বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮
বুধবার, ৭ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
সোয়াইন ফ্লু সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য
প্রকাশ: ০৫:৩৮ am ১৮-০৩-২০১৫ হালনাগাদ: ০৫:৩৮ am ১৮-০৩-২০১৫
 
 
 


সম্প্রতি সোয়াইন ফ্লুতে ভারতে বহু মানুষের মৃত্যু হয়েছে। গত ৭০ দিনে দেশটিতে ২৮ হাজার ব্যক্তি এ রোগে আক্রান্ত হয় এবং তাদের মধ্যে ১,৬০০ জন মারা যায়।

বাংলাদেশে প্রতিবছরই কমবেশি মানুষ সোয়াইন ফ্লুতে আক্রান্ত হলেও এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসের ব্যাপক বিস্তারের খবর পাওয়া যায়নি। পাশাপাশি এ বছর এখনও সোয়াইন ফ্লুতে আক্রান্ত হওয়ার খবর হাসপাতাল থেকে পাওয়া যায়নি।

অবশ্য বিপুল সংখ্যক মানুষ বর্তমানে সোয়াইন ফ্লুর ঝুঁকির আওতায় বসবাস করছেন। তাই সোয়াইন ফ্লু প্রতিরোধে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়ার এখনই সময়। সোয়াইন ফ্লু অন্যান্য ভাইরাসজনিত ইনফ্লুয়েঞ্জা জ্বরের মতোই একটি রোগ, যা শূকরের শরীরেও হয়। এ রোগে শূকর সারা বছরই কমবেশি আক্রান্ত হলেও শীতের শুরুতে আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত বেড়ে যায়।

কিন্তু বাংলাদেশে এপ্রিল থেকে জুলাইয়ে এ রোগ হওয়ার আশঙ্কা বেশি। সোয়াইন ফ্লু একটি ছোঁয়াচে রোগ। তাই এ রোগে আক্রান্ত রোগী থেকে একটু দুরে থাকাই নিরাপদ।

সোয়াইন ফ্লু আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি ধরা পড়লে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। সোয়াইন ফ্লু নিরাময়ে বাজারে সাড়ে তিনশ' টাকায় ভ্যাকসিন পাওয়া যায়, চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ওই ভ্যাকসিন ব্যবহার করতে হবে। এছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়সহ অনেক হাসপাতালে এ ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে।
এ লেখায় রয়েছে সোয়াইন ফ্লু বিষয়ে কয়েকটি তথ্য-

# মৃত্যুর হার কমছে
সোয়াইন ফ্লুর প্রাদুর্ভাবের পর প্রথম দিকে এতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর হার বেশি থাকলেও এবার তা কমতে শুরু করেছে। প্রথম দিকে এ রোগটির সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ ও চিকিৎসা বিষয়ে ব্যবস্থাপনা খুব উন্নত ছিল না। কিন্তু এখন এ রোগের ওপর বিভিন্ন গবেষণা চালিয়ে উন্নতি লাভ করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

# ওষুধের স্বল্পতা নেই
যেকোনো রোগের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্য প্রয়োজন পর্যাপ্ত প্রতিষেধক ও প্রতিরোধক। সোয়াইন ফ্লুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্যও রয়েছে প্রচুর ওষুধ। তাই ভয় না পেয়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে সঠিক ওষুধ বেছে নিন।

# ভয়ঙ্কর ভাইরাস নয়
ভারতে সোয়াইন ফ্লুর যে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে, তা খুব মারাত্মক হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে না। কারণ দ্রুত ও সঠিক চিকিৎসায় এর নিরাময় সম্ভব।

# নিরাপদ থাকার উপায়
সোয়াইন ফ্লু ঋতু পরিবর্তনের সময় হওয়া মৌসুমী রোগের মতোই ছড়ায়। আর এ থেকে নিরাপদ থাকার জন্য সর্দি-কাশি ও হাচ্চি দেয়া মানুষ থেকে দূরে থাকতে হবে। কারণ এগুলোর মাধ্যমে সাধারণত এটি ছড়ায়।

# দ্রুত চিকিৎসা নিন
সোয়াইন ফ্লুতে আক্রান্ত হলে উচ্চমাত্রার জ্বর, শ্বাসকষ্ট, তন্দ্রাভাব, বুকে ব্যথা, খাবারে অরুচি, বিতৃষ্ণাবোধ ও বমি হতে পারে। এ ধরনের লক্ষণ মিলে গেলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে চিকিৎসা শুরু করতে হবে।
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71