শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯
শুক্রবার, ৪ঠা শ্রাবণ ১৪২৬
 
 
যৌতুক ও ভ্রুণ হত্যা : যশোরে ৯জনের বিরুদ্ধে মামলা
প্রকাশ: ০১:২৪ am ০২-০৯-২০১৫ হালনাগাদ: ০১:২৪ am ০২-০৯-২০১৫
 
 
 


যশোর প্রতিনিধি : গৃহবধূকে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন ও ভ্রুণ হত্যার অভিযোগে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার গাজনা গ্রামের স্বামীসহ ৯জনের নামে আদালতে মামলা হয়েছে।

পহেলা সেপ্টেম্বর যশোরের কেশবপুর উপজেলার বেগমপুর গ্রামের ওয়াজেদ আলীর মেয়ে আসমা খাতুন এ মামলা করেন।

আসামিরা হলো সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার গাজনা গ্রামের শহিদুল ইসলাম মোড়ল ও তার স্ত্রী শাহনারা মোড়ল, তার ছেলে ও নিহতের স্বামী মামুনুর রশীদ মোড়ল, আলমগীর মোড়ল, লিটন মোড়ল, খালেক মোড়লের ছেলে সিরাজুল মোড়ল, লিটন মোড়লের স্ত্রী জাহিদা মোড়ল ও লাউডুবিয়া গ্রামের আনারুল গাজী ও তার স্ত্রী তাহমিনা গাজী।

সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ আহমেদ অভিযোগটি তদন্ত করে সত্যতা পেলে এজাহার হিসেবে গ্রহণের জন্য কেশবপুর থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, আসামি মামুনুর রশীদ ২০১৪ সালের ১০জানুয়ারি কেশবপুর উপজেলার গাজনা গ্রামের ওয়াজেদ আলীর মেয়ে আসমা খাতুনকে বিয়ে করে। বিয়ের পর শ্বশুর বাড়ির লোকজন আসমার সাথে খারাপ ব্যবহার শুরু করে। এক পর্যায়ে তারা আসমাকে তার বাবার বাড়ি থেকে একলাখ টাকা যৌতুক এনে দিতে বলে। যৌতুকের টাকার জন্য প্রায় তার সাথে গোলযোগ করা হত।

এর মধ্যে আসমা অন্তঃস্বত্তা হয়ে পড়লে তাকে গর্ভপাতের জন্য চাপ দিতে শুরু করে শ্বশুর বাড়ির লোকজন। রাজি না হওয়ায় আসামিরা গত ১০ এপ্রিল ২লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে আসমাকে তার বাবার বাড়ি রেখে যায়।

গত ২১ আগস্ট সকালে আসামিরা আসমার বাবার বাড়ি এসে আবারো যৌতুক হিসেবে ২লাখ টাকা দাবি করে। এসময় তারা গর্ভপাতের বিষয়টিও বলে। তাদের প্রস্তাবে রাজি না হলে গোলযোগের সৃষ্টি হয়।

একপর্যায়ে আসামিরা আসমাকে বেদম মারপিট করে। পরে চিকিৎসার কথা বলে আসমাকে জোর করে যশোর শহরের অপরিচিত একটি ক্লিনিকে নিয়ে আসে এবং গর্ভপাত ঘটিয়ে বাবার বাড়ি রেখে যায়। আসমা খাতুন কিছুটা সুস্থ হয়ে আদালতে এ মামলা করেন।


এইবেল ডট কম/পিকেদাস/ এইচ আর
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71