বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০
বুধবার, ১৩ই কার্তিক ১৪২৭
সর্বশেষ
 
 
রাম ও তাঁর জন্মভূমি অযোধ্যা নিয়ে ওলি’র কুতর্কের প্রতিবাদে উত্তাল ঢাকা
প্রকাশ: ১১:১৪ pm ১৮-০৭-২০২০ হালনাগাদ: ১১:৩১ pm ১৮-০৭-২০২০
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=3144346968986422&id=100002334496884

গত ১৩ ই জুলাই, ২০২০ সোমবার, ভানু জয়ন্তী উপলক্ষ্যে নেপালের  প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলির নিজের বাসভবনে একটি অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। সেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, ভারত যে অযোধ্যাকে রামের জন্মভূমি হিসেবে উল্লেখ করে, সেই তথ্য সঠিক নয়। 

তিনি দাবি করেন নেপালের বীরগঞ্জে থোরিতে আসল অযোধ্যা অবস্থিত। তিনি বলেন, ‘ভারত  তার একটি  জায়গাকে অযোধ্যা বলে উল্লেখ করে।’অর্থাৎ ওলির মতে, অযোধ্যা নিয়ে বিতর্ক রয়েছেই। আসলে অযোধ্যা বলে যেটিকে উল্লেখ করা হয়, সেটা আসল অযোধ্যা নয়। 

ওলি এদিন স্পষ্টভাবে বলেন, ‘বীরগঞ্জের পশ্চিমে থোরিতে অবস্থিত অযোধ্যা। নেপালেই অবস্থিত বাল্মিকী আশ্রম আর নেপালেই রিদিতে দশরথ পুত্র সন্তান লাভের জন্য যজ্ঞ করেছিলেন। 

তিনি আরও বলেন, ‘দশরথের ছেলে রাম ভারতীয় ছিলেন না আর অযোধ্যাও নেপালে অবস্থিত। 

আমরা সকলে জানি নেপাল একটি হিন্দু অধ্যুষিত দেশ, তাদের সংস্কৃতি, আচার সবই হিন্দু রীতি অনুযায়ীই চলে আসছে কিন্তু কি এমন হঠাৎ করে হলো যে নেপালের প্রধানমন্ত্রী পদে থেকে তিনি ভারত বিরুদ্ধ এবং সর্বোপরি সরাসরি ভগবান শ্রীরাম চন্দ্র এবং তাঁর জন্ম স্থান অযোধ্যা নিয়ে বিতর্ক/কুতর্ক শুরু করলেন? আমরা মনে করি নেপালের প্রধানমন্ত্রী তাঁর নিজের ইচ্ছায় এ কথা বলেননি কারণ তিনিও হিন্দু সম্প্রদায় ভুক্ত্। এর পিছনে বৃহৎ এবং অদৃশ্য কোন কু-শক্তির ইন্দন অবশ্যই আছে বলে আমরা মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি।

ভগবান শ্রীরাম চন্দ্রের জাতীয়তা ও তাঁর জন্মভূমি অযোধ্যার গুরুত্ব ও সাংস্কৃতিক তাৎপর্যে আঘাত করার চেষ্টা করে প্রধানমন্ত্রী ওলি বিশ্বের সকল সনাতন ধর্মে বিশ্বাসী মানুষের ধর্মীয় ভাবাবেগকে ব্যাপক ভাবে আহত করেছে। একটি দেশের প্রধানমন্ত্রীর মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে এই ধরনের দায়িত্বজ্ঞানহীন ও বিতর্কিত বক্তব্য অগ্রহণযোগ্য ও নিন্দনীয়। 

তার এই বিতর্কিত মন্তব্যের প্রতিবাদে হিন্দু ধর্ম সুরক্ষা পরিষদ এর উদ্যোগে  শনিবার (১৮ জুলাই) বাংলাদেশ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সকাল ১১ ঘটিকা থেকে ১২:৩০ পর্যন্ত এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের আহবায়ক, স্বামী সঙ্গীতানন্দ মহারাজ (প্রণব মঠ, ভারত সেবাশ্রম) ঢাকা।

উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী, কন্ঠ মুক্তিযোদ্ধা শ্রী মনোরঞ্জন ঘোষাল, আন্তজাতিক আন্ত:ধর্মীয় সংগঠন URI এর বাংলাদেশ সমন্বয়ক ড. মোহাম্মদ আব্দুল হাই, ড: নিম চন্দ্র ভৌমিক, অধ্যাপক হীরেন্দ্রনাথ বিশ্বাস (সভাপতি, বাংলাদেশ হিন্দু সমাজ সংস্কার সমিতি), বাংলাদেশ মাইনরিটি জনতা পার্টির কেন্দ্রীয় কায নির্বাহী কমিটির সহসভাপতি অধ্যক্ষ নিরদ বরণ মজুমদার, যুগ্ম সম্পাদক ভবতোষ মুখার্জী সুবীর, দিলীপ দাস সহ আরও হিন্দু ধর্মীয় বিশিষ্ঠ ব্যক্তিবর্গ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সদস্য সচিব, বিজন কান্তি সানা ও গৌতম হালদার প্রান্ত।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2020 Eibela.Com
Developed by: coder71