শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮
শুক্রবার, ৩০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
সুনামগঞ্জে শিক্ষক সীতেশ চন্দ্রকে মারধরের প্রতিবাদে মানববন্ধন
প্রকাশ: ০২:১৯ pm ২৩-১১-২০১৭ হালনাগাদ: ০২:১৯ pm ২৩-১১-২০১৭
 
সুনামগঞ্জে প্রতিনিধি
 
 
 
 


সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জে জেএসসি পরীক্ষায় নকল করার সুযোগ না দেয়ায় এক বখাটে পরীক্ষার্থী ক্রিকেট খেলার ব্যাট দিয়ে শিক্ষককে বেদড়ক পিঠিয়ে আহত করার প্রতিবাদে এবং তাকে দ্রুত গ্রেফতার করে কঠোর শাস্তির দাবিতে ক্লাস বর্জন করে ঘণ্টাব্যাপি মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীরা।

বুধবার সকাল ১১টায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এ মানববন্ধন কর্মসূচিপালন করেন। মারধরের শিকার আহত সীতেশ চন্দ্র সরকার জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের রসায়ন বিষয়ের শিক্ষক। ঘটনার পর আহত অবস্থায় তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি ঘাড়ের ও ডান হাতে আঘাত পেয়েছেন বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

মারধরকারী বখাটে ওই পরীক্ষার্থী রিয়াজ মাহমুদ শাহ উপজেলা সদর এলাকার নয়াহালট গ্রামের বাসিন্দা বিএনপি নেতা শাহজাহান শাহ’র ছেলে। সে জামালগঞ্জ মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এই বছর জেএসসি পরীক্ষা দিয়েছে।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিধান ভূষন চক্রবর্তী, সহকারি প্রধান শিক্ষক সুব্রত রায়, সহকারি শিক্ষক জ্যোতেন্দু কুমার সরকার, হোসনে আরা বেগম, নন্দন কুমার রায়, সন্তোস কুমার দাস, সৌমেন শেখর রায়, সুকেশ রঞ্জন তালুকদার, নাজনীন বহ্নি, গোপিকা রঞ্জন চৌধুরী, অনিতা রানী রায়, সফিকুল ইসলাম, পুতুল কুমার ভৌমিক, অর্পা তালুকদার, উত্তম কুমার দাস, চিত্ত রঞ্জন দাস, শেখ মাসুদ, আশিক নুর, রকিব আহমদ, শিক্ষার্থী ফারিয়া পায়েল, দেবশ্রি তালুকদার প্রেমা প্রমুখ। মানববন্ধনে বক্তারা শিক্ষক সীতেশ চন্দ্র সরকারের উপর হামলার সাথে জড়িত বখাটে পরীক্ষার্থীকে দ্রুত আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির দাবি জানান।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ১৬ নভেম্বর জেএসসি’র সমাজ বিজ্ঞান পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে পরীক্ষার্থী রিয়াজ মাহমুদ শাহ নকল আনার চেষ্টা করছিল। ওই পরীক্ষকের দায়িত্বে ছিলেন জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সীতেশ কুমার সরকার; সে সময় তাকে কথা বলতে বাধা প্রদান করেন তিনি। পরীক্ষা শেষে রিয়াজ মাহমুদ শাহ পরীক্ষক সীতেশ চন্দ্র সরকারকে হুমকি দিয়ে বলে, ‘এক মাঘে শীত যায় না।’ শিক্ষক সীতেশ চন্দ্র সরকার হুমকির পর পরই বিষয়টি পরীক্ষা কেন্দ্র সচিব বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিধান ভূষন চক্রবর্তী ও আইনশৃংখলার দায়িত্বে থাকা পুলিশ অফিসারকে অবগত করেন। সেই ঘটনার জের ধরে মঙ্গলবার বিকালে শিক্ষক সীতেশ চন্দ্র সরকারকে নিজের বাসার কাছে ক্রিকেট খেলার ব্যাট দিয়ে মারধর করে রিয়াজ। এসময় চিৎকার শুনে জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা হুসনে আরাসহ আরো কয়েকজন এগিয়ে এসে তাঁকে রক্ষা করেন। পরে স্থানীয়রা তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

শিক্ষক সীতেশ চন্দ্র সরকার বলেন, ‘গত ১৬ নভেম্বর জেএসসি’র পরীক্ষায় রিয়াজকে পরীক্ষার হলে নকলে বাধা প্রদান করেছি। পরীক্ষার পর সে আমাকে হুমকি দিয়ে বলেছিল, ‘এক মাঘে শীত যায় না।’ সেদিন আমি বিষয়টি কেন্দ্র সচিব প্রধান শিক্ষক বিধান ভূষন চক্রবর্তী ও আইনশৃংখলা দায়িত্বে থাকা পুলিশ অফিসারকে অবগত করেছি। মঙ্গলবার বিকালে আমাকে তার বাসার সামনে পেয়ে ব্যাট দিয়ে মারধর শুরু করে। আমাদের বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা হুসনে আরা বিষয়টি দেখে দৌঁড়ে এসে আমাকে রক্ষা করেন।’

এ ব্যাপারে জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিধান ভূষন চক্রবর্তী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, পরীক্ষার হলে রিয়াজকে কথা বলতে বাধা প্রদান করেছিলেন সীতেশ বাবু। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তার উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।  জামালগঞ্জ থানার (ওসি তদন্ত) মিজানুর রহমান জানান, আমার জেনেছি পরীক্ষার হলে ওই ছাত্রকে কথা বলতে বাধা দেয়ায় শিক্ষক সীতেশ সরকারকে ব্যাট দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। তিনি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডা. মনিসর চৌধুরী জানান, আহত শিক্ষক সীতেশ সরকারের ঘাড়ের নিচে ডান দিকে ও ডান হাতে দুইটি আঘাতে চিহ্ন রয়েছে। তিনি হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

জামালগঞ্জ উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা (সহকারি কমিশনার ভূমি) মনিরুল হাসান বলেন,‘ ঘটনাটি জানার পরপরই অভিযুক্ত ওই পরীক্ষার্থীর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আমি থানার অফিসার ইনচার্জকে চিঠি দিয়েছি।’

জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলাম বলেন,‘ শিক্ষককে মারধরের ঘটনাটি জানার পর পরই দ্রুত কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71