সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮
সোমবার, ২৬শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
শিবগঞ্জে কালি মন্দির ভাঙচুর
প্রকাশ: ১১:০৫ am ০৬-১১-২০১৮ হালনাগাদ: ১১:০৫ am ০৬-১১-২০১৮
 
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:
 
 
 
 


চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জের বিনোদপুরে হিন্দু সম্প্রদায়ের শত বছরের পুরোনো মন্দিরের সামনে কালি পূজা উপলক্ষে সাজাতে গিয়ে মন্দিরের জমি দখলকারিদের সঙ্গে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ৫/৬জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ৪ জনই সনাতন ধর্মালম্বী। 

আহতরা হচ্ছে, একই গ্রামের শ্রী সঞ্জয় সিং, মিনতি রানী, পূর্ণিমা, অমল ও হেবজুল আলম। আহতদের শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে হেবজুল আলমের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। 

এলাকাবাসী জানান, শিবগঞ্জ উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নের লছমনপুর মৌজায় অবস্থিত খাস জমির উপর সনাতন ধর্মালম্বীরা শত বছর থেকে পূজা করে আসছে। প্রতিবছরে মতো এবারও কালি পূজা উপলক্ষে রবিবার বিকেলে মন্দির কমিটির সভাপতি বিনয় কুমারের নেতৃত্বে সনাতন ধর্মালম্বীরা মন্দির মেরামত করতে গেলে লছমনপুর গ্রামের মৃত কান্তু বিশ্বাসের ছেলে হেফজুল, শামীম, আলম, মৃত মহসিনের ছেলে শাহীন ও সুমন এবং মৃত আবোল হোসেনের ছেলে নজরুল, রবু, মনুসহ আরো অনেকে মন্দিরের জমি তাদের দাবি করে মন্দির সাজাতে ও মেরামত করতে বাধা দেয়। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে হেফজুল ও তার লোকজন সনাতন ধর্মালম্বীদের মারপিট করলে ৪জন গুরতর আহত হয়।

মন্দির পরিচালনাকারী কমিটির সদস্য আহত শ্রী সঞ্জয় সিং জানান, বহু বছর ধরে গ্রামে অবস্থিত আধা পাঁকা কালি মন্দিরটিতে স্থানীয় সনাতন ধর্মাবলম্বীরা পূজা করে আসছিল। ঘরটি নষ্ট হওয়ায় রবিবার বিকেলে নতুন করে তা সংস্কারের উদ্দ্যোগ নেয়া হয়। এতে বাধা দেন স্থানীয় হেবজুল আলমসহ তার লোকজন। পরে উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ৫ জন আহত হয়। 

এদিকে, তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম, শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চৌধুরী রওশন ইসলাম, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা কাঞ্চন কুমার দাসসহ রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা। 

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে এবং মন্দিরের স্থানে স্থানীয় গ্রাম পুলিশ পাহাড়া দিচ্ছে। উভয় পক্ষের মধ্যে শান্তি ফিরিয়ে আনতে উদ্দ্যোগ নেয়া হয়েছে। 

তিনি আরও জানান, বেশ কিছুদিন আগে থেকে মন্দিরের জমিটি দুইপক্ষ দাবী করে আসায় আদালতে মামলা রয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে এঘটনায় অপরাধীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নি এম/ 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71