শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
শনিবার, ১১ই ফাল্গুন ১৪২৫
 
 
রাজধানীর রামকৃষ্ণ মিশনে কুমারী পূজা অনুষ্ঠিত
প্রকাশ: ০৫:৩২ pm ২৮-০৯-২০১৭ হালনাগাদ: ০৫:৩২ pm ২৮-০৯-২০১৭
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে দুর্গাপূজার মহাঅষ্টমীতে অনুষ্ঠিত হয়েছে কুমারী পূজা। রাজধানীর রামকৃষ্ণ মিশনে বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টার দিকে কুমারী পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

রামকৃষ্ণ মিশনে কুমারী মা আসনে অধিষ্ঠিত হলে পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয় বেলা ১১টায়। টুকটুকে লাল শাড়ি পরে আসা কুমারী মায়ের চোখে-মুখে ভীতিমিশ্রিত আনন্দের ছাপ ছিল। কুমারীর আসল নাম রুপকথা চক্রবর্তী। শাস্ত্র মতে, এদিন তার নামকরণ করা হয় ‘মালিনী’। মালীনির বয়স ছয় বছর। সে রাজধানীর বনশ্রীতে বসবাসকারী এক ব্রাহ্মণ পরিবারের সন্তান ও প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

শাস্ত্র মতে, মাতৃভাবে কুমারী কন্যাকে জীবন্ত প্রতিমা কল্পনা করে জগজ্জননীর উদ্দেশে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হলো কুমারী পূজা। এটি একাধারে ঈশ্বরের উপাসনা, মানববন্দনা আর নারীর মর্যাদার প্রতিষ্ঠা। নারীর সম্মান, মানুষের সম্মান আর ঈশ্বর আরাধনা কুমারী পূজার অন্তর্নিহিত শিক্ষা।

পূজা শেষে রামকৃষ্ণ মিশনের প্রধান মহারাজ স্বামী ধ্রুবেশানন্দ বলেন, ‘বৃহদ্ধর্মপুরাণের বর্ণনা অনুযায়ী দেবতাদের স্তরে প্রসন্ন হয়ে দেবী চণ্ডিকা কুমারী কন্যারূপে দেবতাদের সামনে দেখা দিয়েছিলেন। দেবীপুরাণে বিস্তারিত এ বিষয় উল্লেখ আছে। তবে অনেকে মনে করেন যে, দুর্গাপূজায় কুমারী পূজা সংযুক্ত হয়েছে তান্ত্রিক সাধনামতে।’ 

কুমারী পূজা দেখতে সকালে রামকৃষ্ণ মিশন জনসমুদ্রে পরিণত হয়। বিরামহীন ঢোলের আওয়াজের সঙ্গে থেমে থেমে বেজে উঠে ঘণ্টা আর কাঁসার শব্দ, আর নানা বয়সের নারীদের ভক্তিভরা উলুধ্বনি। এরই মাঝে পিতার কোলে চড়ে মণ্ডপে অধিষ্ঠিত হলেন ‘কুমারী মা’। হাজারো ভক্ত জয়োধ্বনি দিয়ে বরণ করে নেন কুমারী মাকে।

পূজা শেষে কুমারী দেবী মালিনী বলেন, ‘আমি জগৎ সংসারের জন্য আশির্বাদ করেছি। সবাই ভালো থাকবে, শান্তিতে থাকবে এ কামনা করেছি।’

এদিকে শুক্রবার শারদীয় দুর্গাপূজার মহানবমী পালিত হবে। আর মাত্র একদিন পরেই মর্ত্য ছেড়ে কৈলাসে স্বামীগৃহে ফিরে যাবেন দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গা। পেছনে ফেলে যাবেন ভক্তদের চার দিনের আনন্দ-উল্লাস আর বিজয়ার অশ্রু।


আরপি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71