বুধবার, ২২ মে ২০১৯
বুধবার, ৮ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
 
 
শ্রীলংকায় বৌদ্ধ-মুসলিম সংঘর্ষে আহত ৪
প্রকাশ: ০৯:৩৩ pm ১৮-১১-২০১৭ হালনাগাদ: ০৯:৩৩ pm ১৮-১১-২০১৭
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


শ্রীলংকায় ভুয়া সোশাল মিডিয়ার পোস্ট ও গুজবকে কেন্দ্র করে গিনটোলা শহরে মুসলিম-বৌদ্ধ সংঘর্ষে কমপক্ষে ৪ জন আহত হয়েছে। শনিবার ১৯ জনকে গ্রেফতার করেছে দেশটির পুলিশ।
 
শনিবার দেশটির আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মন্ত্রী সাগালা রত্নানায়েকে বলেছেন, পরিস্থিতি বর্তমানে সম্পুর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স, দাঙ্গা নিয়ন্ত্রণ পুলিশ ও সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। 

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে পুলিশের মুখপাত্র রুয়ান গুনাসেকেরা বলেন, নভেম্বরের ১৩ তারিখ একজন মুসলিম নারী তার শিশু একজন সিংহলিজ তরুণের মোটরসাইকেলের ধাক্কায় আহত হন। এতে তিনজনই আহত হন, এবং বাইক চালক ২৫ হাজার শ্রীলংকার মুদ্রা জরিমানা দিয়ে ঘটনার মিটমাট করে। মোটরসাইকেল চালককে জামিন দেয়া হয়। কিন্তু বৃহস্পতিবার এই ঘটনার জের ধরে হামলার ঘটনা ঘটে। যদিও ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কেউ ছিল না, সেই হামলায় একজন মুসলিম আহত হয়। এর জের ধরে সিনহলি ব্যক্তির বাড়িতে হামলা হয় যাতে ১ জন সিনহলি আহত হয়। শুক্রবার ঘটনা আরো গুরুতর রূপ ধারণ করে যাতে রাজনীতিবিদ ও ধর্মীয় নেতারা উসকানি দেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় আরেকটি সহিংসতার ঘটনা ঘটে যার ফলে কারফিউ শনিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত কারফিউ জারি করা হয়। যারা সোশ্যাল মিডিয়ায় উসকানি দিয়েছে তাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত ১৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতার হওয়াদের মধ্যে আছেন এক নারী যিনি গুজব ছড়িয়ে ছিলেন যে মুসলিমরা বৌদ্ধ মন্দিরে আক্রমণ করতে যাচ্ছে। পুলিশ এই সংঘাত দুই সম্প্রদায়ের কিছু উগ্রবাদীদের সৃষ্ট বলে অভিহিত করেছে। 
 
চলতি বছর শ্রীলংকায় সংখ্যালঘু মুসলিম ও সংখ্যাগুরু বৌদ্ধদের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। শ্রীলংকার ২ কোটি ১০ লাখ জনসংখ্যার ৭০ শতাংশ বৌদ্ধ, আর ৯ শতাংশ মুসলিম। শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা জুনে উগ্রপন্থি বৌদ্ধদের রোষের শিকার মুসলিমদের পাশে দাঁড়াতে ব্যর্থ হওয়ায় মানবাধিকার সংস্থা ও কূটনীতিকদের দ্বারা সমালোচিত হয়েছেন। দুই মাসে মুসলিম দোকান ও মসজিদে পেট্রল বোমা হামলা সহ ২০টি হামলার ঘটনা ঘটেছে। ২০১৪ সালে উগ্র বৌদ্ধদের সঙ্গে দাঙ্গায় ৩ মুসলিম নিহত হয়েছিল। রয়টার্স ও ডেইলি মিরর লংকা

আরপি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71