বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯
বৃহঃস্পতিবার, ১৩ই আষাঢ় ১৪২৬
 
 
শুকর রাখাল হতে চাইত মন!
প্রকাশ: ০২:০২ pm ২০-০৬-২০১৭ হালনাগাদ: ০২:১৩ pm ২০-০৬-২০১৭
 
 
 


এইবেলা ডেস্ক : শুকর রাখাল হতে চাইত মন! গাঁয়ের রং, সংসার কর্মে নিপুণতা, হাঁটাচলা-লেখাপড়া সব কিছুই তখন করানো হতো ভাল পাত্র পাবার আশায়। অন্তত আমার পরিবার-প্রতিবেশে।

কেউ কখনো স্বপ্ন বুনে দেয়নি চোখে আকাশ ছোঁয়ার। স্কুলের গণ্ডী না পেরতেই চোখের সামনে পাঁচ পাঁচটি কাজিনের বিয়ে দেখে আমার পরিণতির কথা ভেবে মনে হতো-এ জীবন আমার নয়-এ শরীর আমার নয়-এই মনটাও বুঝি আমার নয়-কেবল দূরে বহুদুরে স্বপ্নলোকে যেতে চাইতো মন! চওড়া ছাতা মাথায়-ঘাড়ে ঝোলান ঝোলা আর অদ্ভুত শব্দ ভাষায় শুকরপালকে পথ দেখিয়ে কায়পুত্রের দল পার হতো যখন গ্রামের পথ-মনে হতো-ওদের সাথী হলেই সার্থক হবে জীবন!

পানিতিতা যাবার পথে হঠাৎ সেই স্বপ্ন দলের সাথে দেখা! সাথীদের সরিয়ে শ্যামবর্ণ সুঠামদেহী কায়পুত্র যুবককে বললাম-‘আমি যখন কেবল কিশোরী খুব পালাতে চাইতাম দেশময় চষে বেড়ানো শুকর রাখালের সাথে!-ঘরের মত ছাতা আর ঐ যে ঘাড়ে ঝুলছে রহস্যময় ঝোলাটি, ঐটি ঘিরেই ছিল আমার যত কৌতূহল!

শুনেছি ওর মধ্যে যাদু–টোনা ভরে রাখেন? রাতের বেলা শুকর শাবকদের মন্ত্রপড়ে ঘুম পাড়ান? ঠিক মা যেমন ঘুম পাড়ানি গান গেয়ে কোলের কাঁচা শিশুকে ঘুমায়! চলার পথে কোন পথিক ঝামেলা করলে যাদুর বলে শাস্তি দেন, সত্যিই কি সব? আপনি জানেন যাদু কিছু?’ বেলী ফুলের মত সাদা দাঁত বের করে বলল যুবকটি-‘আগের লোকেরা মন্ত্র কিছু জানত বটে-তবে এখনকার আমরা ওসব জানিনা তেমন।’

’আচ্ছা, এই যে গাজীরহাট-খুলনা-বাগেরহাট-নড়াইল-যশোর-মেহেরপুর-বাগাচড়া কত শত জায়গায় ঘুরে ঘুরে আবার ফিরে আসা। নতুন জায়গা যাওয়ার টান। প্রতি মুহূর্তে নতুন জায়গাকে পুরান করে আবার নতুনের পানে ছুটে চলা-এই যে কত অদেখা লোক দেখা-কত অজানা জায়গায় যাওয়া, পথের পাশে ঘুমানো-জ্যোৎস্না স্নান, রাত দুপুরে গা ছম ছম, হঠাৎ বর্ষায় ভেজা, রান্না করতে গেলে নুন ফুরিয়ে যাওয়া কি অদ্ভুত রোমাঞ্চিত জীবন আপনাদের।

একবার শুকর রাখাল হতে চাইলে ক্লাসে সকলের অট্ট হাসিতে কী হেনস্থাই না করেছিল আমায়! আপনিই বলেন শুকর পালের মত গরু-ছাগলের পাল নিয়ে কী দেশে দেশে ঘুরে বেড়ানো যায় বুঝি? আচ্ছা আপনাদের দলে কোন নারী নাই কেন? সৃষ্টির শুরুতে কিন্তু নারীরাও ছিল যাযাবর জীবনের অগ্রে।‘-বললাম আমি।

সহাস্যে যুবকটি বললেন-‘আপনার কথায় ফেলে আসা পথকে স্বপ্ন মনে হচ্ছে বৈকি? তবে এই রোমাঞ্চিত পথ চলার সাথে অনিশ্চয়তাও আছে খানিক।‘ ‘সমস্ত পথ কি হেঁটেই যেতে হয়?’-জানতে চাইলে পাশে দাঁড়ান শীর্ণ দেহী কায়পুত্র যুবকটি রসবোধে মুগ্ধ করে বললেন-‘এতোগুলো শুকর শাবক নিয়ে বাসে ওঠা কি বুদ্ধিমানের কাজ হবে দিদিমনি?’

(বনানী বিশ্বাস,১৭ জুন ২০১৭ পানতিতা, এগারখান নড়াইল)

এইবেলাডটকম/এএস

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71