বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯
বৃহঃস্পতিবার, ১৩ই আষাঢ় ১৪২৬
 
 
সংরক্ষিত মহিলা আসনে কি যোগ্য ছিল না আশালতা বৈদ্য!
প্রকাশ: ০৪:০৮ pm ০৯-০২-২০১৯ হালনাগাদ: ০৬:৪৭ pm ০৯-০২-২০১৯
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


জাতীয় একাদশ সংসদ নির্বাচন এর সংরক্ষিত মহিলা সাংসদ নির্বাচন নিয়ে দুটি কথা না বল্লে মৃত্যুর পূর্বে যে অসহনীয় অন্যায় মেনে নিয়ে মরতে হবে তা হবে আত্মঘাতী নিজের ওপর বিশ্বাস ঘাতকতা।

একটি জীবন এর সংক্ষিপ্ত প্রকাশঃ 
(১) ১৯৬৯ এ বঙ্গবন্ধুর মন্চে রাজনীতিতে প্রবেশ।
(২) ১৯৭৫ পরবর্তী ৪ ঠা নভেম্বর জেলহত্যার প্রতিবাদ মিছিল বের করা।
(৩) ৪ ঠা নভেম্বর হলের ছিট বাতিল হওয়া।
(৪) ২৭ শে নভেম্বর পুলিশ দ্বারা গ্রেফতার হওয়া।
(৫) ২১শে আগষ্ট গ্নেনেট হামলায় আহত হয়েও কোনো সুযোগ গ্রহন না করা। 
(৬) একটানা একই রাজনীতির মাঠে ৫০ বছর থাকা।
(৭) ১৯৯১ এ জননেত্রী সেখ হাসিনাকে দুই নম্বর ফরম কিনে ঢাকার রাজপথ কোটালীপাড়া থেকে নির্বাচিত করা। 
(৮) চরিত্র বিকিয়ে না দেওয়া। 
(৯) টাকা দিয়ে মনোনয়োন নেওয়ার চেষ্টা না করা।
(৯)কৃষকলীগে ১৯৮৩ থেকে ২০১৯ এ সহ সভাপতি হয়েও মূল্যহীন হওয়া। মূল্য কি দিয়ে প্রমান করা।
১০) আটকোটি মহিলার মধ্যে দশজনের তালিকায় অনন্য শী্র্ষ দশের একজন হওয়া।
(১১) সমগ্র বিশ্ব জরিপে নোবেলে বাচাই হওয়া।
১২) সমগ্র বাংলার শ্রষ্ট সমবায়ী নির্বচিত হওয়া।
(১৩) সমগ্র বিশ্বের কৃষক ফেডারেশন এ এশিয়া মহাদেশের ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়া।
(১৪) সমগ্র বাংলাদেশে সমবায়ের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান সমবায় ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়া। মুক্তি যুদ্ধ ভিত্তিক অসংখ্য প্রতিষ্ঠানের শীর্ষে থাকা
১৫) মহান মুক্তিযুদ্ধে একমাত্র মহিলা গ্রুপ কমান্ডার হওয়া। 
১৬) ওয়ান ইলেভেন পরবর্তী সংগ্রাম, আন্দোলনে রাজপথে থাকা ইত্যাদি অর্জন গুলো একবারও চোখে না পড়া।

