মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ১০ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
সমুদ্রের গভীরে ১২০০ বছর ধরে ঘুমিয়ে আছে প্রাচীন মিশরের রহস্যময় শহর
প্রকাশ: ১১:২৮ am ১১-০৫-২০১৭ হালনাগাদ: ১১:২৮ am ১১-০৫-২০১৭
 
 
 


হারকিউলিসের নাম অনুসারে গ্রিকরা একে বলত হেরাক্লেয়ান । মিশরীয়রা নিজেদের এই বন্দর শহরকে ডাকত থনিস নামে । গ্রিস-সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে পসরা সাজিয়ে ভূমধ্যসাগর পেরিয়ে জাহাজ এসে ভিড়ত থনিস-হেরাক্লেয়ানের বন্দরে । 

ঐতিহাসিক হেরোডটাস একে বলেছিলেন অমিত শক্তির নগরী বলে কিন্তু ধীরে ধীরে এই শহর চলে গেল লোকচক্ষুর আড়লে । সবাই ভুলে গেল তার কথা খ্রিস্টপূর্ব দ্বাদশ শতকে সৃষ্টি হওয়া এই শহর হয়ে গেল কিংবদন্তি তার অস্তিত্ব থেকে গেল শুধু প্রাচীন লিপিতে ।

২০০০ সালে ফরাসি পুরাবিদ ফ্র্যাঙ্ক গোডিও প্রমাণ করলেন‚ থনিস-হেরাক্লেয়ান শুধু কিংবদন্তি নয় | এখন সে ঘুমিয়ে আছে আবুকির উপসাগরের তলায় ১৫০ ফিট জলস্তরের নিচে । নীলনদের যুদ্ধে ডুবে যাওয়া ফরাসি যুদ্ধজাহাজ আবিষ্কার করতে গিয়ে প্রাচীন মিশরীয় বন্দর-শহরকে আবিষ্কার করেছিলেন এই পুরাবিদ ।

ঐতিহাসিকরা বলেন‚ পত্তনের সময় এই শহর ছিল নীলনদের বদ্বীপ অঞ্চলে । মোহনায়‚ যেখানে নীল নদ পড়েছে ভূমধ্যসাগরে‚ সেখানেই পত্তন হয়েছিল এই নগরীর। এটাই ছিল বাকি বিশ্বের সঙ্গে মিশরের অন্যতম প্রধান যোগসূত্র । কিন্তু সৃষ্টির দেড় হাজার থেকে হাজার বছর পরে কীভাবে তা জলের তলায় চলে গেল‚ এখনও রহস্য । যে নগরী ছিল ভূমধ্যসাগরের মাথার মণি‚ তা এখন ঘুমিয়ে আছে সাগরের তলায় । অধিকাংশ গবেষক বলেন‚ সম্ভবত অষ্টম খ্রিস্টাব্দে প্রবল ভূমিকম্পে জলস্তর বেড়ে ক্রমে গ্রাস করে নেয় এই নগরীকে।

দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে জলের নিচে এই রহস্যময় শহর থেকে চলছে জিনিস উত্তোলন। ১২০০ বছর ধরে বালি কাদায় আটকে থাকায় জিনিসগুলো সংরক্ষিত হয়েছে অভূতপূর্ব ভাবে । এখনও অবধি এই শহরে দেখতে পাওয়া গেছে ৬০ টির বেশি জাহাজের খোল । পাওয়া গেছে সাতশোর বেশি নোঙর । সমুদের কোলে বালিতে মুখ গুঁজে পড়ে আছে অসংখ্য মুদ্রা। হায়রোগ্লিফিক এবং প্রাচীন গ্রিক ভাষায় রচিত বহু শিলালিপি, পশুদের সমাধিস্থ করার ধাতব শবাধার । ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে কয়েকশো দেবদেবীর মূর্তি | তার মাঝে মাথা উঁচু করে আছে ৬১ ফিট লম্বা মূর্তি । পাশাপাশি‚ খোঁজ পাওয়া গেছে প্রাচীন মিশরের অন্যতম প্রধান দেবতা আমুন গেরেবের মন্দিরের।

তবে এখানেই সন্তুষ্ট নন ঐতিহাসিক এবং পুরাতাত্ত্বিকরা।তাঁরা জানতে চান কী করে সলিলসমাধি হল ফ্যারাও-শাসনের অন্যতম এই গুরুত্বপূর্ণ বন্দর-শহরের ? এবং তাঁদের ধারনা‚ অন্তত ২০০ বছর লাগবে থনিস-হেরাক্লেয়ানের আবিষ্কার এবং খননকাজ সম্পূর্ণ হতে।

এইবেলাডটকম/এএস

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71