বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮
বুধবার, ৩০শে কার্তিক ১৪২৫
 
 
সুনামগঞ্জের মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন হচ্ছে না ১৭বছর
প্রকাশ: ০৩:৪৭ pm ১০-১০-২০১৭ হালনাগাদ: ০৩:৪৭ pm ১০-১০-২০১৭
 
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
 
 
 
 


সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের আইনি জঠিলতার কারনে র্দীঘ ১৭বছর ধরে নির্বাচন হচ্ছে না। ফলে এই ইউনিয়ন বাসীরা নানান সমস্যার সম্মুখিন হচ্ছে পদে পদে আর বঞ্চিত হচ্ছে সরকারের নানান উন্নয়ন থেকেও। এর জন্য ইউনিয়নবাসীর মাঝে র্দীঘ দিনের চরম ক্ষোব বিরাজ করছে। 

জানাযায়, ২০০০সালে এই ইউনিয়নে সর্ব শেষ নির্বাচন অনুষ্টিত হয়। নির্বাচনে বিজয়ী হন জগন্নাথপুর উপজেলার আ,লীগের বর্তমান সভাপতি আকমল হোসেন। ২০১১সালে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে তিনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে নিয়ে বিজয়ী হন। সে সময় মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সদস্য জমির উদ্দিন কে ভারপ্রাপ্ত হিসাবে দায়িত্ব দেওয়া হয়। এর পর ২০১১সালে ইউনিয়ন পরিষদের তফশীল ঘোষনা করা হলে উপজেলার অন্যান্য ইউনিয়নের মত মীরপুর ইউনিয়ন জুড়ে নতুন প্রার্থীরা প্রতিদন্ধীতা করার জন্য মনোনয়ন পত্র জমা দেন। চলে ব্যাপক প্রচার-প্রচারনা শুরু হয়। হঠাৎ করেই সীমানা সংক্রান্ত একটি মামলায় হাইকোর্টের রিট আবেদনের প্ররিপ্রেক্ষিতে মীরপুর ইউনিয়নের নির্বাচন স্থগিত করা হয়। র্দীঘ ১যুগেরও বেশি সময় ধরে নির্বাচন না হওয়ায় এক প্রর্যায়ে নির্বাচনে প্রস্তুতিতে নামেন এই ইউনিয়ন বাসীরা। পালন করেন বিভিন্ন কর্মসূচি। তাতেও কোন লাভ হয় নি। এর পর থেকে এখনও পর্যন্ত ইউপি সদস্য জমির উদ্দিন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। 

আরো জানাযায়,সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন এক সভায় স্থগিত ও বিভিন্ন আইনি জটিলতা নিরসন করে নির্বাচন গ্রহনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই আবাশে আনন্দে ভাসঁছে ইউনিয়নবাসী। স্থানীয় এলাকাবাসী জানান,বছরের পর বছর ধরে এই ইউনিয়নে নির্বাচন না হওয়ায় আমরাও চেয়ারম্যানে কাছে কোন প্রকার সুযোগ সুবিধা পাচ্ছি না কোন মূল্যায়ন ও করে না। এভাবে নির্বাচন না হওয়ায় আমাদের ভোটারগনের বছরের পর পর ধরে অবমুল্যায়ন করা হচ্ছে। একটি ইউনিয়নে মামলার সুবিধা নিচ্ছে দায়িত্বপ্রাপ্তরা। এব্যাপারে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া ও নিবাচৃনের ব্যবস্থা করা খুবেই প্রয়োজন। 

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা  মুজিবুর রহমান জানান,কিছু দিন পূর্বে মীরপুর ইউনিয়নের নির্বাচন সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য নির্বাচন কমিশনে পাঠানো হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা মোতাবেক আমরা পরবর্তী পদক্ষেপ নেব। জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ জানান,মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন গ্রহনের ব্যাপারে কোন নির্দেশনা এখনো আমরা পাইনি। তবে নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে শুনেছি। কমিশনের নির্দেশনা মোতাবেক পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

জে/আরডি/
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71