বুধবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৯
বুধবার, ১০ই মাঘ ১৪২৫
সর্বশেষ
 
 
স্কুলছাত্রী ধর্ষণ : শালিশীর নামে ধামাচাপা
প্রকাশ: ০৪:৫৫ pm ০৭-০৯-২০১৭ হালনাগাদ: ০৪:৫৫ pm ০৭-০৯-২০১৭
 
ময়মনসিংহ প্রতিনিধি :
 
 
 
 


ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার কালাদহ ইউনিয়নের হুরবাড়ী গ্রামে নানার বাড়ীতে বেড়াতে আসা ৭ম শ্রেনীর ছাত্রীকে বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে। 

ধর্ষিতাকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় ফুলবাড়ীয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হলে সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বুধবার গভীর রাতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনাটি মঙ্গলবার রাতে ঘটলেও ধর্ষক এখন পর্যন্ত পলাতক রয়েছে। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম মাষ্টার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। 

উল্লেখ্য, উপজেলার কালাদহ ইউনিয়নের হুরবাড়ী গ্রামের রিকশা ভ্যান চালক আঃ খালেকের ৭ম শ্রেনী পড়ুয়া শিক্ষার্থী মঙ্গলবার সকালে তার ছোট ভাই মিন্টুর সাথে পাশ্ববর্তী নিশিন্দারপাড়া গ্রামে তার নানার বাড়ী বেড়াতে যায়। সেদিন রাত ৯ টার দিকে একই গ্রামের রাশেদ নামের এক বখাটের নেতৃত্বে ৫/৬ জন মিলে ৭ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করে। 

রাত ১২ টার দিকে নানার বাড়ীর গোয়াল ঘরের পিছনে গোংগানীর শব্দ শুনে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় রাতেই ফুলবাড়ীয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। 

বুধবার দিনভর উজ্জল মেম্বারের নেতৃত্বে গ্রাম শালিশীর নাম করে বিষয়টি ধামাচাপা ও ধর্ষনের আলামত নষ্টের চেষ্টা করা হয়। 

ধর্ষিতার বড় ভাই ফরহাদ হোসেন জানান, আমার বোন ধর্ষিতা হয়ে হাসপাতালের বিছানায় সংজ্ঞাহীন অবস্থায় পড়ে আছে। উজ্জল মেম্বার বিচারের নামে প্রহসন করছে। আমি আমার বোনের ধর্ষকের বিচার চাই। 

ফুলবাড়ীয়া থানার ওসি (তদন্ত) আবুল খায়ের জানান, বিষয়টি শুনেছি। এখনো থানায় কোন অভিযোগ দেয়া হয়নি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আর/এসএম

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71