রাজনৈতিক কারনে ৭৫ পরবর্তীতে অসংখ্য মামলার আসামী হওয়া, এরশাদ আমলে ৪২, খালেদার আমলে ২৭ মামলার আসামী হওয়াসহ একটানা নির্যাতিত হওয়ার পরও যখন আওয়ামী রাজনীতিতে দয়ার সংসদ জুটলো না তাহলে করার কি আর থাকে। 
জানি বুকের ভিতর স্বদলীয় নির্যাতন বল্লে কদিন আগের বিনাদোষে জেলখাটা জাহলম হওয়া ছাড়া ভাগ্যে আর কি জুটবে। না নেত্রী আপনার চোখ ন্যায়, ন্যায্য, ত্যাগী, যোগ্য, শিক্ষিতের মূল্য নাই। তদবীরের মুল্যই বড়।নেত্রী আপনার ১৯৯১ নির্বাচন পরবর্তী অবস্হা মনে নেই। বয়স ৬৫, আর আপনাকে এবিষয়ে বিরক্ত করব না। আপনি ২০০৯ এ যমুনায় বলেছিলেন আপনিই আমার রাজনৈতিক নেতা। কোটালী পাড়া আপনাকে নির্বাচিত করার পর গিয়ে আমাকে জড়িয়ে ধরে অনেক কথা বলেছিলেন। তার মধ্যে আরো বলে ছিলেন আমাকে আমার দ্বারা সৃষ্ট সেবামূলক প্রতিষ্ঠান কে দেখবেন। নিজেকেই জিগ্যেস করুন কি দায়িত্ব পালন করেছেন। কখনো খবর নিয়েছেন কি? রাজনীতি নেই, কলুষিত হয়ে পড়ছে। রক্ষা করুন। এর পরিনতি শুভ হতে পারেনা।

প্রকৃত কর্মীদের মূল্যায়নে অনিয়ম, অবিচার প্রকৃতিও সহ্য করে না, করবে না। নাই বঙ্গবন্ধু, ফনিভূষণ মজুমদার, মোল্লাজালাল, আব্দুর রাজ্জাক, ফ্লাইট সার্জন ফজলুলহক, রাশেদ মোশাররফ সহ দেশপ্রেমিক রাজনৈতিক নেত্রী বৃন্দ, তাইতো মূল্যায়িত হওয়ারও সুযোগ নেই। আপনি সমগ্র দেশ দেখেন, তাই খোজ নিতে সময় হয়না হতভাগা কোটালী পাড়ার দুই লক্ষাধিক মানুষের অধিকার কি ভাবে বন্চিত হচ্ছে। তাদের ভাগ্যে জোটেনা সংসদীয় সনদে কোনো সুপারিশও।  আজ অবধি কোটালীপাড়ায় কোনো প্রতিনিধি দেননি।
আপনার ক্ষমতা প্রদান করেন গোপালগঞ্জের মানুষদের। কিন্তু কেনো? চোখ খুলুন আমাকে না দিলেও ঐ অভাগা কোটালী পাড়ার একজনকে আপনার দায়িত্ব দিন। যিনি কোটালী পাড়াস্হ মানুষের প্রয়োজনের কথা শুনবে। কোটালীপাড়ার হাসপাতাল এর দুরবস্থা আপনি জানেন না।

কেনো বলেন, ত্যাগি, যোগ্য, অধিকার বঞ্চিত দের সুযোগ দিবেন। এ শব্দগুলো না দিলে তো আমার মতো বৃদ্ধ ত্যাগিরা আপনাকে বিব্রত না করে পারত, নিজেরাও মুক্ত থাকত। আপনাকে অবহিত করা মানুষগুলো যাদের তদ্বির সুপারিশ করে এমপি বানালো তাদের প্রায় অধিকাংশকে একপাল্লায় আর অপর পাল্লায় আমার মতো বন্চিত কমদের পরিমাপ করুন ওজন কাদের বেশী। জুরিবোর্ড বসিয়ে এই ৪৩ জন পুনরায় বাছাই করুন নির্বাচন কমিশনে প্রেরনের পূর্বে। তা নাহলে বুকভাঙা দীর্ঘশ্বাস মঙ্গল আনেনা, আনতে পারেনা।

এতোকাল টানা ৫০ বছর ধৈর্য্য ই ধরেছি। আর তো জীবন সময়ই নেই, প্রাপ্তির প্রত্যাশাও সমাপ্ত। সততা, নিষ্ঠা, শিক্ষা, ত্যাগের যেখানে মূল্য নেই সেখানে প্রত্যাশা অরন্যে রোদন ছাড়া আরকি। 

আপনার এই চমকে তুষ্ট হতে না পারার অপরাধ নিবেন না। এও জানি আমার মতো এক নয় বহু জন, লক্ষজনও আপনার কাছে আজ মূল্যহীন। আল্লাহ আপনার মঙ্গল করুক।

সূএ: আশালতা বৈদ্যর ফেসবুক পেইজ থেকে সংগৃহিত

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71