নের অভিযোগে আদালত তাদের দোষী সাব্যস্ত করেছে।

আদালত এই যৌন নিপীড়ক চক্রের বিরুদ্ধে প্রায় ১০০ ধরনের অপরাধের প্রমাণ পেয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ধর্ষণ, মানবপাচার, পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করার ষড়যন্ত্র এবং মাদক পাচার। এসব অপরাধের সময়কাল ২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত।

মোট ১৭ জন পুরুষ ও ১ জন নারীকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তারা হলো— আইসা মৌসাবি, মোহাম্মদ আলী, নাসির উদ্দিন, মঞ্জুর চৌধুরী, তাহেরুল আলম, হাবিবুর রহমান, বদরুল হাসেন, কারোলান গ্যালন, সাইফুল ইসলাম, আব্দুল হামিদ মনি, প্রভাত নেল্লি, আব্দুল সাবে, জাহাঙ্গীর জামান, নাদিম আসলাম, মোহাম্মদ আজরাম, ইয়াসার হোসেন, রেদওয়ান সিদ্দিকী ও মহিবুর রহমান।

তদন্তে নেতৃত্ব দেন নর্থামব্রিয়া পুলিশের প্রধান কনস্টেবল স্টিভ অ্যাশম্যান। তার ভাষ্য, ‘২০১৩ সালের ডিসেম্বরে প্রাথমিক অনুসন্ধানের পর তদন্ত শুরু হয়। তদন্তে বেরিয়ে আসে যৌন নিপীড়নের ভয়াবহ তথ্য।’

এই তদন্ত কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘২০১৪ সালের জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে অপারেশন স্যাংকচুয়ারি শুরু হয়। তখন আমরা প্রায় ৩০ জনকে গ্রেফতার করি। এ পর্যন্ত আমরা প্রায় ৪৬১ জনকে গ্রেফতার করেছি, ৭০৩ জন সম্ভাব্য অভিযোগকারীর সঙ্গে কথা বলেছি এবং ২৭৮ জন ভুক্তভোগী পেয়েছি। আজকের রায়ের ফলে সব মিলিয়ে আমরা ৯৩টি রায় পেয়েছি, এতে ৩০০ বছরের কারাদণ্ডের শাস্তি হয়েছে।’

আদালতে দাখিল করা পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী— ভুক্তভোগীরা ধর্ষণ, নিপীড়ন ও যৌন নিপীড়নের কথা জানিয়েছেন। তাদের মদ বা মাদক সেবন করানো হতো। অনেক সময় অচেতন অবস্থায় তাদেরকে নিপীড়ন করা হতো।

শিশুর যৌন নিপীড়নবিরোধী সংস্থা প্যারেন্টস অ্যাগেইনস্ট চাইল্ড সেক্সুয়াল এক্সপ্লয়টেশনের (পিএসিই) এক মুখপাত্র মামলার রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। তার কথায়, ‘এটি ভালো যে অপরাধীরা শেষ পর্যন্ত বিচারের আওতায় এসেছে।’

প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71