বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
বুধবার, ৮ই ফাল্গুন ১৪২৫
 
 
সতর্ক হলে হিন্দুদের ওপর হামলাটি এড়ানো যেত: এইচ টি ইমাম
প্রকাশ: ১২:০৪ pm ১৮-১১-২০১৭ হালনাগাদ: ১২:০৪ pm ১৮-১১-২০১৭
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


রংপুরে হিন্দুদের ওপর হামলাটি পরিকল্পিত ছিল৷ ফেসবুকে কথিত একটি স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে ঠাকুরপাড়া গ্রামে হিন্দুদের বাড়িতে লুটপাট হয়েছে৷ 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে সম্প্রতি বাংলাদেশের রংপুরের গঙ্গাচড়ায় আবারো ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এর আগে কক্সবাজারের রামু, পাবনার সাথিয়া এবং ব্রা‏‏‏‏‏‏হ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে একই ধরনের হামলার ঘটনা দেখা গেছে।

প্রত্যেকটি ঘটনার সূত্রপাত হয় ফেসবুকের স্ট্যাটাস থেকে। তারপর খবর ছড়িয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে, মিছিল করে হামলার ঘটনা ঘটে। রংপুরে পুলিশের ব্যবহার আশ্বাসের পরেও চতুর্থদিনে গিয়ে সংঘবদ্ধ এই হামলা হয়েছে।

বিবিসি বাংলার প্রভাতী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম জানান, ’তিনি মনে করেন  সতর্ক হলে এমন ঘটনা এড়ানো সম্ভব। এটি নিয়ে বেশ কয়েকদিন কয়েকবার কথাও হয়েছে এবং যখন এই স্ট্যাটাসটা দেয়া হয়েছে সে সময় টিটুকে গ্রেপ্তার করা যেত। রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় প্রশাসন সবাই মিলে এটিকে প্রশমিত করা যেত। এটার ব্যর্থতা আমাদের সকলকে নিতে হবে। আমাদের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও প্রশাসনের উচিত ছিল আগাম বার্তা দিয়ে সতর্ক করা। রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং প্রশাসন সবাই অত্যন্ত সচেতন, কিন্তু‘ এরপরেও এমন ঘটনা ঘটার কারণ হলো প্রশিক্ষা, ধর্মীয় শিক্ষার অভাব এবং অন্ধ ধর্মীয় চেতনা। রংপুরের এই ঘটনায় দেখা গেছে জামায়াত এবং বিএনপির কয়েকজন নেতা তারা সবচেয়ে বেশি অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। কাজেই এখানে একটা রাজনৈতিক স্বার্থের ব্যাপার আছে। এটার কারণে আগামী রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রভাব পড়তে পারে। স্ট্যাটাসে বলা হয়েছিল সে (টিটু) ওইখানে থাকত না কিন্তু‘ আসলে সে (টিটু) ওইখানে ছিল। এটার দুটো লক্ষ্য থাকতে পারে একটা হলো তাকে বাঁচানোর জন্য বা নিরাপত্তার জন্য, অন্যদিকে আরো একটি হতে পারে অন্য একজন তাকে এটি পাঠিয়েছে সেটি হলে মারাত্মক খারাপ হবে। আমাদের দেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ব্যাপকভাবে যে অপব্যবহার হচ্ছে, তা ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বসে আলাপ করা উচিত। এসব কিছুর পেছনে বিরোধী দল নয়, অনেক বড় কোনো নেতা জড়িত আছে বলে তিনি মনে করেন।

প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71