বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮
বৃহঃস্পতিবার, ১লা অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
লোকসঙ্গীতশিল্পী নির্মলেন্দু চৌধুরীর ৩৬তম মৃত্যূ বার্ষিকী আজ
প্রকাশ: ১২:১৩ am ১৯-০৪-২০১৭ হালনাগাদ: ১২:১৩ am ১৯-০৪-২০১৭
 
 
 


প্রতাপ চন্দ্র সাহা ||

অবিস্মরণীয় লোকসঙ্গীতশিল্পী এবং শিক্ষক নির্মলেন্দু চৌধুরী (জন্মঃ- ২৭ জুলাই, ১৯২২ – মৃত্যুঃ- ১৮ এপ্রিল, ১৯৮১)

বাংলার লোকজগানকে তিনি শুধু জাতীয় ভাবেই সমাদৃত করেননি, ছড়িয়ে দিয়েছেন বিশ্বলোকে। কণ্ঠজাদুতে লোক সঙ্গীতের যাত্রাপথকে সুদৃঢ় করার স্বীকৃতিস্বরূপ তাঁকে লোক গীতির সম্রাট অভিধায় আখ্যায়িত করা হয়। সিলেটের সুনামগঞ্জের বেহেলী গ্রামে তাঁর জন্ম। ছাত্রজীবনে মাঝি -মাল্লার কণ্ঠে পল্লীগান শুনে এবং পিতামাতার নিকট থেকে শিক্ষা ও উৎসাহ পেয়েছিলেন। প্রথম জীবনে ময়মনসিংহের আবদুল মজিদ ও আবদুর রহিমের নিকট লোকসঙ্গীত ও লোকবাদ্যে তালিম গ্রহণ করেন; পরে শান্তিনিকেতনে অশোকবিজয় রাহার নিকট রবীন্দ্রসঙ্গীত শিক্ষালাভ করেন। ১৯৫৫ সালে বঙ্গ সংস্কৃতি সম্মেলনে শ্রীহট্টের লোকগীতি গেয়ে তিনি সুনাম অর্জন করেন। এ বছরই ওয়ারশে আন্তর্জাতিক লোকসঙ্গীত সম্মেলনে বাংলা লোকসঙ্গীত পরিবেশন করে তিনি স্বর্ণপদক লাভ করেন। তখন থেকে শুরু করে ভারতে, বাংলাদেশে ও বিদেশে বহু সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে তিনি বাংলা পল্লীগীতিকে আন্তর্জাতিক মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করেন।
তাঁর শতাধিক গানের রেকর্ড প্রকাশিত হয়েছে। চলচ্চিত্রে অভিনয় করে এবং নেপথ্যে গান গেয়েও তিনি সুনাম অর্জন করেন। গঙ্গা ছবির গানে তিনি বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেন। সুরকার হিসেবেও তাঁর পরিচিতি ছিল। মলুয়া পালাগানের ভিত্তিতে রচিত ও লং প্লে রেকর্ডকৃত চাঁদ বিনোদ গীতিনাট্য তিনিই পরিচালনা করেন।
নির্মলেন্দু চৌধুরী প্রগতি লেখক সংঘ ও ভারতীয় গণনাট্যের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি কলকাতায় লোকভারতী নামে একটি লোকসঙ্গীত বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। কিছুকাল তিনি রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গীত বিভাগে অধ্যাপনা করেন। ‘এপার বাংলা ওপার বাংলার গান’ নামে তাঁর একটি গুরুত্বপূর্ণ সঙ্গীতগ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।

 

এইবেলাডটকম/প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71