বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮
বুধবার, ৭ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
সংকট উত্তরণে সুফিয়া কামালের দর্শন প্রতিষ্ঠা করতে হবে
প্রকাশ: ০৩:১৪ pm ২১-০৬-২০১৭ হালনাগাদ: ০৩:১৪ pm ২১-০৬-২০১৭
 
 
 


ঢাকা : বিভিন্ন সময় সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে যাঁরা রুখে দাঁড়িয়েছেন, তাঁদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন কবি সুফিয়া কামাল।

তিনি ছিলেন নারীমুক্তি, মানবমুক্তি, গণতান্ত্রিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব। বর্তমান সময়ের নানা সংকট উত্তরণে সুফিয়া কামালের জীবনের মূল দর্শনকে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

কবি সুফিয়া কামালের ১০৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ আয়োজিত অনুষ্ঠানে আলোচকেরা এ কথা বলেন। সুফিয়া কামাল ছিলেন মহিলা পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। তিনি বলতেন, রাজনীতি হলো নিজের বিবেক, আর সব বাধা অতিক্রম করেই নারীদের অগ্রসর হতে হবে।

 বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ আয়োজিত কবি সুফিয়া কামাল স্মারক বক্তৃতা ও সুফিয়া কামাল সম্মাননা পদক প্রদান অনুষ্ঠানে ‘মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক চেতনা এবং শিক্ষা ও সুফিয়া কামাল’ শীর্ষক স্মারক বক্তৃতা দেন সমাজবিজ্ঞানী প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অনুপম সেন। শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় তিনি লিখিত বক্তৃতা পড়ে শোনাননি।

বক্তৃতায় অনুপম সেন বলেন, শুধু বাংলাদেশ নয়, সারা বিশ্বেই সাম্প্রদায়িকতার বাতাস বইছে। যেকোনো সাম্প্রদায়িক কর্মকাণ্ডে সুফিয়া কামালের কণ্ঠ ধ্বনিত হয়েছে জোরালোভাবে। নবাব পরিবারের মেয়ে ছিলেন সুফিয়া কামাল। বাড়ির ভাষা ছিল উর্দু। কিন্তু তিনি নিজে নিজে বাংলা শিখলেন। বাংলা ভাষাকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য সংগ্রাম করলেন। সুফিয়া কামালের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে অনুপম সেন বলেন, সবাইকে প্রকৃত মানবিক হতে হবে, এটিই হোক সবার অঙ্গীকার। বাঙালির মধ্যে চেতনা আছে, তাই সাম্প্রদায়িকতা মাথাচাড়া দিলেও তা পরাভূত হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ফওজিয়া মোসলেম। তিনি বলেন, এখন সাধারণ শিক্ষাব্যবস্থাকেই বিপর্যস্ত করে ফেলা হচ্ছে। প্রগতিশীল আন্দোলন, ক্ষমতায় যারা নেতৃত্ব দিচ্ছে, তাদের কিছু কিছু কর্মকাণ্ড শঙ্কিত করে তুলছে। পাঠ্যবইতে সুকৌশলে বিভিন্ন পরিবর্তন আনা হচ্ছে। গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের চর্চা হচ্ছে না, দেশে নির্বাচনমুখী রাজনীতি চলছে।

এবার সুফিয়া কামাল সম্মাননা পদক পেয়েছেন রাজবাড়ী জেলার মৎস্যজীবী আরতী রানী বিশ্বাস, জামালপুরের কৃষি উদ্যোক্তা মোতাহেরা নাসরিন, অনূর্ধ্ব-১৬ জাতীয় নারী ফুটবল দল এবং রংপুর জেলার শাবানা আক্তার, যিনি নিজের চুল ন্যাড়া করে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করেছিলেন। অনুষ্ঠানের অতিথিরা সম্মাননাপ্রাপ্তদের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন। ফুটবল দলটি বর্তমানে জাপানে খেলতে যাওয়ায় দলের পক্ষে সম্মাননা গ্রহণ করেন ক্রীড়াবিদ মাহফুজা আক্তার। মোতাহেরা নাসরিন অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাখী দাশ পুরকায়স্থ। সংগীত পরিবেশন করেন ইফফাত আরা দেওয়ান, সুস্মিতা আহমেদ এবং সংগঠনের রোকেয়া সদনের শিক্ষার্থীরা। অনুষ্ঠানের শুরুতে মিলনায়তনের বাইরে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খানসহ অন্য অতিথিরা সুফিয়া কামালের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে এবং মোমবাতি জ্বালিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এ ছাড়া পার্বত্য অঞ্চলে পাহাড়ধসে নিহত লোকজনের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন সবাই।

এইবেলাডটকম /আরডি

 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71