শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮
শুক্রবার, ২রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
হিন্দু নারীদেরকে কেনো শাঁখা সিঁদুর পরতে হবে
প্রকাশ: ০৯:২৯ pm ২১-০৪-২০১৮ হালনাগাদ: ০৯:২৯ pm ২১-০৪-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


প্রথমেই বলে নেই, এটা আপনাদেরকে পরতেই হবে। তবে কেন শাঁখা সিঁদুর আমাদের হিন্দু বিবাহিত নারীরা পরে আসছে সেটার কারণ হলোঃ- 

১) আধ্যাত্মিক কারণ : শাঁখার সাদা রং-সত্ত্ব, সিঁদুরের লাল রং–রজঃ এবং লোহার কাল রং-তম গুণের প্রতীক। সংসারী লোকেরা তিনটি গুণের অধীন হয়ে সংসারধর্ম পালন করে।

২) সামাজিক কারণ : এক জন বিবাহিত নারী সিঁদুর ও শাঁখা পরিধান করলে প্রথম দৃষ্টিতেই জানিয়ে দেয় ঐ রমণী একজন পুরুষের অভিভাবকত্বে বা স্ত্রী হিসাবে আছেন। অর্থাৎ কপালে রেড সিগনাল (সিঁদুর),আর ঐ রেড সিগনাল দেখলেই যে কোন পুরুষ বুঝবে যে ওখানে হস্তক্ষেপ করলে নিশ্চিত বিপদ ঘটবে, আর হাতে শাঁখা দেওয়ার অর্থ ঐ হাত কোনো না কোনো পুরুষের হাতে সমর্পন করা আছে, অর্থাৎ ঐ হাত ধরতে গেলে, হাত ভেঙ্গে দেবে। তাই সে কারণেই অন্য পুরুষের লোভাতুর, লোলুপ দৃষ্টি প্রতিহত হয়। কিন্তু কপালে সিঁদুর ও হাতে শাঁখা না থাকলে কি হবে? চরিত্রহীন বদমায়েস পুরুষগুলো বিরক্ত করার চেষ্টা করবে। তবে যে সব বিবাহিত রমনীগণ, সিঁদুর ও শাঁখা পরিধান করেননা সেই সকল অত্যাধুনিক রমনীগণ, এধরনের বিরক্তে আনন্দ পান, কিন্তু সম্মানীয়, ভদ্র ও সত্বী-সাধ্বী মায়েরা এ ধরনের আচরণ পরিহার করে চলেন। সর্বোপরি সিঁদুর ও শাঁখা পরিধান স্বামীর মঙ্গল চিহ্ন।

৩) বৈজ্ঞানিক কারণ : রক্তের ৩টি উপাদান শাঁখায় ক্যালসিয়াম, সিঁদুরে মার্কারি বা পারদ এবং লোহায় আয়রণ আছে। রক্তের ৩টি উপাদান মায়েদের মাসিক রজঃস্রাবের সাথে বের হয়ে যায়। তিনটি জিনিস নিয়মিত পরিধানে রক্তের সে ঘাটতি পূরণে সহায়তা করে।

আর্য ঋষিগণ সনাতন ধর্মের প্রতিটি আচার অনুষ্ঠানেই বৈজ্ঞানিক প্রয়োজনীয়তাকে প্রাধান্য দিয়ে আচার বা অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করেছেন।

লক্ষ্য করবেন সিঁদুর দেয়ার সময় মায়েরা নিচের দিকে নয়, ঊর্ধ্বায়ণ করে। কেন করে? সিঁদুর ঊর্ধ্বায়ণের মাধ্যমে রমণীগণ নিয়ত তার স্বামীর আয়ু বৃদ্ধির প্রার্থনা করে।

সকল হিন্দু নারী শুভ বিজয়াতে মা দেবী দুর্গার ললাটে সিঁদুর ছোঁয়ান ও একে অন্যের কপালেও সিঁদুর পরান। কিন্তু কেন? কারণ দেবী দুর্গার কাছে প্রার্থনা করেন যে, এই সিঁথির সিঁদুর যেন সারা জীবন অক্ষুন্ন থাকে। তাই এই বাসনাতেই একে অন্যের ললাটে সিঁদুর পরান।

তবে হঠাৎ আচমকা ভাবে পরিলক্ষিত হয় আজ আধুনিকতার নামে অনেক হিন্দু নারী মনে করেন যে শাঁখা সিঁদুর পরানোর নামে তাদেরকে হেয় করা হচ্ছে। তাদেরকে স্বাধীনতা নিয়ে চলতে দেওয়া হচ্ছেনা, তাদেরকে সম অধিকার দেওয়া হচ্ছেনা, পুরুষের চেয়ে খাটো করে দেখা হচ্ছে, আসলে কি তাই? মোটেওনা, আসলে তারা অবিবাহিত সাজতে চায়, একটু মর্ডান হতে চায়। যদি হিন্দু ধর্মে একাধিক বিবাহের অনুমোদন থাকতো তাহালে না হয় অবিবাহিত সেজে লাভ ছিলো, কিন্তু বিশেষ কারণ ছাড়া তো হিন্দু ধর্মে একাধিক বিয়ে হয়না। তাহলে অবিবাহিত সেজে লাভ কি? হে মমতাময়ী নারী, যে স্বামী আজীবন আপনার পাশে ছায়ার মত থাকার শপথ নিয়েছে তার মঙ্গলের জন্য এতটুকু কষ্ট করতে পারবেন না? হিন্দু ধর্মে নিয়ম হলো একজন বিবাহিত নারী, স্বামী ও সংসারের কল্যানের জন্য সধবা পর্যন্ত তাকে শাঁখা সিদুর পরতে হবে, আর এটা পরলে ক্ষতি কোথায়?


বিডি
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71