সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯
সোমবার, ৩রা আষাঢ় ১৪২৬
 
 
রংয়ের হোলির আগে খেলা হয় ফুলের হোলি
প্রকাশ: ০১:৫৮ am ১০-০৩-২০১৭ হালনাগাদ: ১২:৫৪ am ১১-০৩-২০১৭
 
 
 


প্রতিবেশী ডেস্ক : বসন্ত পঞ্চমী থেকে হোলি— এই কালপর্বকেই বসন্তকাল বলে চিহ্নিত করে ভারতীয় পরম্পরা।

এবং এই কালপর্বেই পালিত হয় বসন্তোচিত বিভিন্ন উৎসব। বস্তুতপক্ষে, বসন্ত পঞ্চমী থেকে শুরু হওয়া উৎসবই পরণতি পায় হোলি বা দোল উৎসবে।এই পর্বেই পালিত হয় এক বিশেষ উৎসব ‘ফুলেরা দুজ’।

ফুলেরা দুজকে ভারতের এক বড় অংশের মানুষ দোলের প্রস্তুতি বলে মনে করেন। এবং এই উৎসব দিয়েই হোলির সূত্রপাত বলে গণ্য করেন।ফাল্গুন মাসের শুক্লপক্ষের দ্বিতীয়ায় উদযাপিত হয় ফুলেরা দুজ।

বলাই বাহুল্য এই উৎসবটিও রাধা-কৃষ্ণের প্রতি উৎসর্গীকৃত।বিভিন্ন কৃষ্ণ মন্দিরে এই দিনটিতে ভক্ত সমাগম হতে থাকে। শ্রীকৃষ্ণের মূর্তিকে ফুল দিয়ে অপরূপ ভাবে সাজেনো হয়, নব বস্ত্র পরানো হয়।প্রকৃতপক্ষে পুরো মন্দিরকেই সাজানো হয় ফুলে।

মূলত মথুরা ও বৃন্দাবনেই পালিত হয় এই ফুলেরা দুজ।ফুলেরা দুজ এর উদযাপন মূলত ঘটে গানে, রংয়ে আর নৃত্যে। কৃষ্ণভজন, ছাড়াও গীত হয় হোরি বা দোলের জন্য রচিত বিশেষ শাস্ত্রীয় সঙ্গীত। কেবল মন্দির নয়, মথুরা ও বৃন্দাবন-সহ উত্তর ভারতের একটা বড় অংশে ঘরে ঘরেও পালিত হয় এই উৎসব। বিশেষ আরতি ছাড়াও শ্রীকৃষ্ণের উদ্দেশ্যে নিবেদিত হয় অতি সুস্বাদু ভোগ।

ব্রজের রাখালকে নতুন রংয়ে রাঙিয়ে নিতে নারীপুরুষ নির্বিশেষে অংশ নেন ফুলেরা দুজ-এ।আসলে এই উৎসব দোলযাত্রার মঞ্চ প্রস্তুতের উৎসব, রাধাকৃষ্ণের দোলনা সাজানোর উৎসব।

এইবেলাডটকম/এফএআর

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71