মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৯
মঙ্গলবার, ৯ই মাঘ ১৪২৫
 
 
রাজাপুরে কাটাতারের বেড়ায় রিক্সাচালক পরিবার অবরুদ্ধ!
প্রকাশ: ০৪:৫৭ pm ০৯-১২-২০১৮ হালনাগাদ: ০৪:৫৭ pm ০৯-১২-২০১৮
 
ঝালকাঠি প্রতিনিধি
 
 
 
 


ঝালকাঠি রাজাপুরের গালুয়া পাকা মসজিদ এলাকায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রভাবশালী প্রতিপক্ষরা ২ মাস ধরে কাটাতারের বেড়া দিয়ে রিক্সা চালক জালাল হাওলাদারের পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রাজাপুরের ইউএনও ও থানা পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করেও কোন সুরাহ না পেয়ে রবিবার দুপুরে রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাবে এসে এসব অভিযোগ করেন জালাল হাওলাদারের শাশুড়ি লিলি বেগম। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বাড়ি থেকে বের হওয়ার প্রধান রাস্তায় পিলার পুতে কাটাতারের বেড়া দিয়ে একমাত্র চলাচলের পথটি পুরোপুরি বন্ধ করে ওই পরিবারটিকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। রিক্সা চালক জালাল হাওলাদার ও তার শাশুড়ি লিলি বেগম অভিযোগ করে জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে গালুয়া পাকা মসজিদের জমি দাবি করে প্রভাবশালী প্রতিপক্ষ আ’লীগ নেতা মসজিদ কমিটির সভাপতি মায়াজ্জেম মাস্টার ও সেক্রেটারি মহারাজ খান দলবল নিয়ে অক্টোবর মাসের প্রথম দিকে রিক্সাচালক জালালের বাড়ি থেকে বের হওয়ার প্রধান রাস্তায় পিলার পুতে কাটাতারের বেড়া দিয়ে একমাত্র চলাচলের পথটি পুরোপুরি বন্ধ করতে চাইলে জালাল ও তার স্ত্রী হেপি বেগম বাধা দেয়। তখন তাদের লাঞ্ছিত করে নানাভাবে হুমকি দেয়। 

রিক্সাচালক জালালের শাশুড়ি লিলি বেগমের অভিযোগ, ঘটনার দিন রাতে রিক্সাচালক জালালের শাশুড়ি লিলি বেগম রাজাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে পরের দিন সকালে দুই পুলিশ গেলে তদন্ত গেলেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি। পরে নিরুপায় হয়ে রিক্সাচালক জালালের শাশুড়ি লিলি বেগম ৬ অক্টোবর সকালে ইউএনও আফরোজা বেগমের কাছে অভিযোগ দিলে তিনি গালুয়া ইউনিয়ন ভূমি উপ সহকারি কর্মকর্তা বিজন বিহারী হালদারকে তদন্ত প্রতিবেদন চাইলে নভেম্বর মাসের ২০ তারিখে তদন্ত প্রতিবেদনেও ঘর থেকে বের হওয়ার পথ কাটা তার দিয়ে বন্ধের কথা উল্লেখ করা হলেও অজ্ঞাত কারনে কোন ব্যবস্থা নেয়নি ইউএনও। 
রিক্সাচালক জালাল হাওলদার জানান, ঘটনার পর থেকে রিক্সাচালক জালালের স্ত্রী হুমকি ও ভয়ে ৪ সন্তান রেখে বাড়ি ছেড়ে বাবার বাড়িতে গিয়ে অবস্থান নিয়েছে। বর্তমানে স্কুল পড়ুয়া শিশু শিক্ষার্থী নিপা (৫ম), তন্নি (২য়) সহ ছোট দুই শিশু নিয়ে মানবেতর জীবনযাবন করে আসছে এবং নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে। পথ বন্ধ থাকায় রাতে তার রিক্সাও বাড়িতে নিতে পারছেন না এবং সামনের পুকুরের পানিও ব্যবহার করতে পারছেন না। 

এ বিষয়ে রাজাপুর থানার এসআই ইউনুচ মোল্লা জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে উভয় পক্ষকে শালিশ মানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হলেও তা সফল হয়নি। আর পরে কোন পক্ষই আসেনি। 

এ বিষয়ে মসজিদ সেক্রেটারি মহারাজ খান জানান, ওই পাশে তাদের কোন জায়গা নেই। তাদের পথ সামনে ওই পাশে না। মসজিদের ইমামের থাকার জন্য ঘর করবো বিধায় ওই পথ কাটাতার ও পিলার দিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে ইউএনও আফরোজা বেগম পারুল জানান, মসজিদ কমিটির আপত্তি থাকায় ওই পরিবারটিকে বিকল্প পথ দেয়া হয়েছে। তাতে যদি তারা অনিচ্ছুক বা কোন আপত্তি থাকে তবে সার্ভেয়ার পাঠিয়ে খবর নিয়ে খোজখবর নেয়া হবে এবং চলাচলালের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নি এম/ রহিম
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71