রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮
রবিবার, ৮ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত
প্রকাশ: ০৯:১৮ am ০৯-০৮-২০১৭ হালনাগাদ: ০৯:১৮ am ০৯-০৮-২০১৭
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর বৈধতা নিয়ে আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের এক সপ্তাহের মাথায় কার্যক্রম শুরু করেছে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল। গত ৬ আগস্ট প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলের বৈঠকে সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগের বিচারকদের প্রতি নির্দেশনা জারি করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, এ নির্দেশনা কেউ লঙ্ঘন করলে তাঁকে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের মুখোমুখি হতে হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ষোড়শ সংশোধনীর বৈধতা নিয়ে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হওয়ার পর সংবিধানের ৯৬ অনুচ্ছেদে বর্ণিত সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল ব্যবস্থা কার্যকর হয়েছে। সংবিধান অনুযায়ী প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগের অন্য দুই জ্যেষ্ঠ বিচারপতিকে নিয়ে গঠিত কাউন্সিল গত ৬ আগস্ট প্রথম বৈঠকে বসে। প্রধান বিচারপতির অফিস কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা ও বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে।

সূত্র মতে, বৈঠকে ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায়ে উচ্চ আদালতের বিচারকদের জন্য নির্ধারণ করে দেওয়া ৩৯ দফা আচরণবিধি নিয়েই আলোচনা হয়েছে। সিদ্ধান্ত হয়েছে ওই ৩৯ দফার মধ্যে ৬ নম্বর দফা কার্যকর করার। ৬ নম্বর দফায় বলা হয়েছে, ঘোষিত রায় বা আদেশ প্রকাশ করতে অযাচিত বিলম্ব করা উচিত নয়। দ্রুত নিষ্পত্তি করা উচিত। একটি রায় ঘোষণার পর ছয় মাসের বেশি সময় পর সই করা ঠিক নয়।

তার আগেই সই করতে হবে। এই নির্দেশনা কার্যকর করতে ছয় মাস আগের সব রায় বা আদেশে সই করে আগামী ৪ অক্টোবরের মধ্যে সংশ্লিষ্ট শাখায় জমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। রায়ের নথিতে সই করে ওই সময়ের মধ্যে সংশ্লিষ্ট শাখায় পাঠাতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগের বিচারপতিদের নির্দেশ দেওয়া হবে।

জানা যায়, আগামী ৪ অক্টোবরের পর সুপ্রিম কোর্টের বিভিন্ন বেঞ্চে কর্মরত বেঞ্চ অফিসার ও সহকারী বেঞ্চ অফিসারদের বদলির বিষয়ে প্রধান বিচারপতি আদেশ জারি করবেন বলেও সিদ্ধান্ত হয়েছে বৈঠকে।

সুপ্রিম কোর্টের বিচারক অপসারণক্ষমতা জাতীয় সংসদের হাতে পুনর্বহালসংক্রান্ত সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর বৈধতা নিয়ে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়েছে গত ১ আগস্ট। রায়ের আদেশ অংশে বলা হয়েছে, সর্বসম্মতভাবে খারিজ করা হলো আপিল (ষোড়শ সংশোধনীর বৈধতা নিয়ে)। হাইকোর্ট বিভাগের রায়ে যে মন্তব্য ছিল তা প্রত্যাহার করা হলো। সংবিধানের ৯৬ অনুচ্ছেদের (২), (৩), (৪), (৫), (৬) ও (৭) নম্বর ক্লজ পুনর্বহাল করা হলো। সেই সঙ্গে অনুমোদন করা হলো আচরণবিধি, যা মূল রায়ে উল্লেখ আছে। রায়ে বলা হয়েছে, এ রায় ঘোষণার পর শূন্যতা সৃষ্টি হওয়ার অবকাশ নেই। সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল ব্যবস্থা বলবৎ হবে।

ষোড়শ সংশোধনী বাতিল হলে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল ব্যবস্থা আপনা-আপনিই বলবৎ হবে কি না সে নিয়ে কিন্তু বিতর্ক উঠেছিল এ পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হওয়ার আগে। এ বিষয়ে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তাসহ কোনো কোনো আইনষজ্ঞ মত দিয়েছিলেন যে আপনা-আপনিই এটা বলবৎ হবে না। এ জন্য জাতীয় সংসদে আইন পাস করতে হবে। আবার এর বিপক্ষেও মত ছিল অনেক আইন বিশেষজ্ঞের। তাঁদের অভিমত ছিল, নতুন আইন বাতিল হলে আগের আইন কার্যকর হবে। পরের এ অভিমতের প্রতিফলন ঘটেছে আপিল বিভাগের রায়ে।


প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71