বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮
বুধবার, ২৮শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
সালাহউদ্দিন-হাসিনা দম্পতির মধ্যে বিএনপি’র প্রার্থী কে হচ্ছেন? 
প্রকাশ: ০৯:৪৬ pm ১৪-১১-২০১৮ হালনাগাদ: ০৯:৪৬ pm ১৪-১১-২০১৮
 
কক্সবাজার প্রতিনিধি
 
 
 
 


বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী সালাহউদ্দিন আহমদ। একই দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সাবেক সংসদ সদস্য হাসিনা আহমেদ। তারা পরস্পর স্বামী-স্ত্রী। বিএনপির এই দুই নেতা কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে ১৯৯৬ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত অনুষ্টিত চারটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে চারবারই বিজয়ী হয়েছেন। তন্মধ্যে স্বামী সালাহউদ্দিন তিনবার ও স্ত্রী হাসিনা আহমদ একবার করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। আগামী ৩০ নভেম্বর অনুষ্টিতব্য একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও বিএনপি নির্বাচন করলে স্বামী-স্ত্রীর কোন একজন এই আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন। সে লক্ষ্যে স্বামীসহ নিজের জন্য দুটি দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন সাবেক সংসদ সদস্য হাসিনা আহমদ। 

পেকুয়া সদরের বাসিন্দা সালাহউদ্দিন আহমদ সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার এপিএসের দায়িত্ব পালন করাকালিন পরিচিতি লাভ করেন। পরে ১৯৯৬ সালে অল্প সময়ের ব্যবধানে দুইবার ও ২০০১ সালে একবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এসময়ে তিনি অভিভক্ত চকরিয়া থেকে পাঁচটি ইউনিয়ন (বর্তমানে ৭টি) নিয়ে পেকুয়া উপজেলা প্রতিষ্ঠা করেন। ২০০৮ সালে আইনগত জটিলতার কারণে তিনি নির্বাচন করতে পারেননি। তার পরিবর্তে নবম সংসদ নির্বাচনে অংশ নেন তারই স্ত্রী হাসিনা আহমদ। স্বামী-স্ত্রী টানা চার দফায় সংসদ সদস্য থাকাকালিন পিছিয়ে থাকা অবহেলিত পেকুয়াকে নতুন রুপে ঢেলে সাজান। উন্নয়ন করেন ব্যাপক। ওইসময় উন্নয়নের দিক দিয়ে চকরিয়া অনেকটা পিছিয়ে পড়ে বলে অভিযোগ রয়েছে। এরপরও বিএনপি বা খালেদা-তারেক নয় সালাহউদ্দিন আহমদের পরিকল্পনা ও দিক নির্দেশনায় চলে আসছে চকরিয়া-পেকুয়ায় বিএনপি কার্যক্রম ও নেতৃত্ব। এমনকি তিনি ২০১৫ সালে নিখোঁজ হয়ে ভারতের শিলংয়ে উদ্ধারের পর অসুস্থতা ও মামলার কারণে সেখানে অবস্থান করেও চকরিয়া-পেকুয়াসহ পুরো কক্সবাজার জেলায় তার দিকনির্দেশনায় চলছে বলে বিএনপি নেতাদের অভিমত। 

এরই মধ্যে ঘনিয়ে এসছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। তফসিল ঘোষনা করেছে নির্বাচন কমিশন। আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্টিতব্য নির্বাচনে অংশ নেয়ার লক্ষ্যে হাসিনা আহমদ নিজের জন্য একটি ও স্বামী সালাহউদ্দিন আহমেদের জন্য একটি মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন সালাহউদ্দিন আহমদের প্রেস সচিব সাংবাদিক সফওয়ানুল করিম। 

স্থানীয় বিএনপি’র একাধিক নেতা জানান, গত পাঁচ বছর ধরে চকরিয়া-পেকুয়ায় হামলা ও মামলার কারণে দলীয় কর্মকান্ড এক প্রকার স্থবির রয়েছে। কেন্দ্রীয় কর্মসুচির আলোকে শান্তিপূর্ণ মিছিল সভাও করতে দেয়া হয়নি। তবুও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে সালাহউদ্দিন আহমদ বা তার স্ত্রী হাসিনা আহমদ যেই প্রার্থী হোননা কেন তিনিই বিজয়ী হবেন। 

প্রার্থীতা ও নির্বাচন নিয়ে জানতে চাইলে সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট হাসিনা আহমেদ জানান, এই আসনটি বিএনপির ঘাটি। দলীয় ছাড়াও সাধারণ মানুষ আমার স্বামী সালাহউদ্দিনের ভক্ত। বিএনপি নির্বাচন করলে চকরিয়া-পেকুয়া আসনে আমার স্বামী সালাহউদ্দিন আহমদ প্রার্থী হবেন। তিনি বর্তমানে ভারতে শিলংয়ে অবস্থান করছেন। আইনগত জটিলতার কারণে তিনি নির্বাচন করতে না পারলে তার পরিবর্তে আমি নির্বাচনে অংশ নেব। সেলক্ষ্যে চকরিয়া-পেকুয়ার বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীসহ আমি প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি।

তিনি আরো বলেন, যদি নির্বাচন নিরপেক্ষ হয়, মানুষ ভোট দেয়ার সুযোগ পাই তাহলে ধানের শীষ প্রতিকের প্রার্থীই কক্সবাজার-১ আসনে জয়ী হবে।

নি এম/চঞ্চল

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71