বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৯
বৃহঃস্পতিবার, ১১ই মাঘ ১৪২৫
 
 
সৈয়দপুরে হতদরিদ্রের মাটি কাটা টাকায় ভাগ বসালেন আওয়ামী লীগ নেতা
প্রকাশ: ০৭:০৯ pm ০৫-০৬-২০১৭ হালনাগাদ: ০৭:০৯ pm ০৫-০৬-২০১৭
 
 
 


নীলফামারী প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর সৈয়দপুরে হতদরিদ্রদের টাকায় ভাগ বসিয়েছেন এক আওয়ামী লীগ নেতা।

জানা যায়, ৪ জুন গতকাল রোববার দুপুরে কামারপুকুর ইউনিয়নে ২২ জন হতরিদ্র মানুষের টাকা দেয়া হচ্ছে সৈয়দপুর জনতা ব্যাংক শাখা থেকে। প্রত্যেকের ১৭৫ টাকা দিন হাজিরা হিসেবে ২১ দিনের সর্বমোট ৩ হাজার ৬৭৫ টাকা দেয়ার কথা। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তাদের সেই টাকা বুঝিয়ে দিচ্ছেন। এ ক্ষেত্রে বাধ সেজেছেন মাটি কাটা কর্মসূচির সর্দার ও কামারপুকুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী মুকুল। ২১ দিনের ৩ হাজার ৬৭৫ টাকা থেকে জোরপূর্বক ২২ জনের কাছে ১২৫ টাকা করে আদায় করেন। 

ভূক্তভোগী আফরোজা জানান, আমরা জনতা ব্যাংক থেকে টাকা নিয়ে নিচে নামার সময় সর্দার মুকুল আমার কাছ থেকে ১২৫ টাকা নিয়েছেন। আমি দিতে না চাইলে মাটি কাটা থেকে আমার নাম বাদ দিবে বলে হুমকি দেয়। একই অভিযোগ করলেন ৫নং ওয়ার্ডের জোৎস্না।

এ ব্যাপারে জনতা ব্যাংকের ম্যানেজারের মুখোমুখি হলে তিনি জানান, আমরা পুরো টাকাই দিয়ে দিচ্ছি। ব্যাংকের বাইরে টাকা নিয়ে কোন সমস্যা হলে তা দেখা আমাদের দায়িত্ব না। 

উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা (পিআইও) মোফাখ্খারুল ইসলাম জানান, সর্দার ১২৫ টাকা করে নিয়েছেন তা সম্পূর্ণ অবৈধ। তিনি কোন টাকা নিতে পারেন না। সর্দারের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নেব। 

কামারপকুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম লোকমান জানান, সর্দার মুকুল ১২৫ টাকা করে গরীব মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়েছে অভিযোগ পেয়েছি। তার বিরুদ্ধে (পিআইও) অফিসে লিখিত অভিযোগ দেয়া হবে। 

অভিযুক্ত মুকুল জানান, আমি বই যত্ন করে রাখি এবং ব্যাংকে দৌড়াদৌড়ি করি তাই ২২ জনের কাছে ১২৫ টাকা করে নিয়েছি। হুংকার ছুড়ে বলেন যে, আমার বিরুদ্ধে পেপার পত্রিকায় লেখালেখি করে কোন লাভ হবে না। আমার দল ক্ষমতায় আছে।

 

এইবেলাডটকম/মোমেন/গোপাল

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71